ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ফিচার

শীতে জবুথবু চিড়িয়াখানার পশুপাখি

জি এম মুজিবুর, সিনিয়র ফটো করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯২৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৩, ২০২১
শীতে জবুথবু চিড়িয়াখানার পশুপাখি গায়ের লোম ফুলিয়ে জবুথবু হয়ে বসে আছে ময়ূরপাখি। ছবি: জিএম মুজিবুর

ঢাকা: শীতে জবুথবু হয়ে পড়ছে ঢাকা চিড়িয়াখানার প্রাণীরাও। শীতে কাঁপছে চিড়িয়াখানার হিংস্র পশুসহ অন্যান্য পশুপাখিও।

শীতে মানুষের মতোই নাকাল হতে দেখা গেছে চিড়িয়াখানার পশু-পাখিদের। বুধবার (২২ ডিসেম্বর) জাতীয় চিড়িয়াখানা ঘুরে দেখা মিললো শীতের শুরু থেকেই দর্শনার্থী যেমন বেড়েছে তার পাশাপাশি পশু-পাখিও শীতের কারণে গায়ের লোম ফুলিয়ে জবুথবু হয়ে বসে আছে। ৪৫ একর জায়গার ওপর অবস্থিত জাতীয় চিড়িয়াখানার মধ্যে রয়েছে হাজারও রকমের বড়-ছোট গাছপালা। গাছের ছায়ায় পশু-পাখিদের সেটগুলো অবস্থিত। যেখানে গাছপালা বেশি থাকে।  সেখানে মূলত শীতও একটু বেশি লাগে।  চিড়িয়াখানায় সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়,গায়ের লোম ফুলিয়ে দলবদ্ধ অবস্থায় ঘাপটি মেরে বসে আছে পশুপাখিগুলো। আবার কেউ কেউ একা একা শীত থেকে বাঁচার জন্য নিজেকে গুটিয়ে রেখেছে। পশু-পাখির মধ্যে বিশেষ করে বানার, ইমুপাখি, সবুজ ঘুঘু, ময়না, ময়ূরপাখিগুলো শীতে খুব কষ্ট পাচ্ছে এবং মাটিতে মুখ ঠেকিয়ে চুপচাপ শুয়ে আছে।  জাতীয় চিড়িয়াখানার পরিচালক ডা. মো. আব্দুল লতীফ বাংলানিউজকে বলেন, এবারের শীতে আমাদের পশু-পাখির তেমন কোন ঠাণ্ডাজনিত সমস্যা এখনও পর্যন্ত দেখা যায়নি। তবে, আমরা প্রথম থেকেই প্রতিবছরের মতো পশু-পাখিদের যেন ঠাণ্ডা না লাগে তার জন্য ব্যবস্থা নিয়েছি।  বাঘ, সিংহের খাঁচায় মোটা বালু দিয়েছি। বানার ময়ূর ও অন্যান্য পাখিদের মধ্যে যাদের শীত লাগার সম্ভাবনা বেশি তাদেরকে পাটের চট দিয়ে খাঁচাগুলো রাতের বেলায় ঢেকে রাখছি, সকাল হলেই দর্শনার্থীদের দেখার জন্য আবার চট গুছিয়ে রাখা হচ্ছে। আবার কিছু বড় প্রাণীদের বেলায় তাদের খাঁচার মধ্যে আমরা খড় বিছিয়ে দিয়েছি, যাতে তাদের শীত কম লাগে।

বাংলাদেশ সময়: ০৯২৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৩, ২০২১
জিএমএম/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa