ঢাকা, রবিবার, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

কৃষি

নতুন অ্যাপস উদ্ভাবন

ফসলের বালাইনাশকের সমাধান হাতের মুঠোয়

আবু খালিদ, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৪৬ ঘণ্টা, জুন ১১, ২০১৬
ফসলের বালাইনাশকের সমাধান হাতের মুঠোয়

ঢাকা: জমিতে গিয়ে দেখলেন ফসল রোগে আক্রান্ত। বাজারে ছুটলেন ওষুধ কিনতে।

গিয়ে দেখলেন একাধিক কোম্পানির বিভিন্ন নামের ওষুধ। সঠিক ওষুধ বাছাই করতে হিমশিম খাচ্ছেন। এমন সমস্যায় প্রতিদিন হাজারও কৃষককে পড়তে হয়।
 
তবে খুব শিগগিরই এসব সমস্যার সমাধান পাওয়া যাবে হাতে থাকা স্মার্টফোনের মাধ্যমে। ফসলের যাবতীয় বালাইনাশকের চিকিৎসায় সঠিক ওষুধের দিক নির্দেশনা পাওয়া যাবে বালাইনাশক নির্দেশিকা নামের অ্যাপসটি ব্যবহার করে।
 
মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সুকল্প দাস ডেস্কটপ ও মোবাইল ভার্সনের এ অ্যাপসটি তৈরি করছেন। জানালেন, গত বছরের জুন মাসে শুরু হওয়া অ্যাপসটির কাজ প্রায় শেষের দিকে।  
 
সুকল্প দাস বাংলানিউজকে বলেন, যে কোনো রোগ বা পোকার বিরুদ্ধে সঠিক ওষুধটি তৎক্ষণাৎ নির্বাচনে কৃষকদের জন্য বালাইনাশক নির্দেশিকাটি তৈরি করা হচ্ছে। সঠিক ওষুধ নির্বাচনের জন্য কৃষকদের বেশ ভোগান্তি ও দুর্ভোগের শিকার হতে হয়।
 
এছাড়া ভেজাল ওষুধের মাধ্যমে ক্ষতির পাশাপাশি হয়রানি হতে হয়। এসব সমস্যার মুক্তি মিলবে বালাইনাশক নির্দেশিকার মাধ্যমে।

এ কৃষি কর্মকর্তা বলেন, শুধু কৃষক নয় এ থেকে কৃষি কর্মকর্তা, গবেষক, শিক্ষার্থীসহ সংশ্লিষ্টরা উপকৃত হবেন। কেননা পোকা নির্ণয় করা ও সঠিক ওষুধ বাছাই খুবই কঠিন। অনেক সময়ে বোঝা যায় না। ফলে বিপরীত ওষুধ প্রয়োগ হলে পরিবেশ ও ফসলে নেতিবাচক প্রভাব পরে।
 
অ্যাপসটির উদ্ভাবক জানান, বাজারে হাজারও রকম ওষুধের ভিড়ে সঠিক ওষুধটি নির্বাচন করতে হলে আপনাকে জানতে হবে। আর এ জানানোর জন্য পরিপূর্ণভাবে সহযোগিতা করবে বালাইনাশক নির্দেশিকাটি। ইউনিয়ন পরিষদের ই-তথ্য সেবা কেন্দ্রেও এটি ব্যবহার হবে। পর্যায়ক্রমে কীটনাশক বিক্রেতাদেরও প্রশিক্ষণ দিয়ে দক্ষ করা হবে।
 
অ্যাপসের মাধ্যমে বাংলাদেশের কোন জায়গায় কোন ওষুধ বেশি প্রচলিত ও কোন রোগ বেশি দেখা যাচ্ছে তাও জানা যাবে। ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন অনলাইন ভার্সন হবে। মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন অনলাইন পাশাপাশি গুগল প্লে স্টোর আপডেট করা যাবে। এখন ‍মোবাইল অ্যাপলিকেশনের কাজ শেষ পর্যায়ে।
 
প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক্সেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) এর অর্থায়নে তৈরি করা অ্যাপসটি আগামী মাসের মধ্য প্রধানমন্ত্রী অথবা কৃষিমন্ত্রীর উদ্বোধন করার সম্ভাবনা রয়েছে।
 
ইংরেজি ও বাংলা দুই ভাষাতে তৈরি এ অ্যাপসে সাতটি মেন্যু রয়েছে। তা হলো প্রচ্ছদ, পরামর্শ, প্রেসক্রিশন, অনুসন্ধান, ব্যবহার বিধি, কৃতজ্ঞতা স্বীকার, মন্তব্য ও উদ্ভাবক। প্রয়োজনীয় অপশনে ক্লিক করলেই মিলবে সেবা।
 
পরামর্শ বা এডভাইস মেনুতে ক্লিক করে ধাপে ধাপে নির্দিষ্ট ফসলের রোগ বা পোকার বিরুদ্ধে ক্রিয়াশীল বালাইনাশক বিভিন্ন ওষুধের নাম পাওয়া যাবে। অনুসন্ধান মেন্যুতে অনুমোদিত সব বালাইনাশকের বিস্তারিত তথ্য আসবে।
 
প্রেসক্রিপশন মেনুতে রোগ বা পোকার বিরুদ্ধে সঠিক বালাইননাশক নির্বাচন করে তা প্রিন্ট করে কৃষককে দেওয়া যাবে। কোন কৃষককে কী পরামর্শ দেওয়া হলো তারও রের্কড থাকবে। নতুন প্রেসক্রিপশান করতে চাইলে অ্যাড নিউ বাটনে ক্লিক করতে হবে। পুরোনো পরামর্শের তালিকা থেকে কৃষকের নাম, ঠিকানা দিয়ে অনুসন্ধান করা যাবে।
 
বালাইনাশক নির্দেশিকা বা পেস্টিসাইড প্রেসক্রাইবারে এর মাধ্যমে কোন কোন বালাইনাশক বাজারে আছে তা জানার পাশাপাশি কোন প্রতিষ্ঠানের বালাইনাশক কী নামে পরিচিতও তাও কৃষকরা অনায়াসে বের করতে পারবেন।
 
কোনো একটি পণ্যের এপি নাম্বার যাচাইয়ের মাধ্যমে যানা যাবে ওই পণ্যটি অনুমোদিত কিনা।

ওয়েব এপ্লিকেশনের বর্তমান ঠিকানা www.pest2.bengalsols.com

বাংলাদেশ সময়: ১১৩৬ ঘণ্টা, জুন ১১, ২০১৬
একে/আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa