ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ কার্তিক ১৪২৮, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

তারার ফুল

কথায় কথায় মারিয়া

খায়রুল বাসার নির্ঝর, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৪৮ ঘণ্টা, জুন ১১, ২০১৪
কথায় কথায় মারিয়া মারিয়া, ছবি: রাজিন চৌধুরী

উপস্থাপিকা হিসেবেই পরিচিত মারিয়া নূর। চ্যানেল টোয়েন্টি ফোরে ‘আলটিমেট ওয়ার্ল্ড কাপ’ নামের একটি অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করছেন তিনি।

কাজ করছেন বিজ্ঞাপনে। কয়েকটি টিভি নাটকে অভিনয়ও করেছেন তিনি।

বিশ্বকাপ ফুটবলে মারিয়া কোন দলের সমর্থক? প্রশ্নটা শুনে বেশ কৌশলী হলেন তিনি। মারিয়া কথায় পটু। কথার ঘোড়া সর্বোচ্চ বেগে ছোটাতে ওস্তাদ তিনি। দ্রুত বেগে অনেক কথাই বলে গেলেন, কিন্তু কিছুতেই প্রশ্নটির সঠিক উত্তরের ধারে পাশে ঘেঁষলেন না। বললেন, ‘ফেসবুকে এ প্রশ্নটা এখন অনেকেই করছেন। আলটিমেট ওয়ার্ল্ড কাপ অনুষ্ঠানে প্রতিদিন ভিন্ন ভিন্ন দলের কথা বলছি, খেলোয়াড়দের কথা বলছি। আমার সমর্থন কোন দিকে- সেটা জানতে দর্শকদের তাই খুব আগ্রহ। কিন্তু সেটা বলে দিলে, অনেকে মন খারাপ করবেন। ’

মারিয়ার ফুটবলপ্রীতি কিন্তু প্রচন্ড। সেটা যে ফুটবল নিয়ে অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করছেন, সে কারণে নয়। আগে থেকেই ফুটবলের প্রতি মুহূর্তের খবর রাখেন তিনি। এ বিষয়ে তার পাগলামোটা অনেকের থেকে আলাদা। প্রিয় দলের কথা যখন তিনি বলবেনই না, তখন প্রিয় খেলোয়াড় নিয়ে তার পাগলামোটা শুনে আসা যাক।

মারিয়া বললেন, ‘খেলোয়াড় হিসেবে রোনালদোকে আমার খুব পছন্দ। একবার রোনালদো মাথার চুল ফেলে দিয়ে একেবারে টাক হয়ে গেলো। তখন সেটাই আমার কাছে লেটেস্ট স্টাইল! আমিও সিদ্ধান্ত নিলাম তার মতো টাক হয়ে যাবো। মাকে বলতেই সে কি বকা!’ মারিয়ার বাসায় সবাই ভিন্ন ভিন্ন দলের সমর্থক। সেটা নিয়ে তর্ক যেমন হয়, তেমনি মজাও হয় প্রচুর।

শুধু ফুটবল নয়; ক্রিকেটেও মারিয়ার আগ্রহ অনেক। গত আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সময় জিটিভিতে টি-২০ ক্রিকেট ব্লাস্ট’ নামে একটি অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করতেন তিনি।

মারিয়ার উপস্থাপনা জীবন শুরু এফএম রেডিওতে আরজে হিসেবে। ২০০৯ সালে শুরু করেছিলেন এবিসি রেডিওর মাধ্যমে। টানা চার বছর শুধু রেডিওতেই শোনা গেছে তার কণ্ঠ। ২০১২ সালের দিকে এসে মারিয়াকে দেখা গেল টিভি পর্দায়। চ্যানেল টোয়েন্টি ফোরের একটি লাইফ স্টাইল বিষয়ক অনুষ্ঠানে উপস্থাপনা শুরু করলেন। সেই থেকে চলছেই। এখন অবস্থা এমন হয়েছে, টিভি উপস্থাপনাটাই হয়ে গেছে ফুল টাইম; আর রেডিওটা পার্ট টাইম। আরজে থেকে এখন তিনি ভিজে। বললেন, ‘রেডিও চ্যানেলে কাজ করতে সময় দিতে হয় প্রচুর। এখন যেহেতু টিভিতে ব্যস্ততা বেড়েছে, তাই আগের মতো রেডিওতে অনুষ্ঠান করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। তবে রেডিওর প্রতি ভালবাসাটা আগের মতোই আছে। এখনো সময় পেলে রেডিওতে অনুষ্ঠান করি। ’

মারিয়া টিভি নাটকে অভিনয়ও করেছেন। মাবরুর রশীদ বান্নাহর ‘ইট ক্যান হ্যাপেন’, গোলাম মুক্তাদিরের ‘কবিতার নারী, অকবিতার নারী’ সহ বেশ কিছু নাটকে দেখা গেছে তাকে। তবে উপস্থাপনায় তার যতখানি আগ্রহ, অভিনয়ে ঠিক ততখানিই কম। কেন? এখানেও মারিয়ার সময়ের অজুহাত। বললেন, ‘অভিনয় করতে গেলে প্রচুর সময় যায়। যেহেতু রেডিও এবং টিভিতে শো থাকে, তাই ওই সময়টা বের করা আমার জন্য কঠিন। এছাড়া আমার মনে হয়, অভিনয়টা আমার জন্য নয়। আমার জন্য উপস্থাপনাই ঠিক আছে। ’

মারিয়া উপস্থাপনার পাশাপাশি মডেলিং করতে চান। বর্তমানে বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচারিত হচ্ছে ‘এখনই ডট কম’ নামের একটি বিজ্ঞাপন। মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর নির্দেশনায় এটিই মারিয়ার প্রথম বিজ্ঞাপন।

মারিয়া পড়াশোনা করেছেন ফ্যাশন ডিজাইনে। গত বছর শান্ত-মারিয়াম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স শেষ করেছেন। ডিগ্রি আরো একটা আছে। ঢাকা সিটি কলেজ থেকে হিসাব বিজ্ঞানে মাস্টার্স।

আগামীতে মারিয়া আরো নতুন রুপে আসছেন। হাতে আছে কয়েকটি বিজ্ঞাপন আর টিভি অনুষ্ঠান তো আছেই। মারিয়া বিশ্বাস করেন, উপস্থাপনা আর মডেলিং- এ দুই মাধ্যমেই তিনি গড়ে তুলতে পারবেন নিজের অবস্থান।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৫ ঘণ্টা, ১১ জুন, ১০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa