ঢাকা, রবিবার, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ১৩ জুন ২০২১, ০২ জিলকদ ১৪৪২

জাতীয়

মুভমেন্ট পাসের জন্য মিনিটে ১৫ হাজার আবেদন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৫৩ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৩, ২০২১
মুভমেন্ট পাসের জন্য মিনিটে ১৫ হাজার আবেদন

ঢাকা: কঠোর লকডাউনে জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হতে ‘মুভমেন্ট পাস’ চালু করেছে পুলিশ। আর অ্যাপসটি উদ্বোধনের পর থেকে হিমসিম খেতে হচ্ছে সংশ্লিষ্টদের।

মিনিটে জমা পড়ছে ১৫ হাজার আবেদন।

পুলিশ সদরদপ্তর সূত্র জানায়, ‘মুভমেন্ট পাস’ অ্যাপসটি চালুর পর প্রথম ঘণ্টায় মোট আবেদন জমা পড়েছে ১ লাখ ২৫ হাজার। আর প্রতি মিনিটে প্রায় ১৫ হাজার আবেদন জমা পড়ছে।  

পুলিশ সদর দপ্তরের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, মুভমেন্ট পাস অ্যাপসটি উদ্বোধনের পর থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টা পর্যন্ত ৬ লাখ মানুষ পাসটি পেতে চেয়েছেন। এর মধ্যে প্রায় ৬০ হাজার মানুষ পাসের জন্য রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে পেরেছেন। যাদের মধ্যে প্রায় ৩০ হাজার পাস এরই মধ্যে ইস্যু করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, কারও জরুরি প্রয়োজনে বাইরে যেতে হলে, আগের দিন সব তথ্যসহ আবেদন জমা দেবেন। দায়িত্বরতরা কারণ বিবেচনায় পাস সরবরাহ করবেন। যা পরদিন চলাচলের সময় পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের সম্মুখীন হলে দেখাতে হবে।

করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে লকডাউনে মানুষজনের অনিয়ন্ত্রিত ও অপ্রয়োজনীয় চলাফেরা নিয়ন্ত্রণ এবং জরুরি প্রয়োজনে বাইরে যাওয়ার জন্য বাংলাদেশ পুলিশ এ অ্যাপস তৈরি করেছে বলে জানানো হয়।

মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) রাজারবাগ পুলিশ অডিটোরিয়ামে এ পুলিশ পাস অ্যাপসের উদ্বোধন করেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

এ www.movementpass.police.gov.bd ওয়েবসাইট থেকে পাসটি সংগ্রহ করা যাবে। একটি মুভমেন্ট পাস ব্যবহার করে সর্বোচ্চ তিন ঘণ্টা বাইরে থাকা যাবে এবং একটি পাস একবারই ব্যবহার করা যাবে।

এ সময় পাসের অপব্যবহারের সম্ভাবনা প্রসঙ্গে আইজিপি বলেন, এ মহামারির মধ্যেও কেউ যদি এ ধরনের প্রতারণা করে বাইরে বের হওয়ার চেষ্টা করে আমরা তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেবো। খুব জরুরি প্রয়োজনে এ পাস ব্যবহার করা যাবে। কেউ তার ফোন নম্বর এবং গাড়ির নম্বর প্লেট দিয়ে আবেদন করে পাস নিতে পারেন।

তিনি বলেন, করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণ কিংবা জরুরি কেনাকেটায় মুভমেন্ট পাস নেওয়া যাবে। এমনি কোনো রোগীর জন্য যদি অ্যাম্বুলেন্সে করে যাওয়া দরকার হয় তাহলেও মুভমেন্ট পাস দরকার হবে।

পাসটি পেতে ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজের একটি অ্যাকটিভ মোবাইল ফোন নম্বর দিতে হবে। এরপর আবেদনকারীর কাছ থেকে তথ্য জানতে চাওয়া হবে। এরপর আবেদনকারী তার একটি ছবি আপলোড করে আবেদনটি জমা দেবেন। দেওয়া তথ্যের ওপর ভিত্তি করে কাউকে পাস দেওয়ার বিষয়টি নির্ভর করবে।

আইজিপি বেনজীর আহমেদ বলেন, আমরা আগামীকাল থেকে লকডাউনে কাউকে রাস্তাঘাটে ও বাইরে দেখতে চাই না। আমরা চাই চাপপ্রয়োগের চেয়ে নিজেদের উদ্যোগেই এ দায়িত্ব পালন করবেন।

আইজিপি বলেন, যদি কেউ মুভমেন্ট পাস না নিতে চান, আমরা তাকে জোর করবো না। এটাতে জোর-জবরদস্তির কিছু নেই। আমরা কেবল জনগণকে সহায়তা করছি। যদি কারো প্রয়োজন না হয় তবে তিনি মুভমেন্ট পাস নেবেন না, এখানে কোনো আইনি ইস্যু নেই।

তবে কেউ যদি মুভমেন্ট পাস ছাড়া বাড়ির বাইরে বেরিয়ে আসেন তাহলে পুলিশি জেরার মুখে পড়তে হতে পারে বলেও ইঙ্গিত দেন তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪০ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৩, ২০২১
পিএম/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa