ঢাকা, বুধবার, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

‘সাম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় সরকার ব্যর্থ’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯২০ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৯, ২০২১
‘সাম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় সরকার ব্যর্থ’ ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে আলোচনা সভা

ঢাকা: জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের এমপি বলেছেন, সাম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্র মোকাবিলা ও পূজামণ্ডপের নিরাপত্তা রক্ষায় সরকার পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে। এছাড়া সারাদেশে সহিংসতা রোধে কোনো সাফল্য নেই সরকারের।

 

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) বিকেলে পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয় কাকরাইল মিলনায়তনে ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।  

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির হাজার বছরের ঐতিহ্য রয়েছে আমাদের। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ঐতিহ্য ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। সারা পৃথিবীতে আমাদের সম্প্রীতির ইমেজ ধ্বংস হয়ে এখন নেতিবাচক ইমেজ তৈরি হচ্ছে। শারদীয় দুর্গাপূজায় কখনোই হামলার ঘটনা ঘটেনি, এখন কেন ঘটছে তা অবশ্যই খতিয়ে দেখতে হবে। গোয়েন্দা সংস্থা ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা কেন ব্যর্থ হলো তা অবশ্যই খতিয়ে দেখতে হবে। দোষীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।  

তিনি আরও বলেন, উত্তেজনাকর পরিস্থিতিতে একজন প্রতিমন্ত্রী রাষ্ট্রধর্ম মানি না বলে, উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। তার বক্তব্য কোটি কোটি ধর্মপ্রাণ মানুষের অন্তরে আঘাত করেছে। ওই প্রতিমন্ত্রী মন্ত্রী সংবিধান সংরক্ষণের শপথ ভঙ্গ করেছেন। ২০১১ সালে আওয়ামী লীগ সরকার পঞ্চদশ সংশোধনীতে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বহাল রেখেছে। তাই রাষ্ট্রধর্ম ইসলামের বিরুদ্ধে কথা বলে ওই মন্ত্রী দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছেন। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।  

সভায় জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, রাসুল (সা.) ইহুদিদের সঙ্গে চুক্তি করে সবার ধর্ম পালনের অধিকার নিশ্চিত করেছিলেন। এটিই পৃথিবীর সর্বপ্রথম অসাম্প্রদায়িক চুক্তি। পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ইসলামকে রাষ্ট্রধর্ম ঘোষণা করে সব ধর্মের সমান অধিকার নিশ্চিত করেছিলেন।  

তিনি বলেন, পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের শাসনকালে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর কখনো হামলার ঘটনা ঘটেনি। ধর্মনিরপক্ষে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দেশ পরিচালনা করলেই সংখ্যালঘুদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।  

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. সাহিদুর রহমান টেপা, মীর আব্দুস সবুর আসুদ, হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, মো. শফিকুল ইসলাম সেন্টু, অ্যাডভোকেট মো. রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, নাজমা আক্তার এমপি, লিয়াকত হোসেন খোকা এমপি, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা- সেলিম উদ্দিন, ড.নূরুল আজহার শামীম, জহিরুল আলম রুবেল, হেনা খান পন্নী, অ্যাড. লাকি বেগম, ভাইস চেয়ারম্যান মো. আরিফুর রহমান খান, নিগার সুলতানা রানী, এইচ এম শাহারিয়ার আসিফ, যুগ্ম-মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, মো. সামছুল হক, ফখরুল আহসান শাহজাদা, মো. বেলাল হোসেন প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২০ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৯, ২০২১
এসএমএকে/এমআরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa