ঢাকা, শনিবার, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ জুলাই ২০২২, ০১ জিলহজ ১৪৪৩

পর্যটন

বৃষ্টিতেও পর্যটকদের ভিড় কমেনি বান্দরবানে

কৌশিক দাশ, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০২ ঘণ্টা, মে ৫, ২০২২
বৃষ্টিতেও পর্যটকদের ভিড় কমেনি বান্দরবানে সবখানেই পর্যটকদের ভিড়

বান্দরবান: করোনা মহামারির কঠিন ধাক্কা সামাল দিয়ে পর্যটন জেলা বান্দরবানে আবার ফিরে এসেছে প্রাণচাঞ্চল্য।

বৃহস্পতিবার (৫ মে) ভোর থেকেই বান্দরবানে পর্যটকের ভিড় বাড়তে শুরু করেছে।

বান্দরবানের প্রবেশমুখ বাসস্ট্যান্ড থেকে ট্রাফিক মোড় পর্যন্ত পর্যটকদের ভিড় রয়েছে আর এতে প্রচুর যানবাহনের কারণে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

পাহাড়, ঝিরি-ঝর্ণা, মেঘলার লেক, নজরকারা স্বর্ণমন্দির, নীলাচল, নীলগিরি, শৈলপ্রপাত, চিম্বুকসহ সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন পর্যটনকেন্দ্র ভ্রমণে ভোর থেকেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তের ভ্রমণ পিপাসুরা বৃষ্টি উপেক্ষা করে বান্দরবানে প্রবেশ করছেন। ভোর থেকে প্রচুর বৃষ্টি হচ্ছে, তবে ঈদের ছুটিতে বৃষ্টি উপেক্ষা করে পর্যটকরা বেড়াতে ছুটে যাচ্ছেন।

বান্দরবানে ঘুরতে আসা পর্যটক রনি ও মিলি বাংলানিউজকে বলেন, ঈদের টানা ছুটিতে বান্দরবান এসে খুব ভালো লাগছে। বৃষ্টি আর পাহাড় আমাদের একাকার করে দিচ্ছে, খুব উপভোগ করছি আমরা।

ঢাকা থেকে বেড়াতে আসা মো. রায়হান বাংলানিউজকে বলেন, ঈদের ১০ দিন আগে বান্দরবানের বাস ও হোটেলের রুম বুকিং করে এসেছি। ফলে ঝামেলা কম হয়েছে। যদি বুকিং না করে আসতাম, তাহলে কোনো কিছুই পেতাম না, সব দিকেই শুধু পর্যটকদের ভিড়।

রাজশাহী থেকে বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলার দেবতাকুম দেখতে আসা মো. জহির বাংলানিউজকে বলেন, বান্দরবান খুবই সুন্দর একটি এলাকা। প্রায় আসব চিন্তা করি, কিন্তু দীর্ঘ এ ছুটিতে এবার চলে এলাম, খুবই আনন্দ করছি।

বান্দরবানের মাইক্রোবাস-জিপ-পিকআপভ্যান-মাহিন্দ্র মালিক সমিতির লাইন পরিচালক মো. ফখরুল বাংলানিউজকে বলেন, ভোর থেকে আমাদের প্রায় তিনশ’ ট্যুরিস্ট গাড়ি (চাঁদের গাড়ি) বান্দরবান সদর থেকে থানচি, চিম্বুক, বগালেক, দেবতাকুমসহ জেলার বিভিন্ন পর্যটনকেন্দ্রে চলে গেছে।  

তিনি আরও বলেন, ভোর থেকে প্রবল বৃষ্টি হলেও বান্দরবানে প্রচুর পর্যটক এসেছেন।

বান্দরবানের আবাসিক হোটেল হিলটনের ম্যানেজার মো. আক্কাস বাংলানিউজকে বলেন, আমাদের হোটেলের সব রুমই ৫,৬,৭ মে পুরোপুরি বুকিং হয়ে গেছে। তারপরও অসংখ্য পর্যটক সকাল থেকে রুম নেওয়ায় জন্য হোটেলে আসছেন।

এদিকে ঈদের বন্ধের পর সকাল থেকেই বান্দরবানের বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট ও খাবার হোটেল ধীরে ধীরে খুলছে আর পর্যটকরা যেটি খুলছে সেখানে গিয়েই ভিড় করছেন।  

বান্দরবানের হোটেল হিলভিউ রেস্টুরেন্টের ম্যানেজার দীপক দাশ বাংলানিউজকে বলেন, ভোর থেকেই বান্দরবানে বৃষ্টি উপেক্ষা করে প্রচুর পর্যটক আসছেন আর তাদের সেবা দিয়ে উন্নতমানের খাবার বিক্রি করার চেষ্টা করছি আমরা।

বান্দরবানের আবাসিক হোটেল-মোটল মালিক সমিতির সভাপতি অমল কান্তি দাশ বাংলানিউজকে জানান, দীর্ঘদিন পর করোনার প্রকোপ কম থাকায় বান্দরবানে প্রচুর পর্যটক এসেছেন আর হোটেল ব্যবসায়ীরা কয়েকদিন ভালো আয় করতে পারবে আশা রাখছি। তিনি আরো বলেন, আমরা প্রতিটি আবাসিক হোটেল-মোটেল কর্তৃপক্ষকে পর্যটকদের উন্নতমানের সেবা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য নির্দেশনা দিয়েছি। আশা করি, পর্যটকেরা বান্দরবানে ভ্রমণ করে আনন্দ পাবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫৬ ঘণ্টা, মে ৫, ২০২২
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa