ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

ফুটবল

কাতার বিশ্বকাপের নিরাপত্তায় পাকিস্তানি সেনাবাহিনী!

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩৮ ঘণ্টা, আগস্ট ২৩, ২০২২
কাতার বিশ্বকাপের নিরাপত্তায় পাকিস্তানি সেনাবাহিনী!

আসন্ন ২০২২ কাতার বিশ্বকাপে নিরাপত্তা দেবে পাকিস্তানের সেনাসদস্যদের নিয়ে গঠিত একটি দল। পাকিস্তানের কেবিনেট এ সংক্রান্ত একটি খসড়া প্রস্তাব অনুমোদন করেছে বলে জানিয়েছে 'আল-জাজিরা'।

 

এ বছরের নভেম্বরে বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ফুটবল যজ্ঞ উপভোগ করতে কাতারে যাবেন লাখো মানুষ। ৩২ দলের ফুটবলার, কর্মকর্তা থেকে শুরু করে দেশটিতে প্রায় এক মাস অবস্থান করবেন বিশ্বের বহু ফুটবলভক্ত। এজন্য বিপুল অর্থ ব্যয় করে আসরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চায় আয়োজক দেশ কাতার। যেহেতু দেশটির নিজস্ব বাহিনীর পক্ষে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সম্ভব নয়, তাই তারা সাহায্যের অনুরোধ করেছে সামরিক দিক থেকে এগিয়ে থাকা দেশগুলোর কাছে।

কাতারের ডাকে সাড়া দিয়ে এরইমধ্যে সামরিক জোট ন্যাটো থেকে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র, তুরস্ক, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্যের মতো দেশ থেকে নিরাপত্তা সহায়তা দিতে শুরু করেছে। বিশ্বকাপের আগে যুক্তরাজ্য থেকে যুদ্ধবিমান 'টাইফুন' পাচ্ছে তেল ও গ্যাস সমৃদ্ধ এই ধনী আরব দেশ। এছাড়া নিরাপত্তা বাহিনী পাঠাচ্ছে বেশ কয়েকটি দেশ। এবার তাতে যোগ হলো পাকিস্তানের নাম। এমনিতেই বিদেশি ক্রিকেট দলকে নিজ দেশে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেওয়ার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রাখে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী। এবার তাদের দায়িত্ব পালন করতে হবে বিশ্বকাপেও।

'আল-জাজিরা' জানিয়েছে, বিশ্বকাপের নিরাপত্তা নিশ্ছিদ্র করতে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সাহায্য চেয়ে অনুরোধ করেছিল কাতার। আজ মঙ্গলবার দুই দিনের কাতার সফরে পৌঁছেছেন পাকিস্তানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরীফ। তার আগেই কাতারের অনুরোধে সাড়া দিয়েছে পাকিস্তানের মন্ত্রিসভা। সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ক মন্ত্রী মরিয়ম ঔরঙ্গজেব।

বিশ্বকাপের নিরাপত্তার জন্য কাতারে ঠিক কতজন সেনা পাঠাবে পাকিস্তান সরকার, তা এখনও প্রকাশ করা হয়নি। দুই পক্ষের মধ্যে আনুষ্ঠানিক চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে কিনা- সে বিষয়েও কিছু বলা হয়নি। কাতার সরকারও এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়নি।  

এর আগে কাতার বিশ্বকাপে 'এয়ার পুলিশিং'-এ সহায়তার ঘোষণা দেয় ইংল্যান্ড। কাতারি নিরাপত্তা বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে যুক্তরাজ্যের সামরিক বাহিনী। যুক্তরাজ্য ছাড়াও কাতার বিশ্বকাপের নিরাপত্তার দেখভাল করতে যুক্ত হয়েছে আরও কয়েকটি দেশ। এ মাসের শুরুতে জর্ডানের পক্ষ থেকে দেশটির সামরিক বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্যদের বিশ্বকাপের নিরাপত্তায় নিয়োজিত করার প্রস্তাব দেওয়া হয়। অন্যদিকে তুরস্কের পক্ষ থেকে গত জুলাইয়ে জানানো হয়- বিশ্বকাপের নিরাপত্তায় দেশটি রাসায়নিক, জৈবিক, রেডিওলজিক্যাল এবং পারমাণবিক প্রতিরক্ষার জন্য বিশেষজ্ঞ পাঠাবে।  

এর আগে গত বছরের ডিসেম্বরে তুরস্ক বিশ্বকাপের জন্য কাতারে তিন হাজার দাঙ্গা পুলিশ পাঠানোর ঘোষণা দেয়। এছাড়া ৪০ জন নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ পাঠানোর পরিকল্পনাও প্রকাশ করে তারা। এছাড়া দক্ষিণ কোরিয়াও সামরিক পুলিশ পাঠানোর সিদ্ধান্ত জানিয়েছে। অন্যদিকে ফান্স সামরিক সদস্য পাঠানোর পাশাপাশি কাতারকে সামরিক অ্যান্টি-ড্রোন সিস্টেম, যুদ্ধবিমানের হামলা থেকে সুরক্ষার জন্য ডিফেন্স সিস্টেম দিচ্ছে।  

কাতার বিশ্বকাপের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্ছিদ্র করতে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্ট (এনওয়াইপিডি) ও 'ইউএস ডিপার্টমেন্ট অফ হোমল্যান্ড সিকিউরিটি (ডিএইচএস) সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছে। অপরদিকে মরক্কো পাঠাচ্ছে হাজারো পুলিশ সদস্য এবং সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ।  

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৮ ঘণ্টা, আগস্ট ২৩, ২০২২
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa