ঢাকা, রবিবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৯ মে ২০২৪, ১০ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

মন্দিরে আগুনের গুজব ছড়িয়ে শ্রমিকদের গণপিটুনি দেওয়া হয়: এসপি মোর্শেদ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২০৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২৪
মন্দিরে আগুনের গুজব ছড়িয়ে শ্রমিকদের গণপিটুনি দেওয়া হয়: এসপি মোর্শেদ

ফরিদপুর: ফরিদপুরের মধুখালীর পঞ্চপল্লীর একটি উপাসনালয়ে আগুনের ঘটনায় রিউমার বা গুজব ছড়িয়ে এলাকায় মানুষদের মাঝে উত্তেজনা সৃষ্টি করে স্কুলের নির্মাণ শ্রমিকদের গণপিটুনি দেওয়া হয়। এ গণপিটুনিতে নিহত হন দুইজন ও আহত হন পাঁচজন নির্মাণ শ্রমিক।

এ ঘটনায় পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। উপাসনালয়ে অগ্নিকাণ্ড, গণপিটুনিতে হত্যা এবং পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে মামলাগুলো দায়ের করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) রাত ১০টার দিকে ফরিদপুরের নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ মোর্শেদ আলম সাংবাদিকদের এতথ্য জানান।

সংবাদ সম্মেলনে এসপি মোর্শেদ আলম বলেন, ওই এলাকাসহ জেলার সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে জেলা পুলিশের পাশাপাশি এপিবিএন এর ২শ অফিসার-ফোর্স এবং আরআরএফ এর ১৫১ জন অফিসার-ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি চার প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাব-১০-এর দুটি মোবাইল টিম মোতায়েন রয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার ছাড়াও অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইমদাদ হুসাইন (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত), অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. সালাউদ্দিন, কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাসানুজ্জামান, ট্রাফিক পরিদর্শক (টিআই) তুহিন লস্করসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার ডুমাইন ইউনিয়নের পঞ্চপল্লী এলাকার একটি মন্দিরে আগুন লাগানোর গুজব ছড়ানো হয়। এরপর মন্দির লাগোয়া স্কুলে থাকা নির্মাণ শ্রমিকদের গণপিটুনি দেন এলাকার লোকজন। এতে সহোদর দুই শ্রমিক নিহত হন। এসময় আহত হন আরও পাঁচ নির্মাণ শ্রমিক।  

বাংলাদেশ সময়: ১২০০ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০২৪
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।