ঢাকা, রবিবার, ১ কার্তিক ১৪২৮, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

টেনিস

গ্যালারিতে দর্শকের আসনে রোবট!

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২৫ ঘণ্টা, মে ৬, ২০২০
গ্যালারিতে দর্শকের আসনে রোবট! গ্যালারিতে দর্শকের বদলে রোবট/ছবি: সংগৃহীত

করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে ক্রীড়াবিশ্ব থমকে আছে। তবে ক্রীড়া আসর পুনরায় শুরুর ব্যাপারে চেষ্টাও জারি আছে। কিন্তু এক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা আর স্বাস্থ্য নিরাপত্তা একটা বড় বাধা। ফলে এখনই মাঠে বসে খেলা উপভোগ করা সম্ভব নয়। কিন্তু তাওয়ান একটি বিকল্প ব্যবস্থা দেখালো, যা চমকে দিয়েছে গোটা বিশ্বকে।

বিশ্বের যেসব দেশ করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব সামলাতে সক্ষম হয়েছে তাইওয়ান তাদের একটি। দেশটির জীবনযাত্রাও প্রায় স্বাভাবিক হওয়ার পথে।

দেশটি খেলাধুলার আসর পুনরায় শুরুও করে দিয়েছে। তবে মাঠে চললেও তা গ্যালারিতে বসে উপভোগ করার জন্য দর্শক পাওয়া এখনই সম্ভব নয়। ফলে এক ম্যাচে সত্যিকারের দর্শকের বদলে গ্যালারির আসনগুলো ভরা হচ্ছে রোবট আর কার্ডবোর্ডে। দেশটির বেসবল লিগে এমন দৃশ্য দেখা গেছে।  

করোনার ঝুঁকি সামলে তাইওয়ানের বেসবল লিগ পুনরায় শুরু হয়েছে। দর্শকের আসনে রোবট আর কার্ডবোর্ড রাখার ব্যাপারটি মূলত পরিবর্তিত পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাওয়ানোর জন্যই করা হয়েছে। সেই সঙ্গে খেলোয়াড়দের লকার রুম স্যানিটাইজার দিয়ে জীবাণুমুক্ত করা হচ্ছে। এমনকি খেলোয়াড় ও কোচদের মধ্যে দূরত্ব বজায় রাখার ব্যাপারেও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

মাঠে খেলা হচ্ছে অথচ দর্শক নেই, ব্যাপারটা একটি অদ্ভুত দেখায়। এজন্য খেলার উপযোগী পরিবেশ তৈরির জন্য স্থানীয় একটি রোবট কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করেছে দেশটির স্থানীয় একটি বেসবল দল। এরপর মাঠে খেলা চলাকালীন এই রোবটগুলোকে গ্যালারিতে বসিয়ে রাখা হয়। আর বিজ্ঞাপনদাতা প্রতিষ্ঠানের সরবরাহ করা কার্ডবোর্ডগুলো রাখা হয় কিছু আসনে। এতে দূর থেকে দেখলে পুরো গ্যালারি দর্শকপূর্ণ বলেই মনে হয়।  

কিছু কার্ডবোর্ডে উৎসাহব্যঞ্জক ম্যাসেজ হিসেবে লেখা 'আমরা সবসময় তোমাদের সঙ্গে আছি'। এছাড়া ৫ সদস্যের রোবট ড্রামবাদক স্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে ক্রমাগত ড্রাম বাজিয়ে যাচ্ছে। লাইভ মিউজিকের জায়গায় এই ড্রাম বাজানো হলেও খেলোয়াড়দের উৎসাহ প্রদানে এটা বেশ কাজেও দিচ্ছে।

ম্যাচের আগে এক উপস্থাপকের কণ্ঠে শোনা যায়, 'পৃথিবীর বুকে একমাত্র সরাসরি ম্যাচে আপনাদের স্বাগতম।  

নকল দর্শক রাখার উদ্দেশ্য খেলোয়াড়দের 'একাকীত্ব' দূর করার জন্য হলেও ব্যাপারটা নিয়ে অনেকে সমালোচনাও করছে। কার্ডবোর্ড'র লেখা নিয়ে ওই ম্যাচের একটি দল রাকুতিন মাংকি'র এক খেলোয়াড় বলেন, 'শুরুতে এটা সবার কাছেই অদ্ভুত লাগছিল। কিন্তু এখন এটাকে আমরা অস্বাভাবিক বিজ্ঞাপনী প্রচারণার মাধ্যম হিসেবে দেখছি। '

তাইওয়ানে একসঙ্গে ১০০ জনের বেশি মানুষের জমায়েত না করার নির্দেশনা দিয়েছে সেখানকার স্বাস্থ্য বিভাগ। অন্য দশটা দেশের যেয়ে এখানকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও এখনও কোনো ঝুঁকি নিতে রাজি নয় দেশটির সরকার।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৫ ঘণ্টা, মে ০৬, ২০২০
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa