ঢাকা, রবিবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৯ মে ২০২৪, ১০ জিলকদ ১৪৪৫

উপকূল থেকে উপকূল

কলাপাড়ায় অস্বাভাবিক জোয়ারে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩০ ঘণ্টা, জুলাই ১৬, ২০১৮
কলাপাড়ায় অস্বাভাবিক জোয়ারে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত কলাপাড়ায় অস্বাভাবিক জোয়ারে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত। ছবি: বাংলানিউজ

পটুয়াখালী: পটুয়াখালীর উপকূলীয় উপজেলা কলাপাড়ায় অস্বাভাবিক জোয়ারে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পাশাপাশি সমুদ্র উত্তাল হয়ে উঠায় বঙ্গোপসাগরের সব ধরনের মাছ ধরা ট্রলার নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য কলাপাড়ার মৎস্য বন্দর আলীপুর ও মহিপুরের শিববাড়িয়া নদীতে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে এসেছে।

পায়রা সমুদ্রবন্দর এলাকায় তিন নম্বর স্থানীয় সর্তক সংকেত দেখে যেতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর।

সোমবার (১৬ জুলাই) দুপুরে আবহাওয়া অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি কিছুটা পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে বর্তমানে উপকূলীয় ওড়িষ্যা ও তৎসংলগ্ন উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থান করছে।

এটি আরও উত্তর পশ্চিমে অগ্রসর হতে পারে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগার ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় বায়ুচাপের তারতম্যের আধিক্য বিরাজ করছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগর বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্র বন্দর সমুহের উপর দিয়ে ঝড়োহাওয়া বয়ে যেতে পারে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলাসহ পায়রা সমুদ্র বন্দরকে তিন নম্বর স্থানীয় সর্তক সংকেত দেখে যেতে বলা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অমাবস্যার জ্যোয়ের প্রভাবে ফুঁসে উঠেছে উপকূলীয় এলাকার নদ-নদীসহ কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগর। প্লাবিত হয়েছে উপকূলীয় নিম্নাঞ্চল। উত্তাল সমুদ্রের ঢেউয়ের তাণ্ডবে কুয়াকাটা সৈকতের বন-বনানীর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

কলাপাড়া পৌরশহরের মাছ বাজার এলাকার বাসিন্দারা জানান, আন্ধারমানিক নদের অস্বাভাবিক জেয়ারের পানিতে বেড়িবাঁধের বাইরের শতাধিক কাঁচা বাড়ি ঘর ও সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান প্লাবিত হয়েছে। কলাপাড়া কুয়াকাটার বিকল্প সড়কের বালিয়াতলী খেয়াঘাট এলাকা দুই তিন ফুট পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

আলীপুর ও কুয়াকাটা মৎস্য ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সভাপতি মো. আনছার উদ্দিন মোল্লা জানান, বৈরী আবহাওয়ার কারনে সাগর উত্তাল থাকায় গত দু'দিন ধরে মাছ ধরা ট্রলার নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য আলীপুর, মহিপুর, ঢোস এলাকাসহ বিভিন্ন নদ-নদীতে আশ্রয় নিয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২০২৮ ঘণ্টা, জুলাই ১৬ ২০১৮
এমএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।