ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৭ মে ২০২২, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

বাংলাদেশের ব্র্যান্ডিংয়ে হবে রোডম্যাপ

ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৩, ২০২২
বাংলাদেশের ব্র্যান্ডিংয়ে হবে রোডম্যাপ

ঢাকা: বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের শক্তিশালী ব্র্যান্ডিংয়ের ক্ষেত্রে অঞ্চল ভিত্তিক রোডম্যাপ তৈরি করা হবে। রোববার (২৩ জানুয়ারি) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে উত্তরণের ফলে বাংলাদেশের সম্ভাব্য চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার প্রস্তুতি, পরিকল্পনা গ্রহণ, বাস্তবায়ন ও মনিটরিং সংক্রান্ত 'বিদেশে বাংলাদেশকে ব্রান্ডিং'- শীর্ষক কমিটির আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন একথা বলেন।

সভায় প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমানও যোগ দেন। এতে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম এবং পররাষ্ট্র সচিব ( সিনিয়র সচিব) মাসুদ বিন মোমেন উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া সভায় সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা), বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ কর্তৃপক্ষ(বেপজা), বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন, বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন (বিএসসিআইসি), আইসিটি বিভাগ, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ, পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ অথোরিটি (পিপিপিএ) ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী একটি জাতি ও সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের শক্তিগুলো চিহ্নিত করার ওপর জোর দেন। সেগুলোকে বিদেশে প্রজেক্ট করার জন্য স্টেকহোল্ডারদের মধ্যে অধিকতর সমন্বয়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি দেশের একটি সঠিক এবং ভবিষ্যৎমুখী চিত্র তুলে ধরার জন্য একটি উন্মুক্ত, অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং সত্যতা ভিত্তিক কার্যক্রম গ্রহণের প্রয়োজনীয়তার কথাও তুলে ধরেন সভায়।

সভার শুরুতে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন অর্থনৈতিক কূটনীতির বিভিন্ন দিক তুলে ধরে নিজ মন্ত্রণালয়ের সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যগুলো তুলে ধরেন।

তিনি জানান, আমাদের লক্ষ্যের মধ্যে রয়েছে- সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগ বৃদ্ধি ও বৈচিত্র্য সৃষ্টি, রপ্তানি বৃদ্ধি ও বৈচিত্র্য বৃদ্ধি, মানসম্মত সেবা, মানব সম্পদ ও দক্ষতা রপ্তানি, প্রযুক্তি স্থানান্তর।

সভায় বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের শক্তিশালী ব্র্যান্ডিংয়ের ক্ষেত্রে অঞ্চল ভিত্তিক রোডম্যাপ তৈরির ব্যাপারে বিভিন্ন আলোচনা হয়। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সক্ষমতা, কোভিড পরিস্থিতিতে সাফল্য, অন্য দেশকে ঋণ দেওয়ার সক্ষমতা, বাংলাদেশের সাহসী মানুষের সফলতার গল্প, পর্যটন, খাদ্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন-ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা হয়।

সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়, একটি কমন ব্র্যান্ডিং প্ল্যাটফর্ম গঠন করে তার অধীনে দেশের সব সরকারি বেসরকারি সংস্থা নিজ নিজ ক্ষেত্র থেকে বাংলাদেশকে ব্রান্ডিংয়ে কাজ করে যাবে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, হেডকোয়ার্টার ও তার বিদেশস্থ মিশনগুলোকে নিয়ে ন্যাশন ব্র্যান্ডিং এবং এ সংক্রান্ত সব কাজে সর্বাত্মক সহযোগিতায় প্রত্যয় ব্যক্ত করে।

সভায় ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই), ফেডারেশন অব বাংলাদেশ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই), বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমই) প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ২০৫৮ ঘণ্টা, ২৩ জানুয়ারি, ২০২২
টিআর/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa