ঢাকা, শনিবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

শিল্প-সাহিত্য

ঐতিহ্য আর আধুনিকতার মিশেল, মাতোয়ারা আর্মি স্টেডিয়াম

বাংলানিউজ টিম | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬১৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ১০, ২০১৬
ঐতিহ্য আর আধুনিকতার মিশেল, মাতোয়ারা আর্মি স্টেডিয়াম ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

গানগুলো ঐতিহাসিক, শত-শত বছর ধরে সংস্কৃতির ধারক এই ফোক গান। আর সেসব ঐতিহাসিক গানের কম্পোজিশনটা যদি হয় আধুনিক যন্ত্রের মিশেলে, সেটা তৈরি করে অন্য রকম আমেজ।

ঢাকা: গানগুলো ঐতিহাসিক, শত-শত বছর ধরে সংস্কৃতির ধারক এই ফোক গান। আর সেসব ঐতিহাসিক গানের কম্পোজিশনটা যদি হয় আধুনিক যন্ত্রের মিশেলে, সেটা তৈরি করে অন্য রকম আমেজ।



ইস্ট আর ওয়েস্টের মিলন ঘটেছে রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামে। আন্তর্জাতিক লোকসঙ্গীত উৎসব চলছে স্টেডিয়ামে। যান্ত্রিক শহরে পুরো স্টেডিয়ামে আজ এক চিলতে প্রাণের ছোঁয়া।

যখন রাত নয়টা, মঞ্চে এসেছেন স্কটল্যান্ডের সায়মন থ্যাকার্স আর উপমহাদেশের রাজু দাস বাউল। তখনও দর্শক বুঝে উঠতে পারেননি কী অপেক্ষা করছে তাদের জন্য।

রাজুর ‘হরি দিনতো গেলো, সন্ধ্যা হল’ গান দিয়ে শুরু। গানের সাথে সায়মন থ্যাকার্সের গিটারের ঝংকারে তখন মাতোয়ারা পুরো আর্মি স্টেডিয়াম।
তারপর আব্দুল করিমের ‘তোমরা কুঞ্জ সাজাও গো গান রাজুর কণ্ঠে’, সেই সাথে থ্যাকার্সের গিটারের বাজনা সবমিলে ভিন্ন মাত্রা যেন পেয়েছিল।

ততক্ষণে দর্শকদের উচ্ছ্বাস যেন আর থামছিলোই না। নেচে নেচে একসাথে গেয়ে উদযাপন করছেন সবাই ‘শেকড়ের গান, প্রাণের গান’।


ঐতিহ্য আর আধুনিকতার চমকের সাথে ততক্ষণে এই দলে যোগ দিয়েছেন ফরিদা ইয়াসমিন। লালনগীতি ‘হেলায় হেলায় দিন বয়ে যায়’ দিয়ে শুরু করলেন মঞ্চে এসেই। সময়ের সাথে সাথে ফোক ফেস্টের মুগ্ধতা ক্রমেই ছাড়িয়ে যাচ্ছে।

** ‘বাংলার হৃদয়ে মিশে আছে লোকসংগীত’

**শুরু হলো ৩ দিনব্যাপী লোকসংগীত উৎসব


বাংলাদেশ সময়: ১০১৩ ঘণ্টা, নভেম্বর ১০, ২০১৬
পিএম/এসজে/আরআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।