ঢাকা, শনিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

রাজনীতি

সময় হলেই নির্দলীয় সরকারের ফর্মুলা: মির্জা ফখরুল

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৩৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২২
সময় হলেই নির্দলীয় সরকারের ফর্মুলা: মির্জা ফখরুল

ঢাকা: নির্দলীয় সরকারের ফর্মুলা সময় হলেই দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টায় গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব এ কথা জানান।

তিনি বলেন, এটা তো আমরা যখন সময় আসবে, তখন সেই (নির্দলীয় সরকার) ফর্মুলা আমরা দিয়ে দেবো অবশ্যই।

‘আমরা কার কাছে পদত্যাগ করব’- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে মির্জা ফখরুল বলেন, উনারা নিরপেক্ষ যে তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন হবে তাদের কাছে পদত্যাগ করবেন।

সেটার জন্য সংবিধান সংশোধনের প্রয়োজন হবে প্রশ্নকর্তা এমন প্রশ্ন তুললে তিনি বলেন,  সেই সংবিধান সংশোধনে তাদেরকেই উদ্যোগ নিতে হবে। কারণ ক্রাইসিসটা তারা তৈরি করেছে এবং দায়িত্বটাও তাদের। জনগণের দাবি যেহেতু এটা, তা মেনে নিয়ে তাদেরকে অবশ্যই সেই উদ্যোগ নিতে হবে। যেমন আমরা করেছিলাম ১৯৯৬ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বিধান পার্লামেন্টে পাস করে সংশোধন করেছিলাম। সেই একইভাবে করা যেতে পারে।

‘এটা আমি আমরা কথা বলছি, এটা আমার দলের সিদ্ধান্ত নয়। আমরা এখনো এ ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত দিইনি। কিন্তু এটাই হচ্ছে পদত্যাগের একমাত্র পথ। ’ যোগ করেন বিএনপি মহাসচিব।  

যুগপৎ আন্দোলনের রূপরেখার বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, এ রুপরেখা খুব শিগগিরই আসবে। খুব তাড়াতাড়ি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, এশিয়ান উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী ডিজিটাল জ্ঞানে পিছিয়ে থাকা বাংলাদেশে ইন্টারনেট প্রবৃদ্ধি অন্যতম প্রতিবন্ধকতা উল্লেখ করে শেখ হাসিনার পুত্র ও প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সজীব ওয়াজেদ জয়ের ব্যর্থতার একটা আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে বলে স্থায়ী কমিটির সভা মনে করে। ডিজটাল বাংলাদেশ তৈরি করার যে দাবি তার অসারতা প্রমাণ হয়েছে।

সামাজিক মাধ্যমে ব্যবহারে প্রাথমিক শিক্ষকদের করণীয় বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের সার্কুলার জারির নিন্দা জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, এটা উদ্বেগজনক। এই সার্কুলারে এটাই প্রমাণিত হয় যে, এই সরকার যে কর্তৃত্ববাদী সরকার, আমরা যে বলছি এই সরকার বাক স্বাধীনতায় সর্বক্ষেত্রে হস্তক্ষেপ করছে সেটা আরও প্রমাণিত হয়েছে। এই সার্কুলার জারির মধ্য দিয়ে এখন চলমান আন্দোলনকে দমন করার ক্ষেত্রে আরেকটি নজির স্থাপন করলো সরকার।
 
বাংলাদেশের গুম, বিনা বিচারে হত্যাকাণ্ড, সরকারি দমন নীতি এবং নির্বাচন সম্পর্কে নিউইয়র্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া বক্তব্য, গণখাতে ক্রয় আইন লঙ্ঘন করে ক্রয় প্রক্রিয়ায় তৃতীয় পক্ষকে যুক্ত করে বাজারমূল্যের চেয়ে বেশি দামে রাশিয়া থেকে গম আমদানি এবং তিন গুন বাড়তি দামে রাশিয়ান কোম্পানি গ্যাজপ্রমের সঙ্গে জনস্বার্থ পরিপন্থি ভোলায় তিনটি গ্যাস কুপ খননের চুক্তির সম্পাদনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে স্থায়ী কমিটি বলে জানান মহাসচিব।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২২
এমএইচ/এসএ
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa