ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

ক্রিকেট

মোস্তাফিজের এখন আইপিএল খেলে শেখার কিছু নেই: জালাল ইউনুস

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৩০ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৭, ২০২৪
মোস্তাফিজের এখন আইপিএল খেলে শেখার কিছু নেই: জালাল ইউনুস

এবারের আইপিএলটা বেশ ভালোই কাটছে মোস্তাফিজুর রহমানের। যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা করাতে দেশে আসায় মাঝে একটি ম্যাচ খেলতে পারেননি।

তবুও সর্বোচ্চ উইকেটসংগ্রাহকের দৌড়ে টিকে আছেন মোস্তাফিজ। চেন্নাই সুপার কিংসের একাদশেও জায়গা মিলছে নিয়মিত।  

যদিও আর খুব বেশি দিন আইপিএল খেলা হচ্ছে না মোস্তাফিজের। আগামী পহেলা মে তাকে দেওয়া বিসিবির অনাপত্তিপত্রের মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে। ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ে সিরিজের আগেই দেশে ফিরতে হবে মোস্তাফিজকে। বিসিবির এমন সিদ্ধান্তের সমালোচনা হচ্ছে অনেক।  

বোর্ড থেকে বলা হচ্ছে বিশ্বকাপ প্রস্তুতির কথা। তবে কেউ কেউ বলছেন, জিম্বাবুয়ে সিরিজের চেয়ে আইপিএল খেলেই ভালো প্রস্তুতি নিতে পারতেন মোস্তাফিজ। বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ফ্র্যাঞ্চাইজ টুর্নামেন্টে শিখতেও পারতেন তিনি। এমন কথার সঙ্গে অবশ্য একমত নন বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

বুধবার মিরপুরে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘মোস্তাফিজের এখন আইপিএলে খেলে শেখার কিছু নেই। মোস্তাফিজের লার্নিং প্রসেস ইজ ওভার। বরং মোস্তাফিজের থেকে শিখতে পারে আইপিএলের অনেক খেলোয়াড়রা। এতে বাংলাদেশের কোনো লাভ হবে না। মোস্তাফিজকে পেয়ে অন্যদের লাভ হবে। আইপিএল খেলাটা আপনাদের কাছে মনে হয় ৪ ওভারের খেলা। কিন্তু কত ধকল নিতে হয় আপনারা হয়তো জানেন না। রাতের বেলা কিন্তু তাদের ট্রাভেল করতে হয়। খেলা শেষে রাতের বেলা ১টায় বিমানবন্দরে গিয়ে ঘুমিয়ে তাদের ট্রাভেল করতে হয়। এটায় অনেক কষ্ট। ’

‘আমাদের চিন্তা হচ্ছে মোস্তাফিজের স্বাস্থ্য। তার ফিটনেস। তারা চাইবে ওর থেকে ১০০ ভাগ নেওয়ার জন্য। তার ফিটনেসের দিকে কিন্তু ওদের কোনো মাথা ব্যথা নেই। আমাদের আছে। তাকে ফেরানোর কারণ কিন্তু শুধু জিম্বাবুয়ে সিরিজে খেলানোর জন্য না। তাকে ওয়ার্কলোড দিয়ে আমরা খেলাব। এখানে আনলে তাকে ওয়ার্কলোড দিয়ে পরিকল্পনা দেব। আইপিএলে কিন্তু ওই পরিকল্পনা হবে না। সুতরাং মোস্তাফিজের লার্নিং প্রসেস ওভার। আর শেখার কিছু নেই। সাত আট বছর ধরে ক্রিকেট খেলে আইপিএল। লাভবান তারা হবে আমরা হবো না। ’

এ বছরের জুনে যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে বসবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এবারের আসর। এর আগে মে মাসে ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। পরে স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষেও রয়েছে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এগুলোতে দলের সঙ্গে মোস্তাফিজকে রেখে বোঝাপড়া বাড়াতে চায় বিসিবি।

জালাল ইউনুস বলেন, ‘মোস্তাফিজের বিষয়টা আমরা বোর্ড ডিল করি। আপনারাও বুঝতে পারছেন। মোস্তাফিজকে প্রয়োজন কিন্তু…জাতীয় দলের স্বার্থ কিন্তু প্রথমে। আপনারা জানেন, ২০২১ সালে দুজন খেলোয়াড় আইপিএল খেলে কিন্তু বিশ্বকাপে যোগ দিয়েছিল। ওখানে তারা খুব ক্লান্ত ছিল। তারাও বলেছে তারা ক্লান্ত। আমরা ওরকম কোনো পরিস্থিতি তৈরি করতে চাই না। ’

‘মোস্তাফিজকে দেশে ফিরে আনার মানেই যে জিম্বাবুয়ে সিরিজে খেলাব তা না। তাকে আমরা ওয়ার্কলোড দেব, চাপ কমাব। দলের সঙ্গে থাকবে। বোঝাপড়া থাকবে। একটা বিশ্বকাপ। একটা বড় ইভেন্টে যাচ্ছে। ইভেন্টে গিয়ে যেন খেলোয়াড়দের সঙ্গে একসঙ্গে থাকতে পারে। মে মাসেই কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তিনটা টি-টোয়েন্টি শুরু হয়ে যাবে। তাকে তো ওখানে মানিয়ে নিতে হবে নিজের সঙ্গে। যাওয়ার আগে হি হ্যাজ টু বি ফিজিক্যালি ফিট। ক্লান্ত হয়ে গেলে তো সে ডেলিভার করতে পারবে না। আমার কি দরকার। আমার দরকার ফ্রেশ মোস্তাফিজ। এক্সজটেড মোস্তাফিজ চাই না। ’

বাংলাদেশ সময় :
এমএইচবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।