ঢাকা, রবিবার, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ শাবান ১৪৪৫

ভারত

সাংবিধানিক অধিকার রক্ষা করুন, রাষ্ট্রপতিকে কাছে পেয়ে মমতার দাবি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫৪ ঘণ্টা, মার্চ ২৭, ২০২৩
সাংবিধানিক অধিকার রক্ষা করুন, রাষ্ট্রপতিকে কাছে পেয়ে মমতার দাবি

কলকাতা: ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুকে কাছে পেয়ে সংবিধান রক্ষা করার আর্জি জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাষ্ট্রপতিকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন, ভারতের মূল ভিত্তিই হলো বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্য।

সেই বৈচিত্র্য রক্ষা করার দায়িত্ব রাষ্ট্রপতির। সে কথা তুলে ধরলেন মুখ্যমন্ত্রী।

সোমবার (২৭ মার্চ) সন্ধ্যায় কলকাতার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর নাগরিক সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়েছিল। মূলত মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগেই এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়সহ রাজ্যের অন্যান্য মন্ত্রীরা।

মুখ্যমন্ত্রী বক্তব্য রাখতে উঠে রাজ্যের উন্নতি, সম্মানপ্রাপ্তির খতিয়ান তুলে ধরেন। পশ্চিমবঙ্গ যে এখনও ভারতের রোলমডেল, সে কথা মনে করিয়ে দিতেও ভোলেননি তিনি। শুধু কেন্দ্র নয়, আন্তর্জাতিক মঞ্চেও সম্মান পেয়েছে বাংলার একাধিক প্রকল্প। এ দিন সংক্ষেপে সেই সব কথা তুলে ধরেন মমতা।

বক্তব্য শেষের আগে রাষ্ট্রপতির কাছে আর্জি জানান মুখ্যমন্ত্রী। মমতা বলেন, আমাদের মধ্যে উপস্থিত রয়েছেন দেশের সাংবিধানিক প্রধান। তাঁর কাছে একটাই অনুরোধ, দেশের সমস্ত মানুষের সাংবিধানিক অধিকার রক্ষা করুন। সংবিধানকে রক্ষা করুন। যেকোনো বিপর্যয় থেকে দেশকে রক্ষা করুন। সবশেষে মুখ্যমন্ত্রীর সংযোজন, বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্য ভারতের মূলভিত্তি, সে কথা আমাদের মনে রাখতে হবে।

সোমবার কলকাতায় আসেন রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু। পশ্চিমবঙ্গে দু’দিনের সফরে এসেছেন তিনি। রাষ্ট্রপতি পদে নিযুক্ত হওয়ার পর এই প্রথম তাঁর কলকাতায় আসা। এদিন কলকাতা বিমানবন্দরে নেমে নেতাজি ভবনে যান রাষ্ট্রপতি। নেতাজির বাসভবন ঘুরে দেখেন তিনি। এরপর সেখান থেকে বের হয়ে জোড়াসাঁকোয় যান। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বাসভবন পরিদর্শন করেন। ঠাকুরবাড়িতে কবিগুরুর জন্মকক্ষ, আঁতুড়ঘর, প্রয়াণকক্ষ ঘুরে দেখেন। রবীন্দ্রভারতী মিউজিয়াম, বিচিত্রা ভবনেও যান রাষ্ট্রপতি।

নেতাজি, জোড়াসাঁকো ঘুরে দুপুরে রাজভবনে মধ্যাহ্নভোজন করেন। তারপর সন্ধ্যায় যান নেতাজি ইন্ডোরে। সেখানেই রাষ্ট্রপতিকে কাছে পেয়ে মুখ্যমন্ত্রী সংবিধান রক্ষা করার দাবি জানান, যা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। ভারতের সাম্প্রতিক পরিস্থিতিতে কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামো নষ্ট, সাংবিধানিক অধিকার খর্বের অভিযোগ এনেছেন তৃণমূল প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমন পরিস্থিতিতে রাষ্ট্রপতির সামনে ফের সংবিধান রক্ষার দাবি জানালেন তিনি।

মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) সকালে রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর বেলুড়মঠে যাওয়ার কথা। সেখান থেকে তাঁর গন্তব্য হবে বীরভূমের শান্তিনিকেতন। শান্তিনিকেতনের বিনয় ভবন সংলগ্ন কুমিরডাঙা মাঠে রাষ্ট্রপতিকে বহনকারী হেলিকপ্টার অবতরণ করার কথা রয়েছে। সেখান থেকে বিশ্বভারতীর রবীন্দ্র ভবন, কলা ভবন, আশ্রম প্রাঙ্গণ ঘুরে দুপুরে আম্রকুঞ্জের জহর বেদিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু।

বাংলাদেশ সময়: ২০৫২ ঘণ্টা, মার্চ ২৭, ২০২৩
ভিএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।