ঢাকা, মঙ্গলবার, ১২ মাঘ ১৪২৭, ২৬ জানুয়ারি ২০২১, ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

বইমেলা

বইমেলায় শাখাওয়াৎ নয়নের ‘নিয়তিপাড়ে গলে যাওয়া ডিমগুলি’

শিল্প সাহিত্য ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০০০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৪
বইমেলায় শাখাওয়াৎ নয়নের ‘নিয়তিপাড়ে গলে যাওয়া ডিমগুলি’

ঢাকা: লেখালেখি করার ক্ষেত্রে একটি পরিবর্তনের প্রত্যাশা থাকে। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে সেই প্রত্যাশা পূরণ অধরাই থেকে যায়।

প্রতিটি মানুষের নিজের জীবনে সাফল্যও সমানভাবে ধরা দেয় না। অনেকের ক্ষেত্রেই তা থেকে যায় অধরা। আর জীবনের একটি পর্যায়ে বিষয়গুলোকে নিয়তি হিসেবেই মেনে নিতে হয় মানুষকে। এই নিয়তির পাড়েই সুফলের প্রতীক ডিমগুলো কারো ফুটে বাচ্চা বের হয়, কারো ডিমগুলো গলে যায়। সেই জন্যই আমার বইটির নাম ‘নিয়তিরপাড়ে গলে যাওয়া ডিমগুলি’।

সুদূর অস্ট্রেলিয়া থেকে বাংলানিউজের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলছিলেন শাখাওয়াৎ নয়ন। সমাজ বিজ্ঞানের এই ছাত্র এখন সেখানে পিএইচডি গবেষণা করছেন পাবলিক হেলথ বিষয়ে। তবে তার লেখালেখির মূল বিষয় সমাজ-রাজনীতি-শিক্ষা-সংস্কৃতি। এ পর্যন্ত তার লেখা ২৩০টি নিবন্ধ বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত হয়েছে। এই নিবন্ধগুলোর মধ্যে থেকে ৩৯টি বাছাই করে একটি সংকলন এবারের বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে ‘নিয়তিপাড়ে গলে যাওয়া ডিমগুলি’ নামে।

শাখাওয়াৎ নয়ন বললেন, পরিবর্তনের যে প্রত্যাশা নিয়ে আমরা কলাম লিখি তার খুব সামান্যই পূরণ হয়। তাই বলে লেখালেখি বন্ধ করা যায় না। নতুন করে লেখা যেমন প্রয়োজন তেমনি পুরোনো যে কথাগুলো বলেছি সেগুলোও নতুন করে বলা প্রয়োজন। কারণ সেসব প্রত্যাশা পূরণ হয়নি। আর আবেদন হারিয়ে যায়নি ওইসব লেখার। আর সে কারণেই এই সংকলন প্রকাশ।

শাখাওয়াৎ নয়নের প্রথম বইটি একটি গল্প সমগ্র ‘ব্যাপ্টিস্ট চার্চ এবং একটি টিকটিকির গল্প’। এরপর প্রকাশিত হয় উপন্যাস ‘অদ্ভুত আঁধার এক’। এবারে প্রকাশিত হলো নিবন্ধ গ্রন্থ।

পিএইচডি শেষ হতে আর দুই মাস বাকি। হয়তো বড় কোনো কাজও পেয়ে যাবেন। কিন্তু শাখাওয়াৎ নয়নের জীবনের লক্ষ্য লেখক হওয়া। বললেন, জীবনে যদি একজন তুচ্ছ লেখকও হতে পারি সেটাই হবে সবচেয়ে বড় পাওয়া।

সেই প্রয়াসের অংশ হিসেবেই প্রকাশিত হলো ‘নিয়তিপাড়ে গলে যাওয়া ডিমগুলি’। প্রচ্ছদ এঁকেছেন শিল্পী মাহবুবুল হক। প্রকাশক কথা প্রকাশ।

বাংলাদেশ সময় ১০৪৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa