ঢাকা, রবিবার, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ শাবান ১৪৪৫

রাজনীতি

নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনে ভয় কিসের: বাম গণতান্ত্রিক জোট

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯০২ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০২৩
নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনে ভয় কিসের: বাম গণতান্ত্রিক জোট

ঢাকা: বর্তমান সরকার এত উন্নয়নের কথা বলে, মেগা প্রকল্পের কথা বলে তাহলে তাদের নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনে ভয় কিসের বলে প্রশ্ন করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতারা।

বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর পল্টন মোড়ে বাম গণতান্ত্রিক জোটের আহ্বানে সমাবেশ থেকে এ প্রশ্ন করা হয়।

পাশাপাশি ঘোষিত তফসিল বাতিল, নির্দলীয় তদারকি সরকার গঠন, একতরফা নির্বাচন বর্জনের দাবিতে পল্টন থেকে দৈনিক বাংলা-কালভার্ট রোড-বিজয়নগর হয়ে পল্টন মোড়-প্রেসক্লাব-তোপখানা রোডে কালো পতাকা মিছিল করা  হয়।

বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক বিপ্লবী গণতান্ত্রিক পার্টির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল কবির জাহিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, সহকারী সাধারণ সম্পাদক মিহির ঘোষ, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) সাধারণ সম্পাদক বজলুর রশীদ ফিরোজ, বাসদ (মার্কসবাদী) সমন্বয়ক মাসুদ রানা, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির মোশরেফা মিশু, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক পার্টির আব্দুল আলী প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, সরকার এত উন্নয়নের কথা বলে, মেগা প্রকল্পের কথা বলে তাহলে তাদের নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনে ভয় কিসের? বিভিন্ন সময়ে দলীয় সরকারের অধীনেই সুষ্ঠু নিরপেক্ষ জাতীয় নির্বাচন সম্পন্ন হয়নি। তারই ধারাবাহিকতায় বর্তমান আওয়ামী সরকারের অধীনে বিগত দুটি নির্বাচনে মানুষ ভোট দিতে পারেনি। ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের ভোটকেন্দ্রে যেতে দেওয়া হয়নি।

সমাবেশে নেতারা বলেন, সরকার পুলিশ ও দলীয় বাহিনী দিয়ে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার, হামলা, নির্যাতনের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে। বাম জোটের মিছিল, সমাবেশে হামলা, নেতাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজকে নাটোরে বাম জোটের সভায় হামলা চালানো হয়েছে। অন্যান্য বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাদের বিভিন্ন জায়গায় গণগ্রেপ্তার করা হচ্ছে।

নেতারা জনগণের দাবির প্রতি সমর্থন জানিয়ে বর্তমান তফসিল বাতিল ও সরকারকে অবিলম্বে সুষ্ঠু ও নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য দল নিরপেক্ষ তদারকি সরকারের অধীনে নির্বাচনের জোর দাবি জানান।  এছাড়া নেতারা অবিলম্বে পুলিশি হয়রানি বন্ধ ও মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার সভা, সমাবেশ, মিছিল যাতে রাজনৈতিক দলগুলো করতে পারে সেই দাবি করেন।

সমাবেশ থেকে বাম জোটের সমন্বয়ক আগামী সপ্তাহে দেশব্যাপী বিক্ষোভ, মিছিল, সমাবেশ প্রচারপত্র বিলির জন্য ১ ডিসেম্বর থেকে প্রচার সপ্তাহের কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

এছাড়া আগামী ৬ ডিসেম্বর স্বৈরাচার পতন দিবসে দেশব্যাপী বিক্ষোভ সমাবেশের কর্মসূচিও ঘোষণা করা হয়।

বাংলাদেশ জাসদ, ঐক্যন্যাপ, ফ্যাসিবাদবিরোধী বামমোর্চা, জাতীয় গণফ্রন্ট, জাতীয় মুক্তি কাউন্সিল যুগপৎ ধারায় এই কর্মসূচি পালন করবে বলেও সমাবেশ থেকে জানানো হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০০ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ৩০২৩
আরকেআর/এসআইএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।