ঢাকা, শুক্রবার, ১৩ মাঘ ১৪২৯, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ০৪ রজব ১৪৪৪

বিনোদন

সাহসী দৃশ্যের চিত্রনাট্য দেখেই ‘না’ বাঙালি অভিনেত্রীর

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮১৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৪, ২০২২
সাহসী দৃশ্যের চিত্রনাট্য দেখেই ‘না’ বাঙালি অভিনেত্রীর ঈশিতা দত্ত

‘এক ঘর বানাউঙ্গা’, ‘বেপানাহ প্যায়ার’র মতো বেশ কয়েকটি হিন্দি ধারাবাহিকে নজর কেড়েছেন বাঙালি অভিনেত্রী ঈশিতা দত্ত। তবে সাহসী দৃশ্যে অস্বস্তি বোধ করেন।

তাই সুযোগ পেলেও ওটিটিতে কাজ করেননি টেলিভিশনের এই জনপ্রিয় মুখ।

অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্তের বোন হিসাবে অনেকেই তাকে চেনেন। সব কিছুকে ছাপিয়ে গিয়েছে ‘দৃশ্যম’ খ্যাতি তার। এই ফ্র্যাঞ্চাইজিতে অজয় দেবগনের মেয়ে অঞ্জু সালগাঁওকারের চরিত্রে তাকে দেখা গেছে। ২০১৫ সালে ‘দৃশ্যম’ সিনেমা দিয়েই প্রথম বড় পর্দায় পা রাখেন ঈশিতা।  

এর সাত বছর পর ২০২২ সালের নভেম্বরে ‘দৃশ্যম ২’ মুক্তি পায়। চূড়ান্ত সফল এই সিনেমা দর্শকের মন ছুঁয়েছে। কিন্তু বাঙালি অভিনেত্রীকে নিয়ে এবারও তেমন চর্চা হয়নি। সিনেমার সাফল্যে তার ব্যক্তিগত আক্ষেপ চাপা পড়ে যেতে দেখা যায়।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে ঈশিতা বলেন, যখন জানতে পারি ‘দৃশ্যম ২’ নির্মাণ করা হবে, তখন থেকেই চিন্তা হচ্ছিল। সাত বছর পর সিনেমাটিকে ঘিরে মানুষের কেমন প্রতিক্রিয়া হবে, এ নিয়ে একটু উদ্বিগ্ন ছিলাম। এক বছর ধরে আমরা এই সিনেমাটি নিয়ে কাজ করেছি। অবশেষে পর্দায় এসেছে। ‘দৃশ্যম ২’ ঘিরে মানুষের একই রকম উন্মাদনা দেখে খুবই ভালো লাগছে। ‘দৃশ্যম’র মতো বড় প্রকল্পের অংশ হতে পারাই আমার আনন্দ।

সিনেমার চরিত্রে যেমন পরিবার রক্ষায় তৎপর হতে দেখা যায় ঈশিতাকে, জানালেন বাস্তবেও তিনি কাছের মানুষের জন্য একই রকম ভাবেন। অভিনেত্রীর কথায়, আমার জন্য আমার পরিবার আর বন্ধুরাই সব। ক্যারিয়ারের গুরুত্ব আমার কাছে অনেক, কিন্তু তার জন্য পরিবারকে বঞ্চিত করব না। কারণ, কাজ আমার জীবনের অংশ মাত্র, আমার জীবন নয়।

যদিও ‘দৃশ্যম’ তার ভাগ্যের চাকা সেভাবে ঘোরাতে পারেনি। ঈশিতা জানান, অনেকেই তাকে ‘দৃশ্যম’-এ কাজ করতে বারণ করেছিলেন। কারণ তিনি এর নায়িকা নন।

কিন্তু ঈশিতার কথায়, অজয়, টাবুর মতো তারকাদের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ হাতছাড়া করতে চাইনি। আর চরিত্রটাও ছিল অন্য রকম। কিন্তু ‘দৃশ্যম’র পর থেকে আমার কাছে একই ধরনের চরিত্রের প্রস্তাব বেশি এসেছিল। ওটিটি থেকেও বেশ কিছু প্রস্তাব এসেছিল, করিনি। কারণ, চিত্রনাট্যে সাহসী দৃশ্য ছিল। আমি এতে মোটেও স্বাচ্ছন্দ নই।

তবে এসব সুযোগ হাতছাড়া হওয়া নিয়ে আক্ষেপ নেই ঈশিতার। তার দাবি, কিছু বিষয় ভাগ্যের ওপর নির্ভর করে।  তার কথায়, হয়তো কিছু ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছি, না হলে আমার ক্যারিয়ার আজ অন্য জায়গায়। শেষ পর্যন্ত মনে হয় যে ভাগ্যে যা লেখা থাকে, তাই হয়।  

তবে ঈশিতা জানান, যে কাজই করুন তাতে নিজের সেরাটুকু দেওয়ার চেষ্টা করেন। ছোট ক্যারিয়ারে যা পেয়েছেন তাতেই তিনি সুখী।

বাংলাদেশ সময়: ১৮১৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৪, ২০২২
এনএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa