ঢাকা, রবিবার, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ শাবান ১৪৪৫

ইসলাম

জুমার নামাজে অংশ নিতে খুলনা ইজতেমায় মুসল্লিদের ঢল

ব্যুরো এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৪৩২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৭
জুমার নামাজে অংশ নিতে খুলনা ইজতেমায় মুসল্লিদের ঢল খুলনা ইজতেমায় আগত মুসল্লিরা/ছবি: মানজারুল ইসলাম

খুলনা: জুমার নামাজে অংশ নিতে খুলনা ইজতেমায় মুসল্লিদের ঢল নেমেছে। শুক্রবার (১০ ফেব্রুয়ারি) ইজতেমার দ্বিতীয় দিন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা আসছেন খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের পশ্চিম পাশে জিরোপয়েন্টে ছয় লাখ বর্গফুট এলাকার ইজতেমা ময়দানে।

নামাজের আগেই ইজতেমার পুরো প্যান্ডেল ও ময়দান কানায় কানায় ভরে গেছে। প্যান্ডেলের নিচে জায়গা না পেয়ে মুসল্লিরা মহাসড়কসহ আশপাশের সড়কের ওপর অবস্থান নিয়েছেন।

খুলনা জেলা তাবলিগ জামাত আয়োজিত এ ইজতেমার আখেরি মোনাজাত শনিবার।

টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমার পর দেশের ভিতরে খুলনায় প্রথম জেলা ইজতেমার আয়োজন করা হয়েছে। এতে ২৫টি দেশের প্রায় ৫ লাখ মুসল্লির সমাগম হবে বলে আয়োজক কমিটি আশাবাদী।

খুলনা ইজতেমায় আগত মুসল্লিরা/ছবি: মানজারুল ইসলামইজতেমার সমন্বয়কারী কাজী মো. তারেক জানান, শনিবার বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টার মধ্যে আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে ইজতেমা।

এদিকে ইজতেমা ময়দান এলাকায় অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে চারপাশ ও বাইরের এলাকা সিসিটিভির আওতায় আনা হয়েছে। খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ (কেএমপি) ও র‌্যাব আলাদা আলাদা নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খুলেছে। র‌্যাবের দু’টি টহল গাড়ি ও ময়দানে দু’টি টহল টিম দায়িত্ব পালন করছে।

৬ জন অফিসার, ৮ জন সাদা পোশাকে গোয়েন্দা ও ৪০ জন সশস্ত্র সদস্য আইন-শৃঙ্খলায় নিয়োজিত রয়েছেন।

খুলনা ইজতেমায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা/ছবি: মানজারুল ইসলামসিনিয়র সহকারী পরিচালক জাহিদ হোসেন মনিটরিং করছেন। প্রবেশদ্বারের পাশেই র‌্যাবের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। কেএমপির পক্ষ থেকে খোলা হয়েছে দু’টি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ। ৫৪টি সিসি ক্যামেরা ও দু’টি ওয়াচটাওয়ার রয়েছে। সাদা পোশাকে ও পোশাকে ২ হাজার পুলিশ নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছে।

এরই মধ্যে লাখো মুসল্লি সেখানে সমবেত হয়েছেন। বিভিন্ন জেলার যুবক, কিশোর, বয়োজ্যেষ্ঠ সব শ্রেণীর মানুষ ইজতেমায় এসেছেন।

আয়োজকরা মনে করছেন, ইজতেমা মাঠে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া জুমার নামাজ খুলনায় এ যাবতকালের বৃহত্তম জুমার জামাত।

বাংলাদেশ সময়: ১০২৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৬
এমআরএম/এএ

 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।