ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

মালয়েশিয়া

অচেনা শহরের আলোকিত মানুষ

জাকারিয়া মন্ডল, সিনিয়র আউটপুট এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩১৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৫, ২০১৬
অচেনা শহরের আলোকিত মানুষ ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বাংলা, বিহার আর উড়িষ্যা এক ছিলো শুনে বিস্ময় ঘনালো নবীন পাটনের চোখমুখে। উড়িষ্যার এই যুবক একটা পাইভেট বিদ্যুৎ কোম্পানির ট্রান্সমিশন কর্মী। যাচ্ছে নতুন কর্মস্থল সান্দাকানে।

সান্দাকান (বোর্নিও) থেকে: বাংলা, বিহার আর উড়িষ্যা এক ছিলো শুনে বিস্ময় ঘনালো নবীন পাটনের চোখমুখে। উড়িষ্যার এই যুবক একটা পাইভেট বিদ্যুৎ কোম্পানির ট্রান্সমিশন কর্মী।

যাচ্ছে নতুন কর্মস্থল সান্দাকানে। একটু আগে সুপারভাইজরের ধাতানিতে এমনিতেই মন খারাপ তার। স্বাভাবিকের চেয়েও আকারে অনেক বড় ল্যাগেজ নিয়ে বেসামাল বেচারা। তারওপর নবাব সিরাজদৌল্লার গল্পে মন বসলো না তার।

একটু পর পরই ফোন দিয়ে উড়িয়া ভাষায় কি বলছে বোধগম্য হওয়ার কথা নয়। কিন্তু একটা বিষয় বেশ ভালোভাবেই মাথায় ঢুকলো। এই ছেলে একে ওকে ফোন দিয়ে কল ব্যাক করতে বলছে। কিন্তু ব্যাক পাচ্ছে কমই।

মন খারাপ দেখে যাত্রাবিরতিতে যেচেই একটা বার্গার খাওয়ালাম তাকে। ৩ রিঙ্গিতে (১ রিঙ্গিতে ১৯ টাকা) কেনা চিকেন বার্গারটা বেশ রসিয়ে রসিয়েই খেলো বেচারা। এবার দেশে গেলে নাকি বিয়ে হবে তার। মেয়ে কাজ করে ভূবনেশ্বরের একটা ইনস্যুরেন্স কোম্পানিতে। আরো কিছুক্ষণ মিসকল মেরে আশানুরূপ সাড়া না পেয়ে পাশের সিটেই ঘুমিয়ে পড়লো আশাহত উড়িয়া।

এমনিতেই বাসটা আধা ঘণ্টা দেরিতে ছেড়েছে। বছরের এ সময়টায় পর্যটক কম থাকে বলে দূরপাল্লার বাসের ট্রিপ সংখ্যায় কম যায় সাবাহতে। কোনা কিনাবালুর ইনানাম বাস টার্মিনাল থেকে সকাল সাতটা থেকে সারাদিনই ঘণ্টায় ঘণ্টায় সান্দাকানগামী বাস ছাড়ার কথা। কিন্তু দিনের একমাত্র বাসটা ছেড়েছে বেলা ১টায়। সন্ধ্যা সাতটায় আর একটাই মাত্র বাস ছাড়বে বলে নোটিশ টানানো ছিলো টার্মিনালে।

তুঙ মা এক্সপ্রেসের স্ক্যানিয়া যখন সান্দাকান টার্মিনালে পৌঁছুলো তখন সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা বেজে গেছে। ছ’টার পর বন্ধ হয়ে গেছে টাউন সার্ভিস। এখান থেকে ৪ কিলোমিটার দূরের শহরে যেতে বাড়তি ভাড়া গুণতে হবে ট্যাক্সিতে।
এবার কিন্তু ভালোই খেল দেখালো নবীন! তাকে নিতে আসা প্রুটন গাড়িটায় চড়ে হুশ করে টার্মিনাল থেকে বেরিয়ে গেলো সে। জানে, আমাকেও যেতে হবে সান্দাকান শহরেই।

