ঢাকা, শনিবার, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৮ মে ২০২২, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩

পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য

জাবিতে ১৫০ প্রজাতির কীট-পতঙ্গের ‘ডিএনএ বারকোডিং’ 

জাবি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৩৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৭
জাবিতে ১৫০ প্রজাতির কীট-পতঙ্গের ‘ডিএনএ বারকোডিং’  জাবিতে ডিএনএ বারকোডিং প্রকল্পের সমাপনী অনুষ্ঠানে উপাচার্যসহ আলোচকরা/ছবি: বাংলানিউজ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) প্রাণিবিদ্যা বিভাগের ডিনএনএ ল্যাবরেটরিতে ৬শ প্রজাতির কীট-পতঙ্গ সংগ্রহ করে মলিকুলার পদ্ধতিতে ১৫০ প্রজাতির ডিএনএ বারকোডিং করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সভাপতি ও প্রকল্পের সাব-ম্যানেজার অধ্যাপক মো. মনোয়ার হোসেন প্রকল্পের সমাপনী অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, সারা বিশ্বে যে সব প্রাণী আছে তার ১০০ ভাগের মধ্যে ৭৫ ভাগই পোকমাকড়।

সাধারণ পোকামাকড়ের গঠন, রং, পাখা দেখে শনাক্ত করা হয়। যা শতভাগ নিশ্চিত হওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু ডিএনএ পদ্ধতির মাধ্যমে কোনটি কোন প্রজাতির পোকামাকড় তা শতভাগ নিশ্চিত হওয়া সম্ভব।

এ গবেষণাগারে ৬শ প্রজাতির কীট-পতঙ্গ সংগ্রহ করে ১৫০টির ডিএনএ বারকোডিং করা হয়েছে। এছাড়াও এ ল্যাবরেটরিতে বিলুপ্তপ্রায় নানা প্রজাতির কীটপতঙ্গ সংরক্ষণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন ও বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের উচ্চশিক্ষা মানোন্নয়ন প্রকল্পের সহায়তায় ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে প্রকল্পটির কাজ শুরু হয়।

প্রকল্পটির সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন জীববিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক আবদুল জব্বার হাওলাদার, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের উচ্চশিক্ষা মানোন্নয়ন প্রকল্পের প্রোগ্রাম অফিসার ফরহাদুল ইসলাম ভূইয়া প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৭
এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa