ঢাকা, সোমবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

৬ আসনে ভোট: অর্ধেকের বেশি প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০০৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৩
৬ আসনে ভোট: অর্ধেকের বেশি প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত

ঢাকা: সদ্য সমাপ্ত ছয়টি আসনের উপ-নির্বাচনে ৪০ জন প্রার্থীর মধ্যে ২৬ জনের জামায়নত বাজেয়াপ্ত হয়েছে। আর ভোট পড়েছে ২৮ দশমিক ৪৬ শতাংশ, যা কাজী হাবিবুল আউয়াল কমিশনের অধীনে হওয়া বড় নির্বাচনগুলোর মধ্যে সর্বনিম্ন।

বুধবার (০১ ফেব্রুয়ারি) ঠাকুরগাঁও-৩, বগুড়া-৪, বগুড়া-৬, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ ও ব্রাক্ষণবাড়িয়া-২ আসনের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রিটার্নিং কর্মকর্তাদের পাঠানো ফলাফল (বার্তাশিট) থেকে জানা গেছে, এসব আসনে মোট ভোটার ছিল ২২ লাখ ৫৪ হাজার ১৭ জন। আর ভোট দিয়েছেন ৬ লাখ ৪১ হাজার ৪২০ জন। গড়ে ভোট পড়েছে ২৮ দশমিক ৪৬ শতাংশ।

২৬ জনের জামানত বাজেয়াপ্ত:
ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে জয় পেয়েছেন জাতীয় পার্টির হাফিজ উদ্দিন আহম্মেদ। এই আসনে মোট ভোট পড়েছে ১ লাখ ৫০ হাজার ৩৩৪টি। প্রদত্ত ভোটের আট ভাগের এক ভাগের কম ভোট পাওয়ায় জামানত হারিয়েছেন বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির মো. ইয়াসিন আলী, জাকের পার্টির মো. এমদাদুল হক, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির মো. শাফি আর আসাদ এবং বিএনএফের মো. সিরাজুল ইসলাম।

বগুড়া-৪ আসনে জয়ী হয়েছে জাসদের একেএম রেজাউল করিম তানসেন। আসনটিতে ভোট পড়েছে ৭৮ হাজার ৫২৪টি। আর প্রদত্ত ভোটের আট ভাগের এক ভাগের চেয়ে কম ভোট পাওয়ায় জামানত হারিয়েছেন জাকের পার্টির মো. আব্দুর রশিদ সরদার, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. তাজ উদ্দীন মণ্ডল, জাতীয় পার্টির শাহীন মোস্তফা কালাম, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. ইলিয়াস আলী ও মো. গোলাম মোস্তফা।

বগুড়া-৬ আসনে নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাগেবুল আহসান রিপু। উপ-নির্বাচনে ভোট পড়েছে ৯১ হাজার ৭৪২টি। প্রদত্ত ভোটের আট ভাগের এক ভাগের চেয়ে কম ভোট পাওয়ায় জামানত হারিয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী মাছুদার রহমান হেলাল, আশরাফুল হোসেন আলম (হিরো), মো. রাকিব হাসান, মো. সরকার বাদল, জাকের পার্টির মোহাম্মদ ফয়সাল বিন শফিক, গণফ্রন্টের মো. আফজাল হোসেন, জাসদের মো. ইমদাদুল হক ইমদাদ, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মো. নজরুল ইসলাম ও জাতীয় পার্টির মো. নুরুল ইসলাম ওমর।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মু. জিয়াউর রহমান। উপ-নির্বাচনে ভোট পড়েছে ১ লাখ ৪১ হাজার ৪০টি। এতে জামানত হারিয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী মু. খুরশিদ আলম, জাতীয় পার্টির মোহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাক, জাকের পার্টির মো. গোলাম মোস্তফা এবং বিএনএফের মো. নবীউল ইসলাম।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে বিজয়ী হয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মো. আব্দুল ওদুদ। এই আসনে মোট ভোট পড়েছে ১ লাখ ১৯ হাজার ৬৫৮ টি। এতে জামানত হারিয়েছেন বিএনএফের কামরুজ্জামান খান। তিনি পেয়েছেন ৪ হাজার ৪০ ভোট।

এছাড়া ব্রাক্ষণবাড়িয়া-২ আসনে নির্বাচিত হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী (বিএনপির বহিস্কৃত নেতা) আবদুস সাত্তার ভূইয়া। নির্বাচনে মোট ভোট পড়েছে ৬০ হাজার ১২২টি। আর জামানত হারিয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু আসিফ আলী, অ্যাডভোকেট মো. জিয়াউল হক মৃধা এবং জাকের পার্টির জহিরুল ইসলাম (জুয়েল)।

বর্তমান কমিশন গত ফেব্রুয়ারিতে দায়িত্ব নেওয়ার পর কুমিল্লা সিটি করপোরেশন, রংপুর সিটি সিটি করপোরেশন, গাইাবান্ধা-৫ ও ফরিদুপর-২ আসনের উপ-নির্বাচনসহ স্থানীয় সরকারের এক হাজারের বেশি নির্বাচন করেছে। বড় নির্বাচনগুলোর তুলনায় ছয় আসনের নির্বাচনে সবচেয়ে কম ভোট পড়েছে।

ভোট কম পড়ার তিন কারণ:
নির্বাচন কমিশনার বেগম রাশেদা সুলতানা জানিয়েছেন ভোট কম পড়ার পেছনে তারা তিনটি কারণ চিহ্নিত করেছেন। এগুলো হলো- আসনগুলোর বিএনপি দখলে আর দলটির নেতারাই পদত্যাগ করেছিলেন। তাই তাদের সমর্থকরা ভোট দিতে আসেননি। এছাড়া উপ-নির্বাচনে সাধারণ ভোটার কিছুটা কম হয়। আর তৃতীয় কারণ হলো- উপ-নির্বাচনে নির্বাচিতদের মেয়াদকাল কম, (আগামী জানুয়ারির মধ্যে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

বাংলাদেশ সময়: ০০০২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৩, ২০২৩
ইইউডি/এফআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।