চলে যাওয়া গাড়ির পানে কিছুক্ষণ তাকিয়ে থেকে টার্মিনাল থেকে বেরিয়ে এসে বসলাম সামনের যাত্রী ছাউনিটায়। পাশেই পাইপ ফুঁকছে এক মধ্যবয়সী মালয়। একটা পা পাশেই দাঁড়িয়ে থাকা কাভার্ড ভ্যানের পাদানিতে। সান্দাকানের মানুষ যে কতো অতিথিপরায়ণ তার যেনো জলজ্যান্ত মূর্তি হয়ে উদয় হলেন তিনি।

পরিচয় পর্ব সেরে নিজেই ট্যাক্সি খুঁজলেন এদিক ওদিক। আজ আর গাড়ি আসবে না বলে অপেক্ষারত ট্যাক্সিগুলো এরই মধ্যে চম্পট দিয়েছে। কিছু না পেয়ে গাড়ির পেছনের দরোজা খুলে গাড়িতে উঠতে বললেন দরাজ মালয়ী। সামনে তার পাশের সিটে তারই ছ’বছরের ছেলে বসে আইসক্রিম খাচ্ছে।

এমনিতেই এ শহরে মানুষ কম। তারওপর রাতের আঁধারে একটু বেকায়দায় পড়েছিলাম বটে। এই মানুষটাকে তাই মনে হলো সাক্ষাৎ দেবদূত। জানতে চাইলেন, আমি বুদ্ধিস্ট কি-না।

কোটা কিনাবালুতে মালয় তরুণী দিদ্দ ননয় আমাকে ভেবেছিলো শিখ। ইনি কেনো বুদ্ধিস্ট ভাবলেন বোধগম্য হলো না। মুসলিম বলতেই আরো বিগলিত হলো তার হাসি। বললেন, আমিও মুসলিম। তবে আমার অনেক বুদ্ধিস্ট বন্ধু আছে। তাদের সঙ্গে তোমার চেহারার মিল আছে।

তার এমন ভাবাবেগে আরো অতীতে নিয়ে চলে গেলো স্মৃতির মেঘ। কাঠমান্ডুতে একবার আমাকে নেপালি মনে করে শয়ম্ভু মন্দিরে প্রবেশের টিকিটই করতে দেননি নেপালি কাউন্টার মাস্টার।

দেখতে দেখতে শহরে বুকিং দেওয়া হোটেল সিটি ভিউএর সামনেই নামিয়ে দিলেন মানসুর মুরাদ। তার গমন পথের দিকে তাকিয়ে বুকের ভেতরে তোলপাড় উঠলো। আবেগ সামলে হোটেলের রিসিপশন ডেস্কে ঢুকেই সামনে পড়লো সাক্ষাৎ এক পরী। নিখুঁত চেহারা। গোটা রিসিপশন রুম যেনো আলো হয়ে আছে। এখানকার মেয়েরা যে সুন্দরী হয় তা এক বন্ধু বলে রেখেছিলেন আগেই। কিন্তু তাই বলে এতোটা!

ঘোর কাটলো সুন্দরীরই সুরেলা কণ্ঠে। জানালো ভুল জায়গায় এসে পড়েছি। এ হোটেলটার নাম সিটি স্টার। আমাকে যেতে হবে সিটি ভিউতে। এরই মধ্যে আরো দু’জন বোর্ডার এলো তার সামনে। অতীব দক্ষতায় তাদের সামলে ম্যাপ এঁকে কোথায় যেতে হবে বুঝিয়ে দিলো তরুণী। এই মেয়ে তো দেখি মালটি টাসকার! ম্যাপ হাতে ফের নামলাম পথে। এই  শহরের আর ক’জন একটা অচেনা লোককে এভাবে কৃতজ্ঞতা পাশে বেঁধে ফেলবে কে জানে।

** সাড়ে ৫ হাজার ফুট উঁচু রাস্তা পেরিয়ে
**সাত ঘণ্টাতেই শেষ রাজধানী চক্কর
** সিগনাল হিলে আকাশ ভাঙা বৃষ্টি
** চীন সাগরে মেঘ-সুরুযের যুদ্ধ
** মালয় তরুণীর বিষাদমাখা রাতে
** জিভে জল আনা বাহারি সি-ফুড
** চীন সাগর পেরিয়ে ওরাংওটাংদের দেশে

বাংলাদেশ সময়: ১৯১৩ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৫, ২০১৬
জেডএম/এটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa