ঢাকা, সোমবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

মালয়েশিয়া

বাংলাদেশিদের হাতেই জোহর বাহরুর পাইকারি বাজার

জাকারিয়া মন্ডল, সিনিয়র আউটপুট এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০২৫৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৬, ২০১৬
বাংলাদেশিদের হাতেই জোহর বাহরুর পাইকারি বাজার ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সিঙ্গাপুর সীমান্তের মালয়েশীয় শহর জোহর বাহরুতে ভালোই গুছিয়ে বসেছে বাংলাদেশিরা। গোটা মালয়েশিয়ায় যতো বাংলাদেশি থাকে তার অর্ধেকই বুঝি আসন গেঁড়েছে এখানে।

জোহর বাহরু (জোহর) থেকে: সিঙ্গাপুর সীমান্তের মালয়েশীয় শহর জোহর বাহরুতে ভালোই গুছিয়ে বসেছে বাংলাদেশিরা। গোটা মালয়েশিয়ায় যতো বাংলাদেশি থাকে তার অর্ধেকই বুঝি আসন গেঁড়েছে এখানে।

জনসংখ্যার বিচারে মালয়েশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম রাজ্য জোহরে এই বাংলাদেশি কমিউনিটি দাঁড়িয়ে গেছে শক্ত ভীতের ওপর। দেশটির সবচেয়ে বড় বাংলাদেশি কমিউনিটি তাই কুয়ালালামপুরে নয়, জোহরে।  

আর এখানকার নিত্য ভোজ্য পণ্যের পাইকারি ব্যবসার নিয়ন্ত্রকও মূলত বাংলাদেশিরাই। জোহর বাহরু শহরের উত্তর অংশে পাসার ভরং পানদান বা পানদান হোলসের মার্কেট নামে নিত্য পণ্যের যে বাজারটি দিনভর জমজমাট থাকে তাতেও বাংলাদেশিদেরই দৃপ্ত পদচারণা।

এ বাজারে মূলত পাইকারি ব্যবসা পাঁচ প্রবাসী বাংলাদেশির। চাল-তেল-ডাল থেকে শুরু করে হেন পণ্য নেই এ বাজারে আসে না। তারপর এখান থেকেই ছড়িয়ে পড়ে মালয়েশিয়ার সর্বদক্ষিণের রাজ্য জোহরের রাজধানী জোহর বাহরুর মহল্লায় মহল্লায়।  

আর রাজ্য রাজধানীতে ছড়িয়ে থাকা বাংলাদেশি মিনি গ্রোসারির সংখ্যা কিছুতেই হাজার দেড়েকের কম হবে না। এছাড়া দ্রুত বর্ধনশীল শহরের সারি সারি বহুতল ভবনের নির্মাণযঞ্জে সামিল বিভিন্ন দেশের লাখো শ্রমিকের কাঁচাবজারের নিয়ন্ত্রণও এই বাংলাদেশিদের হাতে।

দেশি-বিদেশি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে চুক্তি থাকে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের। সে অনুযায়ী শ্রমিক বসতির পাশে বাজার সাজিয়ে বসে তারা। সেখান থেকে নগদ টাকায় বিকিকিনি তো হয়ই, কেনাকাটা করা যায় বাকিতেও। মাস শেষে ওই বাকির টাকা তুলে নেয়া যায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান থেকেই।

এর বাইরে ফার্নিচার ফ্যাক্টরি আর তৈরি পোশাকের কারখানাতেও এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশিরা। তবে আর সব প্রবাসী এলাকার মতো এখানকার বাংলাদেশিদের মধ্যে বড় কোনো দ্বন্দ্ব নেই। সবাই মিলে প্রতিষ্ঠা করেছে বাংলাদেশ কমিউনিটি জোহর মালয়েশিয়া (বিসিজেএমওয়াই)। এই সংগঠন একই সঙ্গে বাংলাদেশিদের ব্যবসা, সমাজসেবা আর প্রবাসী কল্যাণের সমন্বিত প্লাটফর্ম হিসেবে কাজ করে।

সম্প্রতি এখানকার জেলে থাকা ২১ জন বাংলাদেশিকে প্লেনের টিকিট দিয়ে দেশে পাঠিয়েছে জোহর বাহরুর বাংলাদেশ কমিউনিটি। কুয়ালালামপুর থেকে হাই কমিশনের কর্মী এনে নিজেদের অফিসে করিয়ে দিয়েছে হাজারো বাংলাদেশির পাসপোর্ট। বিভিন্ন জাতীয় দিবসে এরাও পালন করে নানা কর্মসূচি।

পহেলা বৈশাখে তাদের আয়োজনে জোহর বাহরুর বাংলাদেশ কমিউনিটি হয়ে ওঠে এক টুকরো বাংলাদেশ। তাতে সামিল হয় এ দেশের মানুষও। একুশে ফেব্রুয়ারিতে তারা হাতে নেয় ছোটদের শহীদ মিনার আঁকা কর্মসূচি। স্বাধীনতা আর বিজয় দিবসে জোহর বাহরুর বাতাসে ভাসে বাংলার দেশাত্মবোধক গান।

কমিউনিটির সেক্রেটারি হিসেবে এমজে আলম থাকেন এসব কর্মসূচির পুরোভাগে। পানদান পাইকারি বাজারের অন্যতম ব্যবসায়ীও তিনি। তার বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের সামনেই জমে ওঠা নানা আলাপ। তার মতে, জোহর বাহরুর বাংলাদেশিরা মালয়েশিয়ার অন্য যে কোনো রাজ্যের চেয়ে ভালো আছে। এখানকার কমি্‌উনিটিতে নিজেদের মধ্যে কোনো দ্বন্দ্ব নেই। রাজনীতির বিভাজন এখানে প্রবাসীদের মধ্যে ফাটল ধরাতে পারেনি।


আরও পড়ুন
**‘ভালো আছে জোহর বাহরুর বাংলাদেশ’
** লাখ টাকায় কোটিপতি হোন আপনিও
** বিনা ভাড়ায় ঘুরুন কুয়ালালামপুরে
** শিকারি কুমিরের সঙ্গে কোলাকুলি
**আকাশের হেলান দিয়ে মসজিদ ভাসে ওই​
** প্রলয় নৃত্যে হতবাক দর্শক
**নরমুণ্ডু শিকারী মুরুত গাঁওয়ে​
** মুসলিম বাজাউরাই বিত্তশালী বোর্নিওতে
**কলসির ভেতর লুনদায়েহ কবর
**লঙহাউজের রুঙ্গুস রাণী​
**বনের ভেতর দুসুন গাঁও
** এক বাজারেই পুরো বোর্নিও
**বোর্নিওতে কী পেতে পারে বাংলাদেশ
** সুলু সাগর তীরের হেরিটেজ ট্রেইলে
** সূর্য ভাল্লুকের সঙ্গে লুকোচুরি
** ওরাংওটাং এর সঙ্গে দোস্তি
** অচেনা শহরের আলোকিত মানুষ
** সাড়ে ৫ হাজার ফুট উঁচু রাস্তা পেরিয়ে
**সাত ঘণ্টাতেই শেষ রাজধানী চক্কর
** সিগনাল হিলে আকাশ ভাঙা বৃষ্টি
** চীন সাগরে মেঘ-সুরুযের যুদ্ধ
** মালয় তরুণীর বিষাদমাখা রাতে
** জিভে জল আনা বাহারি সি-ফুড
** চীন সাগর পেরিয়ে ওরাংওটাংদের দেশে


বাংলাদেশ সময়: ০৮৪৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৬
জেডএম/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa