ঢাকা, শুক্রবার, ১৩ কার্তিক ১৪২৮, ২৯ অক্টোবর ২০২১, ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

কৃষি

লিচুর বাগান নিয়ে চিন্তিত চাষিরা

জয়ন্ত জোয়ার্দ্দার, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৫৪ ঘণ্টা, মে ৮, ২০২১
লিচুর বাগান নিয়ে চিন্তিত চাষিরা

মাগুরা: সারাদেশে মাগুরা জেলার লিচুর বিশেষ চাহিদা রয়েছে। কিন্তু এ বছর গ্রীষ্মের শুরু থেকে অসহনীয় তাপমাত্রার কারণে লিচু বাগান নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন চাষিরা।

মাগুরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানায়, এ বছর জেলায় ৫৮৮ হেক্টর জমিতে লিচু চাষ করা হচ্ছে। কিন্তু গত ১৫ দিনের অব্যাহত তাপদাহ স্বাভাবিক উৎপাদনের বিষয়ে শঙ্কা সৃষ্টি করেছে। অধিকাংশ সময় ৩৮-৪১ ডিগ্রি পর্যন্ত তাপমাত্রা ওঠানামা করছে। এতে লিচুর স্বাভাবিক রঙ হারানোর পাশাপাশি স্বাভাবিক বৃদ্ধিও ব্যহত হচ্ছে।

এদিকে কৃষকদের দাবি, এ অবস্থায় কোনো ব্যাপারী আগ্রহী হচ্ছে না বাগান লিজ নিতে।

মাগুরা সদরের ইছাখাদা গ্রামের লিচু চাষি রোমিজ শেখ বাংলানিউজকে বলেন, এ বছর ৮০ শতাংশ জমিতে লিচু চাষ করেছি। বৃষ্টির অভাবে লিচু বেড়ে উঠতে পারছে না এবং এর অস্বাভাবিক রঙ দেখে আমি হতাশ। অন্য বছর লিচু থেকে কয়েক লাখ টাকা আয় হলেও এবার বড় একটা ক্ষতির সম্মুখীন হবো বলে মনে হচ্ছে।

আরেক কৃষক আক্কাস আলী বাংলানিউজকে বলেন, করোনার কারণে গত বছর লাভের মুখ দেখিনি। এ বছর আবহাওয়ার জন্য লিচু বাগান কিনতে কোনো ব্যাপারী আগ্রহ দেখাচ্ছে না।  

শিবরামপুর গ্রামের লিচু চাষি সরোয়ার হোসেন বলেন, অন্যবার এপ্রিল মাসের মধ্যেই আমাদের বাগানের লিচু কিনে ফেলে ব্যাপারিরা। এবার এখন পর্যন্ত কেউ আগ্রহ দেখায়নি। আমি আমার ২ বিঘা জমিতে লিচু চাষ করেছি প্রায় দুই লাখ টাকা ব্যয়ে। এর সঙ্গে চলছে করোনা। জানিনা এরপর থেকে আর লিচু চাষ করবো কিনা। আশাকরি সরকার আমাদের পাশে দাঁড়াবে।

মাগুরা সদর উপজেলা কৃষি অফিসার আবু তালহা বাংলানিউজকে জানান, অব্যাহত খরার কারণে লিচু নিয়ে কৃষকেরা শঙ্কার মধ্যে রয়েছে। তবে দু-একদিনের মধ্যে বৃষ্টি হলে পরস্থিতির উন্নতি হবে। আর সরকারি প্রণোদনা আমাদের হাতে নয়। তবে কর্তৃপক্ষের কাছে আমরা লিখিত সুপারিশ করবো।

 

বাংলাদেশ সময়: ১৬১৯ ঘণ্টা, মে ০৮, ২০২১
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa