ঢাকা, সোমবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০, ২৯ মে ২০২৩, ০৯ জিলকদ ১৪৪৪

ফুটবল

এলিটায় আশাবাদী কাবরেরা-তপু

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯২৯ ঘণ্টা, মার্চ ২৫, ২০২৩
এলিটায় আশাবাদী কাবরেরা-তপু

সিলেট থেকে: ফিফা ফ্রেন্ডলি সিরিজের প্রথম ম্যাচে সিশেলসের বিপক্ষে আজ (২৫ মার্চ) সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ। ম্যাচে ১-০ গোলে জয় পেয়েছে কোচ হ্যাভিয়ের কাবরেরার শিষ্যরা।

এই ম্যাচ দিয়ে বাংলাদেশের জার্সিতে অভিষেক হয়েছে এলিটা কিংসলের। আর প্রথম ম্যাচে অল্প সময় পেলেও কোচ ও সতীর্থদের মন জয় করে নিয়েছেন তিনি।

নাইজেরিয়ার নাগরিকত্ব বাদ দিয়ে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব নিয়েছেন এলিটা। স্বপ্ন ছিল বাংলাদেশ জাতীয় দলে খেলা। সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে তার। লাল-সবুজের জার্সি গায়ে চাপিয়েছেন তিনি। এমনকি অভিষেক ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে বদলি হিসেবে নেমে দুটি গোলের সুযোগ তৈরি করেছিলেন। তবে গোলের দেখা পাননি। যদিও অল্প সময় খেললেও কোচ ও দলের সবার মন জয় করে নিয়েছেন এই স্ট্রাইকার। তাকে নিয়ে বেশ আশাবাদী কোচ হ্যাভিয়ের কাবরেরা এবং ডিফেন্ডার তপু বর্মন। আজ ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানিয়েছেন তারা।  

ম্যাচ শেষে কিংসলের দলভুক্তি নিয়ে কাবরেরা বলেন, ‘এলিটা (কিংসলে) বেশ ভালো ফুটবলার। তার ব্যাপারে আমি আশাবাদী। আজ (গতকাল) গোলের সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারিনি। তবে সামনে সে গোল করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। ’

কিংসলেকে নিয়ে তপু বলেন, ‘এই ম্যাচে সে গোল করতে পারেনি। তবে দারুণ সুযোগ তৈরি করতে পেরেছেন। আশা করি পরের ম্যাচে কিংসলে গোল করবে। ’

এদিকে সিশেলসের বিপক্ষে জিতলেও লড়াইটা কঠিন ছিল বলে জানিয়ছেন কাবরেরা। তিনি বলেন, ‘কঠিন ম্যাচ ছিল। সিশেলস আক্রমণ করবে আমরা জানতাম। আমরা সেভাবেই প্রস্তুতি নিয়েছি। জয় পেয়েছি এটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। ’ ম্যাচের আগেই জানিয়েছিলেন জয়টাই মুখ্য। গোল ব্যাবধান মুখ্য নয়। ম্যাচের পরই জানালেন একই কথা। তিনি বলেন, ‘ম্যাচে আমরা জয় পেয়েছি এটাই মুখ্য বিষয়। আরও ভালো কিছু হওয়া সম্ভব ছিল। তবে জয়টাই বড় বিষয়। ’

দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়াকে আজ একটু ভিন্ন পজিশনে খেলিয়েছেন কাবরেরা। সাফের প্রস্তুতি হিসেবে দল নিয়ে পরীক্ষা করছেন তিনি। আগামীতেও জামালকে এমন পজিশনে খেলানোর কথা জানিয়েছেন তিনি। কাবরেরা বলেন, ‘জামাল ভূঁইয়ার নতুন পজিশন ভালোই হয়েছে। এটা আমরা সামনেও কাজে লাগাতে পারি। ’

দলের পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট ডিফেন্ডার তপু বর্মনও। তিনি বলেন, ‘সবাই চেষ্টা করেছি। ম্যাচটা জিততে চেয়েছিলাম। সামনে আরও একটা ম্যাচ আছে। সেই ম্যাচেও আরও ভালো খেলতে চাই। আজকের ম্যাচে ওরা বেশ আক্রমণ করেছে। আমরা সতর্ক থেকেছি। আমরা দলগত প্রচেষ্টার মাধ্যমে এই ম্যাচে জয় পেয়েছি। গত ২২ দিন আমরা যে পরিশ্রম করেছি তারই ফল পেয়েছি আজ। ’

‘আন্তর্জাতিক ম্যাচ অনেকদিন পর খেলেছি। আমাদের যে লেভেলে পারফর্ম করা উচিত ছিল তা শতভাগ না হলেও কাছাকাছি হয়েছে। আমরা সামনে আরও ভালো করার চেষ্টা করব,’ যোগ করেন তিনি।

বাংলাদেশের হয়ে সাম্প্রতিক সময়ে স্ট্রাইকারদের চেয়ে ডিফেন্ডাররাই গোল করছেন বেশি। এই ম্যাচে গোল করেছেন তারিক কাজী। অন্যদিকে দারুণ এক গোলের সুযোগ তৈরি করেছিলেন তপু। তবে দলের প্রয়োজনে সুযোগ বুঝে যে কেউই গোল করতে পারেন বলে মনে করেন তিনি, ‘অলআউট ফুটবলে কে গোল করল এটা বড় ব্যাপার না। যে সুযোগ পাবে সেই গোল করবে। ভালো সুযোগ পেলে সেই গোল করবে। বর্তমান ফুটবলে ডিফেন্ডাররা কেবল ডিফেন্ডই করবে না। পাশাপাশি আক্রমণও করবে। ’

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৭ ঘণ্টা, মার্চ ২৫, ২০২৩
এআর/এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa