ঢাকা, রবিবার, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

রাজনীতি

মঠবাড়িয়া যুবলীগ সভাপতির ওপর হামলার ঘটনায় ৩ নেতা বহিষ্কার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭১৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২১
মঠবাড়িয়া যুবলীগ সভাপতির ওপর হামলার ঘটনায় ৩ নেতা বহিষ্কার

পিরোজপুর: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু হানিফ খানের ওপর হামলা ও দলীয় কার্যালয় ভাঙচুরের ঘটনায় ৩ যুবলীগ নেতাকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

শনিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জেলা যুবলীগ সভাপতি আক্তারুজ্জামান ফুলু মোবাইলে বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) রাতে তিনি ও জেলা আওয়ামী যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল আহসান গাজীসহ সংগঠনের পক্ষ থেকে একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সেই মোতাবেক সভাপতি ও সম্পাদকের যৌথ স্বাক্ষরিত এক চিঠি মঠবাড়িয়ায় উপজেলা কমিটির কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।  বহিষ্কৃতরা হলেন- উপজেলা যুবলীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামরুল আহমেদ রছি, সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান ফরাজি ও আবু জাফর কিবরীয়া।

স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে আরও জানা যায়, গত ৮ ফেব্রুয়ারি উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু হানিফ খানের ওপর হামলা ও দলীয় কার্যালয় ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ওই ৩ যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মঠবাড়িয়া থানায় মামলা হয়েছে। যা সংগঠন পরিপন্থী বলে মনে করেন তারা।

উল্লেখ্য, ৮ ফেব্রুয়ারি জেলার মঠবাড়িয়ায় আধিপত্য বিস্তারের জেরে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু হানিফ খান (৪০), উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক উপজেলার ১০ নম্বর গুলিসাখালী ইউপি চেয়ারম্যান রিয়াজুল আলমসহ ২০ নেতাকর্মীকে পিটিয়ে আহত করে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ সময় উপজেলা যুবলীগের দলীয় কার্যালয় ভাঙচুর করা হয়। এর আগের দিন রোববার (০৭ ফেব্রুয়ারি) রাতে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মাদরসার নৈশ্যপ্রহরী ইদ্রিস হোসেন (২৬) নামে এক যুবকে কুপিয়ে আহত করে এক দল সন্ত্রাসীরা। এর প্রতিবাদে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের উদ্যোগে ওই দিন (০৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়। এ প্রতিবাদ সভা শেষে রাত ৮টার দিকে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু হানিফ খান বাসায় যেতে মোটরসাইকেলের অপেক্ষায় দলীয় কার্যালয়ে সামনে দাঁড়ান। এ সময় ২০-২৫ জনের একটি সন্ত্রাসী দল এসে তাকে ধরে নিয়ে কুপিয়ে জখম করে। আর ওই উপজেলায় আধিপত্য বিস্তারের জেরে আওয়ামী লীগের মধ্যে দু’টি গ্রুপ রয়েছে। এর একটিতে রয়েছেন উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পৌর মেয়র রফিউদ্দিন আহম্মেদ ফেরদাউস ও অন্য গ্রুপে রয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক সেলিম মাতুব্বর। আর হামলায় আহত উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু হানিফ খান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গ্রুপের লোক।

বাংলাদেশ সময়: ১৭১৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২১
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa