ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ মাঘ ১৪২৯, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৫ রজব ১৪৪৪

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি

ইউনিট প্রতি ৮৭ পয়সা বাড়াতে চায় বিউবো

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬০০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৭
ইউনিট প্রতি ৮৭ পয়সা বাড়াতে চায় বিউবো এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের গণশুনানি চলছে- ছবি: ডিএইচ বাদল

ঢাকা: বিদ্যুৎ উন্নয়ণ বোর্ড (বিউবো) পাইকারি বিদ্যুতের দাম ৮৭ পয়সা (ইউনিট) হারে বাড়াতে চায়। অন্যদিকে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) কারিগরি মূল্যায়ন কমিটি ৫৭ পয়সা অর্থাৎ  ১১ দশমিক ৭৮ বৃদ্ধির সুপারিশ করেছে।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিইআরসিতে গণশুনানিতে বিউবোর দাম বৃদ্ধির প্রস্তাবের উপর গণশুনানিতে এমন প্রস্তাব তুলে ধরা হয়।

বিউবো চলতি বছরের ২০ ফেব্রুয়ারি এই দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব জমা দেয় বিইআরসিতে।

তখন ৭২ পয়সা হারে বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছিলো। এরপর বেশ কয়েকমাসে বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় ৮৭ পয়সা হারে বাড়ানোর প্রস্তাব করেন বিউবো জিএম ( বাণিজ্যিক পরিচালন) কাওছার আমিন আলী।

বিউবোর পক্ষ থেকে জানানো হয়, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে বিদ্যুতের গড় উৎপাদন ব্যয় ইউনিট প্রতি ৫ দশমিক ৭২ টাকায় গিয়ে দাঁড়িয়েছে। আর বর্তমানে ইউনিট প্রতি ৪ দশমিক ৮৫ টাকা হারে বিক্রি করছে। এতে বিউবোর ইউনিট প্রতি লোকসান হচ্ছে ৮৭ পয়সা। সে কারণে পাইকারি বিদ্যুতের দাম বাড়ানো প্রয়োজন।

জিএম বাণিজ্যিক পরিচালন বলেন, ভর্তুকি দেওয়ার কথা বলা হলেও ভর্তুকি না দিয়ে ঋণ দেওয়া হয়েছে। এতে ২০০৬-০৭ অর্থবছর থেকে এখন পর্যন্ত ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩৯ হাজার ৬'শ ১০ কোটি টাকা। যার সুদের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৪'শ ৮১ কোটি টাকা। এতে করে বিউবো দিনদিন সংকটে পড়ছে।

এখন সংকট কাটতে অবচয় তহবিল থেকে ব্যয় পরিচালনা করতে হচ্ছে। অবচয় তহবিলে ২২ হাজার ৩'শ  ৭০ কোটি টাকা জমা থাকার কথা। কিন্তু জমা আছে ৩'শ ১৯ কোটি টাকা মাত্র। অর্থ সংকটের কারণে ওভারহোলিং রক্ষণাবেক্ষণ কাজ ব্যহত হচ্ছে বলে জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১১৫৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৭
এসআই/বিএস 
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa