ঢাকা, শুক্রবার, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৭ মে ২০২২, ২৫ শাওয়াল ১৪৪৩

আইন ও আদালত

কক্সবাজারে ধর্ষণ: আশিককে ৭ দিনের রিমান্ডে চায় পুলিশ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩, ২০২২
কক্সবাজারে ধর্ষণ: আশিককে ৭ দিনের রিমান্ডে চায় পুলিশ

কক্সবাজার: কক্সবাজারে এক পর্যটক নারীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি আশিকুল ইসলামকে সোমবার ঢাকা থেকে কক্সবাজারে আনা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে পুলিশ।

সোমবার (৩ জানুয়ারি) বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ট্যুরিস্ট পুলিশের পরিদর্শক রুহুল আমিন।

তিনি জানান, কক্সবাজার সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হামীমুন তানজীনের আদালতে এ আবেদন করা হয়েছে। আদালত মঙ্গলবার শুনানির দিন ধার্য করেছেন।

ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, এ মামলার বাকি পাঁচ আসামিকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তবে তারা কেউই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেননি।

গত ২২ ডিসেম্বর স্বামী ও সন্তানকে জিম্মি করে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযাগে ওই নারীর স্বামী চারজনের নাম উল্লেখ ও তিনজনকে অজ্ঞাত আসামি করে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় মামলা করেন। এ মামলায় এখন পর্যন্ত মোট ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

মামলার আসামি হলেন—শহরের বাহারছড়া এলাকার আশিকুল ইসলাম, মোহাম্মদ শফি ওরফে ইসরাফিল হুদা জয় ওরফে জয়া, মেহেদী হাসান বাবু ও জিয়া গেস্ট ইন হোটেলের ম্যানেজার রিয়াজ উদ্দিন ছোটন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, গত ২ জানুয়ারি ঢাকা থেকে প্রধান আসামি আশিকুল ইসলামকে কক্সবাজার আনা হয়। সোমবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছেন তদন্ত কমকর্তা।

মামলার অগ্রগতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ভিকটিম এবং বাদী একেক সময় একেক কথা বলছেন। এ কারণে মামলার অগ্রগতিতে প্রভাব পড়ছে, বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। মূল আসামিকে রিমান্ডে নিলে ঘটনার আরও অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে পারব বলে আশা করছি।

বাংলাদেশ সময়: ২১৩৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৩, ২০২১
এসবি/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa