ঢাকা, সোমবার, ১৬ মাঘ ১৪২৯, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ০৭ রজব ১৪৪৪

কৃষি

আমনের ক্ষেতে আশা-নিরাশার দোলা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬২৮ ঘণ্টা, নভেম্বর ৪, ২০১৭
আমনের ক্ষেতে আশা-নিরাশার দোলা আমন ক্ষেত। ছবি: বাংলানিউজ

নীলফামারী: আর মাত্র দুই থেকে তিন সপ্তাহ, তারপর শুরু হবে চলতি মৌসুমের আমন ধানের কাটা-মাড়াই। কিন্তু  বন্যা, ঝড়, অতিবৃষ্টির পর এখন পোকার আক্রমণ কৃষকদের চিন্তায় ফেলেছে। ফলে আমন নিয়ে এখন আশা-নিরাশার দোলাচলে কৃষক।

কৃষকরা আমনে আশাবাদি থাকেন বেশি। কারণ এই ধান সারাবছরের খরচ ও পরবর্তী ফসল আবাদের ব্যয় নির্বাহে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

গ্রামের অনেক কৃষক পরিবার এই ধানের কাটা-মাড়াই করে ছেলে-মেয়ের বিয়ে দিয়ে থাকেন। সে কারণে কৃষকরা কোমর বেঁধে আমনের আবাদ করেন।

কিন্তু এ মৌসুমে রোপা আমন চারা লাগানোর কয়েক দিনের মাথায় শুরু হয় ভয়াবহ বন্যা। ফলে বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গিয়ে রোপা আমনের চারার ক্ষতি হয়।

আমন ক্ষেত।  ছবি: বাংলানিউজকৃষকরা নিজ উদ্যোগে ও সরকারি সহযোগিতায় আমনের চারা ও দোগাছি সংগ্রহ করে জমিতে লাগান। নিয়মিত পরিচর্যা, সেচ ও সার প্রয়োগে ক্ষেতে লকলকিয়ে বেড়ে ওঠে আমন। বর্তমানে এসব জমিতে শীষে থোকা থোকায় ধান শোভা পাচ্ছে। এ ধানে কৃষকের স্বপ্ন অনেক। কিন্ত এ অবস্থায় বিস্তীর্ণ জমিতে কারেন্ট পোকা, শীষ কাটা লেদা পোকা ও অন্যান্য পোকার আক্রমণে দিশেহারা হয়ে পড়েছে কৃষক। নদী অববাহিকায় দেখা দিয়েছে ইঁদুরের উপদ্রুব।

কৃষি বিভাগ জানায়, পোকার আক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করছে কারেন্ট পোকা। এই পোকা দ্রুত এ জমি থেকে ওই জমিতে ছড়িয়ে পড়ে। ওষুধ ছিটালে অন্য জমিতে চলে যায়। মাঠ পর্যায়ের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা কৃষকদের পরামর্শ ও সহযোগিতা করছেন। কৃষকদের বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার জন্য কৃষকদের মাঝে প্রণোদনা, বিভিন্ন ফসলের বীজ ও সার বিতরণ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১১২০ ঘণ্টা, নভেম্বর ৪, ২০১৭
জেডএম/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa