ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

প্রবাসে বাংলাদেশ

পর্তুগাল চাকরি দেবে ইউক্রেন নাগরিকদের 

সমীর দেবনাথ, পর্তুগাল | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২১৬ ঘণ্টা, মার্চ ৫, ২০২২
পর্তুগাল চাকরি দেবে ইউক্রেন নাগরিকদের 

ইউক্রেন নাগরিকদের স্বয়ংক্রিয়ভাবে প্রবেশ করানোসহ (অটোমেটিক নিয়মিতকরণ) কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা নিশ্চিত করার উদ্যোগ নিয়েছে পর্তুগাল সরকার। দেশটির শ্রম বিষয়ক অধিদপ্তর ইনস্টিটুটো ডু ইমপ্রেগো ই ফরমাসাও প্রফিসিওনাল (আইইএফপি) ইউক্রেন শরণার্থীদের কর্মসংস্থান নিশ্চিতে এরই মধ্যে সরকারি উদ্যোগে একটি প্লাটফর্ম তৈরি করেছে।

রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধ চলমান, পশ্চিমা বিশ্বসহ বিভিন্ন দেশ ইউক্রেন নাগরিকদের সাহায্য করার জন্য একত্রিত হয়েছে, যার যা দিয়ে সম্ভাব্য তার সব উপায়ে সাহায্য করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। পর্তুগালও এর ব্যতিক্রম নয়।

পর্তুগাল সরকারের শ্রমমন্ত্রী একটি বিবৃতিতে জানিয়েছে, ইউক্রেন শরণার্থী পর্তুগালে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে তাদের কর্মসংস্থানের বিষয়টি সরকার সম্পূর্ণভাবে নিশ্চিত করবে। সে লক্ষে পর্তুগিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে চাকরির অফার প্রকাশসহ একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করেছে তারা। এরই মধ্যে ২ হাজারের বেশি শূন্যপদ রয়েছে যা একমাত্র ইউক্রেনীয়দের জন্য সংরক্ষিত। পর্তুগালে ইউক্রেন নাগরিকদের স্বয়ংক্রিয় প্রবেশের জন্য একটি বিশেষায়িত ব্যবস্থাও তৈরি করেছে সরকারের পক্ষ থেকে।

গত ০১ মার্চ  মন্ত্রিপরিষদে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ইউক্রেনীয় ও তাদের পরিবারের সদস্যদের পর্তুগালে প্রবেশের জন্য একটি বিশেষ অনুমোদন তৈরি করা হয়েছে যেখানে সহজ পদ্ধতির মাধ্যমে তাদের স্বাগত জানানো হবে, বলেছেন অভ্যন্তরীণ প্রশাসনের মন্ত্রী ফ্রান্সিসকা ভ্যান ডুনেম।

তিনি আরও বলেন, একজন ইউক্রেনীয় নিজেকে বিপদের মধ্যে প্রমাণ করার প্রয়োজন নেই যে তারা বিপদগ্রস্ত ও আশ্রয়প্রার্থী।

অভ্যন্তরীণ প্রশাসনমন্ত্রী উল্লেখ করেন, ইউক্রেনীয়দের শনাক্তকরণের প্রমাণ যেকোনো উপায়ে করা যেতে পারে। ‘অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার সমস্যা ও জাতীয় নিরাপত্তার জন্য বিপদ’ এমনটা চিন্তা করে তাদের নামমাত্র একটি ‘নিরাপত্তা পরীক্ষা’ করা হবে। এই যাচাইকরণটির জন্য আইডি কার্ডকে গ্রহণ করলেই হবে, আর নিরাপত্তা পরীক্ষার সর্বসাকুল্যে পরিচালনা করবে এসইএফ।

সাধারণত ইউক্রেনীয় নাগরিকরা পর্তুগালে কাজ করতে বাধা দেওয়া হয় না, তারপরেও যুদ্ধে মানসিকভাবে ভেঙেপড়া ইউক্রেনবাসীকে অভ্যর্থনা জানানোসহ চাকরির নিশ্চয়তা দেওয়া হবে। সেজন্য একটি কর্মসূচি তৈরি করাও হয়েছে যা দেশটির শ্রমমন্ত্রী আনা মেন্ডেস গডিনহো ইতিমধ্যে সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দিয়েছে।

এর সহজতর ব্যাখ্যা হিসেবে উল্লেখ করেন, ‘ইউক্রেনীয়রা আমাদের দেশে যেকোনোভাবে প্রবেশ করার মুহূর্ত থেকে নিয়মিত হওয়ার নিশ্চয়তা পাবে ও ‘স্বয়ংক্রিয়ভাবে’ ট্যাক্স ও সামাজিক নিরাপত্তা ব্যবহারকারী শনাক্তকরণ নম্বর পাবে।

আইইএফপি সে লক্ষ্যে কাজ করার জন্য একটি দ্রুত টাস্কফোর্স তৈরি করেছে যার মাধ্যমে একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে তা গত সোমবার চালু করা হয়েছিলো যেখানে পর্তুগিজ কোম্পানিগুলো ইউক্রেনীয় নাগরিকদের জন্য চাকরির অফার প্রকাশ করেছে প্ল্যাটফর্মটিতে। ইতিমধ্যেই ২ হাজারটিরও বেশি কর্মসংস্থানের সুযোগ নিশ্চিত করা হয়েছে।

তাছাড়াও দেশটির অন্যতম টেলিভিশন চ্যানেল ‘আরটিপি’তে প্রকাশিত এক খবরে দেখা যায়, পর্তুগাল সরকারের পক্ষ থেকে ইউক্রেনীয়দের বাসস্থান নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ১ হাজার ২৪৫ জনেরও বেশি শরণার্থীর থাকার ব্যবস্থা করে রাখা হয়েছে যা পরবর্তীকালে আরও বাড়ানো হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২২১৫ ঘণ্টা, মার্চ ০৫, ২০২২
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa