ঢাকা, শনিবার, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০, ০৩ জুন ২০২৩, ১৪ জিলকদ ১৪৪৪

ইসলাম

মহানবীর চোখে কেউ সংখ্যালঘু নয়

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩২৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২, ২০১৬
মহানবীর চোখে কেউ সংখ্যালঘু নয় ছবি: দীপু / বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: যারা বিকৃত লেখে তাদের মূল টার্গেট মহানবীকে (সা.) বিকৃত করা। মহানবীকে (সা.) বিকৃত করলে আল-কোরআনকে বিকৃত করা হয়, ইসলামকে বিকৃত করা হয়।



এখন দুনিয়ায় যত সমস্যা তার সমাধান মহানবী নিজেই দিয়ে গিয়েছিলেন। বর্তমানে সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে কথা হচ্ছে, অথচ মহানবীর চোখে সংখ্যালঘু বলে কেউ ছিল না। কোনো জাতি বা ধর্মের একজন লোক থাকলেও, সে অন্য সব জনগণের মতো সমান অধিকার পাবে।

এখন নারীর অধিকার নিয়ে কথা হয়। অথচ মুহাম্মদ বলেছেন, যে স্ত্রীর কাছে উত্তম, সেই উত্তম। এতেই বোঝা যায় উনার আখলাক, নারীদের প্রতি কতটুকু সম্মান দিতেন।

এ কারণে আমাদের রাসূলের কথা প্রচার করতে হবে। তার জীবনযাপন, মূল্যবোধ প্রচার করতে হবে। রাসূলকে প্রচার মানেই ইসলামের প্রচার।

সেমিনারে অংশ নিয়ে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরের ইন্টারন্যাশনাল শরিয়া রিসার্চ একাডেমির (ইসরা) গবেষণা সহকারী মুফতি ইউসুফ সুলতান এভাবে বলছিলেন কথাগুলো।

বাংলানিউজের ইসলামি সেমিনারে মহানবী (সা.)-এর আদর্শ তুলে ধরে বক্তব্য রাখছেন আলেম-ওলামারা। তারা মহানবীর (স.) ইসলাম প্রচারের নানা ঘটনা তুলে ধরছেন।  

তিনি বলেন, জিহাদ থাকতে হবে। আজ মহানবীর জিহাদকে বিকৃত করা হচ্ছে। নবী যে জিহাদের কথা বলেছেন, সেটা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ। অস্ত্রধারীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ। তিনি যে যুদ্ধ করেছেন, সেখানে নারী শিশু মারা যায়নি। তিনি সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জিহাদ করেছেন।

তিনি বলেন, আমরা দিন দিন সাম্প্রদায়িক হয়ে পড়ছি। অসাম্প্রদায়িকতা প্রতিষ্ঠা করতে হলে রাসূলের বাণী প্রচার করতে হবে।

রাসূলের বাণী, রাসূলের জীবন প্রচারের জন্য বাংলায় একটি ওয়েবসাইট তৈরি ও ফেসবুকে প্রচারণার কথাও বলেন তিনি।

জামিয়াতুল উলুমিল ইসলামিয়া মোহাম্মদপুর ও কলাম লেখক মাওলানা মুহাম্মদ যাইনুল আবিদীন, ইসলামি পত্রিকা পরিষদের সভাপতি ও মাসিক আদর্শ নারী পত্রিকার সম্পাদক মুফতি আবুল হাসান শামসাবাদী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঊর্দু বিভাগের অধ্যাপক মুফতি ড. গোলাম রব্বানী, মালযেশিয়ার ইন্টারন্যাশনাল শরিয়া রিসার্স একাডেমির (ইসরা) গবেষণা সহকারী মুফতি ইউসুফ সুলতান সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন।

আরও ছিলেন বসুন্ধরা ইসলামি রিসার্স সেন্টারের সহকারী মুফতি শরিফুল আজম, মাল্টিমিডিয়া লিমিটেডের রাহাবার ও চেয়ারম্যান হাফেজ মুফতি সাইফুল ইসলাম, বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরামের জেনারেল সেক্রেটারি মাওলানা জহির উদ্দিন বাবর, দৈনিক আমাদের অর্থনীতির ধর্ম বিভাগের সম্পাদক মুফতি হুমায়ুন আইয়ুব, প্রিয়.কমের প্রিয় ইসলাম বিভাগের বিভাগীয় সম্পাদক মাওলানা মিরাজ রহমান, জামিয়া মাহমুদিয়া মেরাদিয়ার প্রিন্সিপাল মাওলানা নুরুল ইসলাম ইসহাকি, ইসলামী লেখক ও গবেষক মুফতি মাহফূযুল হক, তরুণ আলেম ও লেখক মাওলানা আতাউর রহমান খসরু, টঙ্গীর জামিয়া নুরিয়া’র মুহাদ্দিস মাওলানা রিয়াদুল ইসলাম মল্লিক, উত্তরার মাওলানা মুফতি ইউসুফ, মাওলানা রশিদুল হক, মাওলানা তানজিল আমির।

বাংলানিউজের কনসালট্যান্ট এডিটর জুয়েল মাজহার ও হেড অব নিউজ মাহমুদ মেনন এসময় উপস্থিত ছিলেন।

বাংলানিউজের ইসলাম বিভাগের বিভাগীয় সম্পাদক মুফতি এনায়েতুল্লাহ সেমিনার পরিচালনা করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৩২১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০২, ২০১৬
এমআইএইচ/এমএন/এএ

** মহানবীর মধুর ভাষা প্রচারের অপার মাধ্যম ডিজিটাল মিডিয়া
** ‘মহানবী বসে পড়েছিলেন’
** আলেম-ওলামাদের ডিজিটাল মিডিয়ায় আসতে হবে
** বাংলানিউজের ইসলামি সেমিনার শুরু
** ডিজিটাল মিডিয়ায় প্রিয় নবী (সা.)-এর মূল্যবোধ চর্চা

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa