ঢাকা, শনিবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

পর্যটন

বান্দরবানে পর্যটকদের বিমোহিত করছে মৌসুমি ফলের চাটনি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৪৯ ঘণ্টা, মে ২৭, ২০২৩
বান্দরবানে পর্যটকদের বিমোহিত করছে মৌসুমি ফলের চাটনি

বান্দরবান: বান্দরবানের প্রাকৃতিক ও ফরমালিনমুক্ত ফলের সুনাম সারাদেশে ছড়িয়েছে অনেক আগেই। জেলায় উৎপাদিত আম, আনারস, কলা ,লিচু আর কাঁঠালের কদর থাকে সারা বছরই।

 

স্থানীয়দের পাশাপাশি বেড়াতে আসা পর্যটকরা নিজ নিজ পছন্দ অনুযায়ী ফল কিনে উপভোগ করতে পছন্দ করে।

পর্যটকদের এমন আকর্ষণে বান্দরবানের শৈলপ্রপাত পর্যটনকেন্দ্রের সামনেই প্রতিদিন পার্বত্য এলাকার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর বম সম্প্রদায়ের বাসিন্দারা নানা মৌসুমি ফল বেচছেন। দেশির পাশাপাশি বিদেশি আম আর কাঁঠাল ও আনারসে ভরপুর এখন গোটা পাহাড়।

এদিকে পর্যটকদের ভ্রমণে নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী বম সম্প্রদায়ের হাতে তৈরি সুস্বাদু মৌসুমি ফলের চাটনি। বাগান থেকে ছিড়ে আনা আম আর আনারসের সুস্বাদু চাটনি খেয়ে নতুন এক নতুন অভিজ্ঞতার মুখোমুখি পর্যটকরা।  

শৈলপ্রপাত এলাকায় বেড়াতে আসা পর্যটকরা আম আর আনারসের নতুন স্বাদের এই চাটনি শুধু খাচ্ছেনই না, এখন নিয়ে যাচ্ছেন পরিবার পরিজনের জন্যেও।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বান্দরবান-চিম্বুক সড়কের শৈলপ্রপাত পর্যটন কেন্দ্রে পর্যটকদের ভিড়। শৈলপ্রপাতের ঝর্ণা, সবুজ পাহাড়ের অপরূপ প্রকৃতি দেখে তারা বিমোহিত। সুযোগটা ভালোই কাজে লাগাচ্ছেন বম সম্প্রদায়ের ১২জন ব্যবসায়ী। শৈলপ্রপাত পর্যটনকেন্দ্রের সামনে ছোট ঝুপড়ি বানিয়ে বিক্রি করছেন আম আর আনারসসহ নানা মৌসুমি ফল। ব্যবসায়ীদের অনেকে ফল বিক্রির পাশাপাশি পর্যটকদের জন্য তৈরি করছে সুস্বাদু আম আর আনারসের চাটনি।

চাটনি কিনতে দোকানে পর্যটকরা

এক বাটি আমের চাটনি ৫০ টাকা আর আনারস এক বাটি ৫০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে। আম, আনারস কেটে পরিষ্কার করে ধুয়ে লবণ, চিনি আর সামান্য মরিচ দিয়েই তৈরি হচ্ছে এই সুস্বাদু চাটনি।

চাটনিবিক্রেতা ফারুকপাড়ার বাসিন্দা নুহই বম বাংলানিউজকে বলেন, প্রতিদিন প্রচুর পর্যটক শৈলপ্রপাতে বেড়াতে আসে আর তাদের জন্য আমরা প্রতিদিনই ফরমালিনমুক্ত তরতাজা চাটনি তৈরি করে বিক্রি করি।  

সুস্বাদু আম ও আনারসের চাটনি

নুহই বম আরও বলেন, মৌসুমি ফলের সময় এলেই আমরা এই ফলের পাশাপাশি চাটনি বিক্রি করি। প্রতিদিন প্রায় ৮০০ থেকে ১০০০ হাজার টাকা বিক্রি করতে পারি। লাভ অল্প হলেও পর্যটকদের ভালো ফল খাওয়াতে পেরে আমরা খুশি।  

চাটনি উপভোগ করে আনন্দিত ঢাকা থেকে বান্দরবানের শৈলপ্রপাতে বেড়াতে আসা মো.ফয়জুর।  

তিনি বলেন, দেশের বহু স্থানে ভ্রমণে গিয়েছি তবে বান্দরবান ভ্রমণের মজাই আলাদা। আর তার সঙ্গে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর বম সম্প্রদায়ের হাতে তৈরি সুস্বাদু চাটনি অতুলনীয়।

বান্দরবান কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক এম এম শাহ নেয়াজ বাংলানিউজকে বলেন, বান্দরবানে ফরমালিনমুক্ত ও প্রাকৃতিকভাবে প্রচুর ফল-ফলাদি সারা বছরই উৎপন্ন হয়ে থাকে। মৌসুম এলে এ উৎপাদন বাড়ে কয়েকগুণ। এ সময় শৈলপ্রপাত এলাকার আম আর আনারসের চাটনি তৈরি হয়, এটা সত্যিই দারুণ। বেড়াতে গিয়ে নির্ভেজাল এক বাটি চাটনি খাওয়ার মজাই আলাদা।  

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৩ ঘণ্টা, মে ২৭, ২০২৩
এসএএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।