ঢাকা, বুধবার, ১১ বৈশাখ ১৪৩১, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৫

পর্যটন

১০০ টাকায় প্রকৃতির সান্নিধ্যে নেবে ‘সাদা পাথর পরিবহন’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১১৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৯
১০০ টাকায় প্রকৃতির সান্নিধ্যে নেবে ‘সাদা পাথর পরিবহন’

সিলেট: প্রকৃতির সান্নিধ্যে নিয়ে যেতে সিলেটে চালু হলো ‘সাদা পাথর পরিবহন’। এসি, নন এসি দু’ধরণের বাসে যাত্রীরা যেতে পারবেন সিলেটের কোম্পানীগঞ্জের সাদা পাথর পর্যটন এলাকায়।

পর্যটকদের ভোগান্তিহীন ভ্রমণের এ সুযোগ করে দিয়েছে স্থানীয় বাস-মিনি বাস মালিক সমিতি। মাত্র একশ’ টাকায় এসি বাসে প্রকৃতির সান্নিধ্যে যেতে পারবেন পর্যটকরা।

রোববার (১৫ ডিসেম্বর) এ বাস সার্ভিসের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হলো। নগরের মজুমদারি এলাকায় বাস সার্ভিসের আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্বোধন করেন সিলেটের জেলা প্রশাসক এম. কাজি এমদাদুল ইসলাম।   

জেলা প্রশাসক বলেন, সিলেট-কোম্পানীগঞ্জ-ভোলাগঞ্জ সড়কে পরিবহন ব্যবসার উজ্জল সম্ভাবনা রয়েছে। সিলেট-কোম্পানীগঞ্জ সড়কের উন্নয়নের ফলে সাদাপাথর পর্যটন এলাকায় পর্যটকের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। অদূর ভবিষ্যতে ভোলাগঞ্জে স্থলবন্দরও হবে। এছাড়া কোম্পানীগঞ্জ সড়কের পাশেই হাইটেক পার্ক নির্মিত হচ্ছে।

পরিবহন মালিকদের প্রতি জেলা প্রশাসক বলেন, শুধু ব্যবসার কথা চিন্তা করলে হবে না, যাত্রীসেবার মানও নিশ্চিত করতে হবে। আর সেবা বাড়লে যাত্রীও বাড়বে।

তিনি আরও বলেন, সিলেটের পর্যটন উন্নয়নে ব্যাপক পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে সরকার। কেবল বিছানাকান্দি পর্যটন কেন্দ্রের উন্নয়নে চার কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড অব্যাহত রয়েছে।

বিশেষ অতিথির সিলেটের পুলিশ সুপার মো. ফরিদ উদ্দিন বলেন, যাত্রীসেবার মান দিয়ে প্রতিযোগিতা করতে হবে। যারা ভালো সেবা দেবেন, যাত্রীরা তাদের বাসে চড়বেন।

তিনি বলেন, মানুষের সুবিধার বিষয়টি সামনে রেখে সিলেট-ভোলাগঞ্জ সড়কে দু’তলা বিআরটিসি বাস চালু হয়েছে। বিআরটিসি বাস চলাচলে কেউ বাধা দিতে পারবেন না।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সিলেট-সালুটিকর-কোম্পানীগঞ্জ-ভোলাগঞ্জ-গোয়াইনঘাট-হাদারপাড়-রাধানগর বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি রিমাদ আহমদ রুবেল।

মালিক সমিতির সদস্য ও সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলের পরিচালনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিলেট চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি ও সাদা পাথর পরিবহনের সভাপতি এটিএম শোয়েব।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আজিজ আহমদ সেলিম, সিলেট চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি চন্দন সাহা, সিসিক কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, সিলেট চেম্বারের পরিচালক এহতেশামুল হক চৌধুরী, সিলেট জেলা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল কবীর পলাশ প্রমুখ।

সংশ্লিষ্টরা জানান, সাদা পাথর পরিবহণ মূলত পর্যটন বাস। এসি, নন এসি দু’ধরণের বাসই চলবে এ সড়কে। সিলেট নগরীর মজুমদারি থেকে ভোলাগঞ্জের পর্যটন কেন্দ্র সাদা পাথরে প্রতিদিন ছেড়ে যাবে এ বাসগুলো। সিলেট-ভোলাগঞ্জ সড়কে প্রতিদিন ২৬টি সাদা পাথর পরিবহন বাস চলাচল করবে। এর মধ্যে ৫টি এসি ও ২১টি নন এসি বাস রয়েছে।

বাস মালিক সমিতির সভাপতি রিমাদ আহমদ রুবেল বাংলানিউজকে বলেন, প্রতিদিন সকাল ৭টা থেকে এক ঘন্টা পর পর সিলেট থেকে বাস ছেড়ে যাবে সাদা পাথর পর্যটন কেন্দ্রে। পথে কেবল কোম্পানীগঞ্জ থানাবাজারে যাত্রী নামাবে। ফেরার পথে সাদা পাথর থেকে যাত্রী নিয়ে আসবে।

তিনি বলেন, যাত্রী প্রতি এসি বাসে ১০০ টাকা, নন এসি বাসে ৭০ টাকা ভাড়া নেওয়া হবে। তবে যাত্রা পথে যাত্রীদের জন্য নাস্তা ও পানি সরবরাহ করা হবে। যাত্রীদের আগ্রহ বুঝে বাসের সংখ্যা আরো বৃদ্ধি করা হতে পারে।  

বাংলাদেশ সময়: ২০১১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৯
এনইউ/এবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।