ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ মাঘ ১৪২৮, ২৮ জানুয়ারি ২০২২, ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ক্রিকেট

বাকি ৪ দিনের সুযোগ কাজে লাগাতে চায় বাংলাদেশ

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮১১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৪, ২০২১
বাকি ৪ দিনের সুযোগ কাজে লাগাতে চায় বাংলাদেশ ছবি: শোয়েব মিথুন

এবাদত হোসেনের শুরুটা ছিল দারুণ। উইকেটে বেশ সুইং করিয়েছেন।

তার বোলিং দেখে মনে হচ্ছিল বিপদে পড়তে পারে পাকিস্তান। তবে এবাদত ও খালেদ আহমেদদের ঠিকই সামলে নিয়েছেন দুই পাকিস্তানি ওপেনার।

দ্বিতীয় সেশন তথা চা পানের বিরতির পর আলো স্বল্পতায় মাঠে আর একটি বলও গড়ায়নি। মাঠের আম্পায়াররা বিকেল ৪টা ০৬ মিনিটে ভেন্যু পরিদর্শন শেষে দিনের খেলা শেষ ঘোষণা করেন।

এর আগে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ এর প্রভাবে সকাল থেকেই ঢাকার আকাশ ছিল মেঘলা। ম্যাচ শুরুর পর থেকেই ফ্লাডলাইটের আলোয় খেলা গড়ায়। মধ্যাহ্ন বিরতির পর বৃষ্টির কারণে কিছুক্ষণ খেলা বন্ধ থাকে।

শনিবার (০৪ ডিসেম্বর) মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয়টিতে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামে পাকিস্তান। যেখানে প্রথম দিন শেষে ৫৭ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১৬১ রানের সংগ্রহ পায় দলটি।

বাংলাদেশের বোলিংয়ে দুটি উইকেটই নেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। তবে এই কন্ডিশনে বাকি ৪ দিনে বাংলাদেশের পেসাররা সুবিধা পাবে বলে আশা করেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

প্রথম দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে আসা মিরাজের কাছে জানতে চাওয়া হয়, শুরুতে পেসারদের উইকেট না পাওয়া নিয়ে।

জবাবে মিরাজ বলেন, ‘টেস্টে শুরুতে উইকেট নেয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ, আর উইকেট না পড়লে রান আটকে রাখাও গুরুত্বপূর্ণ। যেটা আসলে আমাদের প্রথম থেকে হচ্ছিল না। প্রথম সেশনে আমরা যেমন বল করেছি বিশেষ করে স্পিনাররা, আর এবাদত যেভাবে বল করেছিল অনেকটা উইকেট টেকিংয়ের মতোই হয়েছিল। আমি মনে করি যে আমরা খুব বেশি ভালো অবস্থানে না থাকলেও মোটামুটি একটা জায়গায় এসেছি। দ্বিতীয় সেশনে যদি আমরা আরো কিছু উইকেট নিতে পারতাম তাহলে আমাদের জন্য আরো সহজ হতো। এই আবহাওয়াটা যদি কাজে লাগাতে পারতাম আরো দুটা উইকেট পেতে পারতাম তাহলে আমাদের জন্য ভালো হতো। ওদের দুইটা উইকেট পড়েছে, ওদের ব্যাটাররা আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেছে। আমাদের ভালো বলগুলো ম্যানেজ করে বাউন্ডারি নিয়েছে। কিন্তু এখনও অনেক সময় বাকি, মাত্র দুটা সেশন হয়েছে। চারদিন বাকি আছে, এখনও অনেক সিনারিও বাকি আছে। ’ 

বাংলাদেশের পেসারদের শারীরিক শক্তিতে উইকেট নেয়া কতটা কার্যকর বা স্পিনারদের ভেরিয়েশন কতটা জরুরি, এমন প্রশ্নে মিরাজ বলেন, ‘টেস্ট ক্রিকেটে ভেরিয়েশনের চেয়ে লাইন লেন্থ গুরুত্বপূর্ণ বেশি। এটা তখনই কাজে লাগবে যদি লাইন লেন্থ ভালো জায়গায় থাকে। ওয়ানডে টি-টোয়েন্টিতে ভেরিয়েশন খুব কাজে লাগে কারণ ওখানে অনেক রকম বল করতে হয়, টেস্ট ক্রিকেটে কিন্তু একই রকম বল করতে হয়। এখানে বিভিন্ন রকম বল করলে রান হয়ে যায়। এখানে একই জায়গায় টানা বল করে উইকেট নিতে হয়। এখানে দুই-তিন ওভারেই উইকেট পড়বে এটা ভাবা যায় না। টেস্ট ক্রিকেটে একজন বোলারকে সেট হতে হয়। ভেরিয়েশন প্রত্যেক ওভারে ওভারে এটা টেস্ট ক্রিকেটে হয় না। বোলার হিসেবে আমি পাঁচ-সাত ওভার বল করার পর একটা ভেরিয়েশন বল করতে পারি ওটাতে উইকেট নাও পরতে পারে। ভেরিয়েশন এভাবেই হয়। পরিবর্তন করতে থাকলে বিপক্ষ ব্যাটসম্যানের ওপর চাপ তৈরি হয়না। তখন সাফল্য আসার সুযোগটাও কম থাকে। ’

বাংলাদেশ সময়: ১৮১০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৪, ২০২১
এমএমএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa