ঢাকা, বুধবার, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১, ২৪ জুলাই ২০২৪, ১৭ মহররম ১৪৪৬

বাজেট

শুল্কফাঁকি রোধে সোনার অলংকারের সংজ্ঞা নির্ধারণের সুপারিশ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৭ ঘণ্টা, জুন ৬, ২০২৪
শুল্কফাঁকি রোধে সোনার অলংকারের সংজ্ঞা নির্ধারণের সুপারিশ

ঢাকা: প্রস্তাবিত (২০২৪-২৫) অর্থবছরের বাজেটে ব্যাগেজ বিধিমালা সংশোধন ও যৌক্তিকীকরণের অংশ হিসেবে কাস্টমস শুল্কফাঁকির প্রবণতা রোধে সোনার অলংকারের সংজ্ঞা নির্ধারণ বা অন্তর্ভুক্ত করার সুপারিশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

বৃহস্পতিবার (৬ জুন) বিকেল ৩টায় জাতীয় সংসদে ২০২৪-২০২৫ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন বক্তব্যে এ সুপারিশ করেন তিনি।

বাজেট প্রস্তাব অধিবেশনের সভাপতিত্ব করছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। অধিবেশনে উপস্থিত আছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

অর্থমন্ত্রী জানান, ব্যাগেজ বিধিমালা ২০২৩’এ পরিবর্তন আনছে সরকার। সেই সঙ্গে নতুন নিয়মও চালু করা হচ্ছে। ২০২৪–২৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যাগেজ বিধিমালা ২০২৩’র দুই ধারায় সোনার অলংকার ও গয়নার উপযুক্ত সংজ্ঞা অন্তর্ভুক্ত করার সুপারিশ করেন তিনি।

আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো থেকে যাত্রীরা অল্প ডিজাইন করে ২৪ ক্যারেটের কাঁচা সোনাকে গয়না হিসেবে লুকিয়ে আনার মাধ্যমে শুল্ক এড়ানোর চেষ্টা করেন। এ সমস্যার মোকাবিলায় সোনার অলংকার ও গয়নার উপযুক্ত সংজ্ঞা নির্ধারণের প্রস্তাব করছি। এছাড়া ব্যাগেজ বিধিমালার নতুন নিয়ম অনুসারে এখন থেকে যাত্রীদের সঙ্গে না থাকা (আনঅ্যাকোম্পানিড) ব্যাগেজ সংগ্রহে শুল্ক কর দিতে হবে।

এর আগে প্রাক-বাজেট আলোচনায়, স্বর্ণ নীতিমালা-২০১৮ (সংশোধিত-২০২১) এর ৮ দশমিক ২ উপধারা অনুসারে ব্যাগেজ রুলস সংশোধনের মাধ্যমে পর্যটক কর্তৃক সোনার বার দেশে আনা বন্ধ করার দাবি জানায় বাংলাদেশ জুয়েলার্স অ্যাসোসিয়েশন (বাজুস)। তাদের অন্যান্য প্রস্তাবের মধ্যে ছিল একটি আইটেমের জুয়েলারি পণ্য দুটির বেশি আনার সুযোগ না দেওয়া ও পার্শ্ববর্তী দেশগুলোর সঙ্গে ব্যাগেজ রুলসের সমন্বয় করা। পাশাপাশি একজন যাত্রীকে বছরে শুধু একবার ব্যাগেজ রুলের সুবিধা দেওয়ার দাবি জানায় সংগঠনটি।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০৭ ঘণ্টা, জুন ৬, ২০২৪
জিসিজি/এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।