ঢাকা, শনিবার, ১ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বাণিজ্যমেলা

ছুটির দিনে জমে উঠেছে বাণিজ্যমেলা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭২৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৯
ছুটির দিনে জমে উঠেছে বাণিজ্যমেলা শুক্রবার বাণিজ্যমেলায় ক্রেতা-দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভিড় | ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় সকাল থেকেই মেলা প্রাঙ্গণে ক্রেতা-দর্শনার্থীর ভিড়। প্রতিটি কাউন্টারের সামনে ছিলো দীর্ঘ লাইন। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে দর্শনার্থীর সংখ্যা। দুপুরের আগেই কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে ওঠে মেলা প্রাঙ্গণ। একই সঙ্গে চলছে কেনাকাটার ধুম। 

শুক্রবার (১ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে এ চিত্র দেখা যায়।

এদিন মেলার মূল ফটক খোলার আগেই অনেকে লাইনে দাঁড়িয়ে পড়েন।

বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে ক্রেতা-দর্শনার্থীর সংখ্যা। দুপুরের আগেই আগত দর্শনার্থীদের ভিড়ে জনস্রোতে রূপ নেয় পুরো মেলা প্রাঙ্গণ।

ক্রেতার আগমনে খুশি স্টল কতৃর্পক্ষ। লোভণীয় খাবার আর হরেক রকমের পণ্যের পসরা সাজিয়েছে বসেছেন তারা। সঙ্গে রয়েছে ছাড় আর অফার।
বিক্রেতারা বলছেন, মেলার শেষ দিকে মেগা অফার থাকায় ক্রমেই বাড়ছে ক্রেতা। প্রতিবছর এমনটাই হয়ে থাকে।  

অন্যদিকে ক্রেতারা বলছেন, নানা কারণে রাজধানীবাসী ব্যস্ত থাকায় শেষ দিকেই তারা মেলায় আসেন। কেনাকাটার জন্য এ সময়টাকেই তারা বেছে নেন।

শুক্রবার প্রায় প্রতিটি স্টলেই ভিড় দেখা গেছে। সবচেয়ে বেশি ভিড় ছিলো কসমেটিক্স সামগ্রীর স্টলে। তাছাড়া দর্শনার্থী চোখে পড়ার মতো ছিলো ফার্নিচার, জুয়েলারি, ইলেকট্রনিক্স ও ক্রোকারিজ স্টলে।

আরিশা নামে এক দর্শনার্থী পরিবারের সঙ্গে মোহাম্মদপুর থেকে মেলায় এসেছেন। তিনি বলেন, নানা কারণে আমার মেলায় আসা হয়নি, আবার পরিবারও সময় দিতে পারেনি। আজ আব্বু-আম্মুর সঙ্গে এসেছি কেনাকাটা করতে।  

কিছু কেনা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে আরিশা বলেন, দেশি-বিদেশি কসমেটিকস দেখছি। আসলে মেলায় অনেক পণ্য আছে তাই যাচাই করে পণ্য কিনবো।

শফিউল্লাহ নামে অপর দর্শনার্থী বলেন, আজ মূলত ফার্নিচার কিনতে মেলায় আসা। পছন্দের আসবাব কেনা হয়েছে। তারা আজকের মধ্যেই আমার বাসায় পৌঁছে দেবে।

কসমেটিকস বিক্রেতা আহমেদ হোসেন বলেন, আজ সাপ্তাহিক বন্ধ হওয়ায় মেলার গেট খোলার সঙ্গে সঙ্গেই বিক্রি শুরু হয়েছে। তাছাড়া এখন একটু বেশি ছাড় থাকা আর শেষ দিকে হওয়ায় ক্রেতা বেশি আসছে। প্রতি বছরই শেষ সময়ে বিক্রি বেশি হয়।

গত ৯ জানুয়ারি বিকেলে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে আয়োজিত ২৪তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার উদ্বোধন করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) তথ্য অনুযায়ী, মাসব্যাপী এ মেলা আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি পর্দা নামবে। মেলার গেট ও বিভিন্ন স্টল প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। প্রাপ্ত বয়স্কদের প্রবেশের জন্য টিকিটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০ টাকা এবং অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ২০ টাকা। এবারই প্রথম মেলার টিকিট অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে।

মেলায় প্যাভিলিয়ন, মিনি-প্যাভিলিয়ন, রেস্তোরাঁ ও স্টলের মোট সংখ্যা ৬০৫টি। এর মধ্যে রয়েছে প্যাভিলিয়ন ১১০টি, মিনি-প্যাভিলিয়ন ৮৩টি ও রেস্তোরাঁসহ অন্যান্য স্টল ৪১২টি।

এবার বাংলাদেশ ছাড়াও ২৫টি দেশের ৫২টি প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নিচ্ছে। দেশগুলো হলো থাইল্যান্ড, ইরান, তুরস্ক, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, নেপাল, চীন, মালয়েশিয়া, ভিয়েতনাম, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, পাকিস্তান, হংকং, সিঙ্গাপুর, মরিশাস, দক্ষিণ কোরিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, জার্মানি, সুইজারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও জাপান।

বাংলাদেশ সময়: ১২১৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৮
ইএআর/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa