ঢাকা, শনিবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৮ মে ২০২২, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় এলে মাথাপিছু ৫৭০০ রুপি দেবে কংগ্রেস

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০০৯ ঘণ্টা, মার্চ ২২, ২০২১
পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় এলে মাথাপিছু ৫৭০০ রুপি দেবে কংগ্রেস পশ্চিমবঙ্গে ইশতেহার প্রকাশ করেছে কংগ্রেস

কলকাতা: ‘এবার আর ভুল নয়, আর কোনো ফুল নয়’ এমনই বার্তা দিয়ে সোমবার (২২ মার্চ) কলকাতার প্রদেশ কংগ্রেসের দপ্তর থেকে কংগ্রেসের ইশতেহার প্রকাশ করলেন রাজ্য সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। শুধু বার্তা নয় কংগ্রেসের ইশতেহারের প্রথম প্রচ্ছদে এমন স্লোগান জায়গা পেয়েছে।

ইশতেহার প্রকাশের সময় ঘোষণা দেওয়া হয়, পশ্চিমবঙ্গে বাম-কংগ্রেস-সেকুলার ফ্রন্ট অর্থাৎ সংযুক্ত মোর্চা ক্ষমতায় এলে মাথাপিছু ৫৭০০ রুপি করে দেবে কংগ্রেস।

কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিজেপির পদ্মফুল এবং তৃণমূলের জোড়া ফুল আসলে মুদ্রার এপিঠ আর ওপিঠ।  

এর কারণ হিসেবে অধীর রঞ্জন চৌধুরী বলেন, পশ্চিমবঙ্গে কংগ্রেসের শাসনকালে এবং বাম সরকারের ৩৪ বছরে একটা গ্রামও দখল করতে পারেনি বিজেপি। কিন্তু দিদির (মমতা) ১০ বছরের শাসনকালের রাজ্যে বিজেপি শুধু বিস্তার লাভ করেনি লোকসভায় ১৮টা আসন পেয়ে একটা অস্থির বাতাবরন তৈরি করেছে।

‘এবারের বিধানসভা নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি দলবদলের হিড়িক দেখা গেছে তৃণমূল কংগ্রেসে। দলত্যাগীরা সরাসরি বিজেপিতে যোগদান করেছে। এ থেকেই বোঝা যায় তলায় তলায় মোদি-মমতা নিজেদের মধ্যে একটা সেটিং করে নিয়েছে রাজ্যটাকে বেঁচে দেওয়ার জন্য। বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলো দেখুন কি অবস্থা। ওরা পশ্চিমবঙ্গকে বিহার, উত্তরপ্রদেশ বানিয়ে ছাড়বে। এ কারণেই আমরা বলছি বিজেপি এবং তৃণমূল আদতে একটাই দল। যার নাম ‘বিজেমূল’। তাই তাদের ভোট দেওয়া মানেই রাজ্যে সাম্প্রদায়িকতা বাড়বে, মহিলা নিরাপত্তা কমবে, বেকার বাড়বে। আরও তলানিতে ঠেলে দেবে পশ্চিমবঙ্গকে। ’

অধীর রঞ্জন চৌধুরী আরও বলেন, পশ্চিম বাংলার রূপকার ড. বিধান চন্দ্র রায়ের অনুপ্রেরণায় আমরা আমাদের ইশতেহারে ৮টি বিষয়ে সবথেকে বেশি জোর দিয়েছি। আইনের শাসন ও মহিলা নিরাপত্তা, সামাজিক সুরক্ষার, শিল্প প্রসার ও কর্মসংস্থান বৃদ্ধি, অন্নদাতা কৃষকদের উন্নয়ন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের গুণগতমান উন্নয়ন, শুদ্ধ জল এবং পরিবেশ রক্ষার উন্নয়ন, শিক্ষা-সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য রক্ষা, দান খয়রাতির রাজনীতি নয় ও দীর্ঘস্থায়ী উন্নয়নের মত বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। ক্ষমতায় এলে এগুলো মেনেই চলবে কংগ্রেস জোট সংযুক্ত মোর্চা।

এরপর মমতাকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, দিদির শাসনকালে ১০ বছরে আর্থিকভাবে ভারতের অন্যান্য রাজ্য থেকে পিছিয়ে পড়েছে পশ্চিমবঙ্গ। রাজ্যে মাথাপিছু আয় ২২টি রাজ্যের নিচে। আবার যদি আপনি (মমতা) ক্ষমতায় আসেন রাজ্যে দুর্ভিক্ষ শুরু যাবে। এক সময় দুর্ভিক্ষ দেখেছিল পশ্চিমবঙ্গ। ডক্টর বিধানচন্দ্র রায় রাজ্যের দায়িত্ব নেওয়ার পর আজ দুর্ভিক্ষ শব্দটা রাজ্য থেকে মুছে গেছে। আপনি (মমতা) আবার সেখানেই আনতে চান।

এরপর মোদীকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, ভারতের একাধিক রাজ্যে আপনারা ক্ষমতায় আছেন কেন সেগুলো সোনার হয়নি। আপনি তো দেশের সর্বোচ্চ ক্ষমতায়। আপনার ওপর কে আছে কেন তাহলে দেশের এই অবস্থা। আর এক বাংলা রাজ্য ত্রিপুরায় তো আপনারা। কি উন্নতি হয়েছে সেখানে।  

এদিন তিনি একের পর এক প্রশ্নবাণে বিঁধতে থাকেন মোদী-মমতাকে।

এরপর তিনি বলেন, আমরা ২০১৯ সালেও বলেছি, এখনো বলছি। পশ্চিমবঙ্গে বাম-কংগ্রেস-সেকুলার ফ্রন্ট অর্থাৎ সংযুক্ত মোর্চা ক্ষমতায় এলে মাথাপিছু ৫৭০০ রুপি করে দেবে কংগ্রেস। যেসব আমরা ঝাড়খন্ডে শুরু করেছি। ক্ষমতায় এলে এখানেও করবো।

বাংলাদেশ সময়: ২০০৮ ঘণ্টা, মার্চ ২২, ২০২১
ভিএস/এইচএডি/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa