ঢাকা, রবিবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৯ মে ২০২৪, ১০ জিলকদ ১৪৪৫

ক্রিকেট

আমি আসার পর ড্রেসিং রুমের পরিবেশ বদলেছে : হাথুরু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৩১ ঘণ্টা, মার্চ ২৬, ২০২৩
আমি আসার পর ড্রেসিং রুমের পরিবেশ বদলেছে : হাথুরু

চট্টগ্রাম থেকে : কথাবার্তায় তিনি পরিষ্কার, ভাবনা স্বচ্ছ। আত্মবিশ্বাসও ভরপুর।

তাই কী করছেন জানেন ভালো মতোই। চন্ডিকা হাথুরুসিংহে আসার পর নেতিবাচকতা যতটুকু ছিল, দলের পারফরম্যান্সেই বোধ হয় জবাব মিলেছে তার। সাহসী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, দলের ভেতর ছড়িয়ে দিয়েছেন আক্রমণাত্মক মনোভাব।  

চট্টগ্রামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ওয়ানডে দিয়ে শুরু হয়েছিল জয়যাত্রা— এরপর থেকে আর হারেনি বাংলাদেশ দল। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন টি-টোয়েন্টির পর আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে জিতেছে ওয়ানডে সিরিজ। দুই মাস দায়িত্ব নিয়ে কী বদল এনেছেন হাথুরুসিংহে?

এমন প্রশ্নের জবাবে রোববার চট্টগ্রামে তিনি বলছিলেন, ‘খেলোয়াড়দের মধ্যে কী বদলেছে? একই ক্রিকেটার আছে, একই স্কিলও। আমার মনে হয় না খুব বেশি কিছু বদলেছে, পরিবেশ কিছুটা বদলেছে ড্রেসিং রুমের মধ্যে। আমরা যেভাবে কথা বলি, যা নিয়ে কথা বলি; চেষ্টা করছি মনস্তাত্ত্বিকভাবে নির্ভার রাখতে দলকে। ’

‘তাদের বলেছি, শুধু রেজাল্টের জন্য, তারা ভালো খেলছে বা ব্যর্থ হচ্ছে; তাদের মূল্য কমে যাবে না। তারা একই ক্রিকেটার থাকবে, আমরা একই মানসিকতায় দেখছি, তারা মূল্যবান। আমরা তাদের নিয়েছি স্কিলের জন্যই। এটা ছাড়া কিছুই বদলায়নি, জানি না আগে কী হয়েছে; কিন্তু তাদের স্কিল একই। ’

পরে একই প্রসঙ্গে আরেকটি প্রশ্নের উত্তরে হাথুরু বলেন, ‘একটা শব্দেই আমি সবকিছু নিয়ে আসতে পারি—মনস্তাত্ত্বিক নির্ভারতা। এটা অনেক বড় শব্দ। এর পেছনে অনেক কিছুই আছে, যেমন খেলোয়াড়রা কী হবে সেই ব্যাপারে চিন্তা না করেই তাদের সেরাটা দেবে, প্রতিক্রিয়ার ব্যাপারে ভাববে না। শুধু কোচ বা নির্বাচক না, খেলোয়াড়দেরও, তাদের কিছু চেষ্টা করার ব্যাপারে স্বাধীনতা দেওয়া আছে। যদি তারা ব্যর্থ হয়, তাহলেও ঠিক আছে। তারা একই ক্রিকেটার থাকবে। আমরা তাদের বিশ্বাস করি। ’

হাথুরু আসার পর ওয়ানডে দল থেকে বাদ পড়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। টি-টোয়েন্টিতে নিয়মিত মুখ আফিফ হোসেনও নেই আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে। কোচ স্পষ্ট করেই বলেছেন ‘পারফরম্যান্সের জন্য’। এছাড়া দলের ভেতরে-বাইরে বইছে অন্যরকম আবহ। তাহলে কি নতুন যুগের সূচনা হলো?

এমন প্রশ্নে হাথুরুর জবাব, ‘আমি এটাকে নতুন যুগ হিসেবে দেখছি না। আমরা সামনেও এভাবেই নিজেদের ক্রিকেট খেলতে চাই। আমরা আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলতে চাই। আক্রমণাত্মক ক্রিকেটের যে ব্যাখ্যা দিয়েছি, আমি সবসময় বলি এটার মানে এই না যে গিয়েই মারতে হবে। সবদিক থেকেই আমরা আক্রমণাত্মক। দল নির্বাচনে, ফিল্ডিং প্লেসিংয়ে, বডি ল্যাঙ্গুয়েজে, ফিল্ডিংয়ে, ব্যাটিংয়ে আমরা আক্রমণাত্মক। ট্যাকটিক্যালি আমরা আক্রমণাত্মক থাকবো। ’

‘কী হবে সেটা নিয়ে ভাবছি না। সেভাবেই খেলতে চাই, যেটা সবচেয়ে ভালো পারবো। আমার মনে হয় যখন আমরা এমন আক্রমণাত্মক খেলবো আর স্বাধীনতা নিয়ে খেলতে পারবো, এই দল সবসময় ভালো করবে। ’

বাংলাদেশ সময় : ১২৩১ ঘণ্টা, মার্চ ২৬, ২০২৩
এমএইচবি/এএইচএস
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।