ঢাকা, সোমবার, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৭ মে ২০২৪, ১৮ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

পাথরঘাটায় বাবার বাড়ির বারান্দায় ঝুলছিল গৃহবধূর মরদেহ 

উপজেলা করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৩৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৫, ২০২৪
পাথরঘাটায় বাবার বাড়ির বারান্দায় ঝুলছিল গৃহবধূর মরদেহ 

পাথরঘাটা (বরগুনা): বরগুনার পাথরঘাটায় বাবার বাড়ি থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় ইসরাত জাহান ইভা ওরফে কারিমা (২৪) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) সকালে পুলিশ উপজেলার কালমেঘা ইউনিয়নের ঘুটাবাছা গ্রাম থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

লাশের‌ সুরতহাল করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। কারিমা একই গ্রামের জালাল মাঝির মেয়ে। স্বামী সোহেল রানার বাড়ি উপজেলার চরদুয়ানী হোগলাপাশা গ্রামের মোস্তফা সরদারের ছেলে।

জানা যায়, রোববার রাতের খাবার খেয়ে ঘরের সবাই নিজ‌ নিজ কক্ষে যান। কিছুক্ষণ পর কারিমা স্বামীর বিছানা থেকে তার মা খাদিজা বেগমের কক্ষে যান। পরে ভোররাত সাড়ে ৪টার দিকে স্বামী সোহেল রানা স্ত্রী কারিমাকে বিছানায় দেখতে না পেয়ে শাশুড়ি খাদিজার কাছে‌ গিয়ে জিজ্ঞাসা করলে খোঁজাখুঁজি করে ঘরের সামনের বারান্দায় আড়ার সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়।

স্বামী সোহেল রানা বলেন, আমি ঢাকায় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করি। ঈদের ছুটিতে আসছি। আজ সকালে ঢাকায় যাওয়ার কথা।

তিনি বলেন, এক সঙ্গে রাতের খাবার খেয়ে বিছানায় যাই। শাশুড়ির ব্যবহৃত স্মার্টফোনের লক খুলতে কিছুক্ষণ পর আমার পাশ থেকে উঠে কারিমা তার মায়ের কক্ষে গিয়ে আর আসেনি। আমার সন্দেহ হয় মা-মেয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে শাশুড়ি আমার স্ত্রীকে হত্যা করে ঝুলিয়ে রাখে। যেভাবে পা চেয়ারের সঙ্গে ছিল তাতে আত্মহত্যা নয় এটি হত্যা।

এদিকে শাশুড়ি খাদিজা বেগমের অভিযোগ বলেন, জামাই আমার মেয়েকে খুন করে ঝুলিয়ে রেখেছে।

পাথরঘাটা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার মুঠোফোন যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, প্রাথমিক তথ্য পেয়ে সহকারী পুলিশ সুপার (পাথরঘাটা সার্কেল) গিয়ে উদ্ধার করেছে। সুরতহাল শেষে তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। পরবর্তী ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৩৬ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৫, ২০২৪
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।