ঢাকা, বুধবার, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

কর্পোরেট কর্নার

মাল্টি মিলিয়ন রিসার্চ গ্র্যান্ট পেল আইইউবির গবেষক দল 

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬১১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১
মাল্টি মিলিয়ন রিসার্চ গ্র্যান্ট পেল আইইউবির গবেষক দল  অধ্যাপক ড. সালিমুল হক ও অধ্যাপক শাহ এম ফারুক

ঢাকা: ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ (আইইউবি) এর একদল গবেষক সাম্প্রতিক সময়ে গবেষণায় মাল্টি মিলিয়ন রিসার্চ গ্র্যান্ট পেয়েছেন। তাদের এই অসামান্য সফলতা অর্জনের ফলে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে আইইউবির অধ্যাপক-ছাত্রছাত্রীদের গবেষণার সুযোগ ত্বরান্বিত হয়েছে এবং আইইউবি এই অর্জনে গর্ববোধ করে।

 

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) আইইউবি থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

গবেষকদের অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তি আইইউবির জন্য অত্যন্ত সম্মানের উল্লেখ করে, আইইউবির উপাচার্য তানভীর হাসান বলেন, ‘জ্ঞান-বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় বিশ্বমানের গবেষণাকে আইইউবি সহযোগিতা ও উৎসাহ দিয়ে থাকে। এই অর্জন আইইউবির অসামান্য গবেষণা পরিবেশের স্বীকৃতি দেয়। ’

তাদের এই অর্জন বাংলাদেশে পরিচালিত মানসম্মত সায়েন্টিফিক গবেষণার ওপর দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব ফেলবে বলেও তিনি মনে করেন।  

আইইউবির এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড লাইফ সায়েন্সেসের ডিন বিশিষ্ট বিজ্ঞানী অধ্যাপক শাহ এম ফারুকের গবেষণায় অসাধারণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংস্থা ‘ওয়েলকাম ট্রাস্ট’ কলেরার মতো পানিবাহিত মহামারি নিয়ন্ত্রণে গবেষণা করতে ও জনসাধারণের মধ্যে পানিবাহিত রোগ সম্পর্কে সচেতনতা  সৃষ্টির লক্ষে আগামী আড়াই বছরের জন্য প্রায় এক দশমিক দুই মিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রদান করবে। বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বিজ্ঞানীদের সমন্বয়ে একটি প্যানেলের মাধ্যমে নির্বাচিত হয়ে অধ্যাপক ফারুক এই সিনিয়র ইনভেস্টিগেটর অ্যাওয়ার্ডটি পেয়েছেন। বাংলাদেশের একমাত্র বিজ্ঞানী হিসেবে তিনি এই অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন।

আইইউবির ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যান্ড ডেভলপমেন্টের পরিচালক অধ্যাপক ড. সালিমুল হক নরহেড (নরওয়েজিয়ান প্রোগ্রাম ফর ক্যাপাসিটি ডেভেলপমেন্ট ইন হায়ার এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ) থেকে অত্যন্ত সম্মানিত কলোক্যাল গ্রান্ট পেয়েছেন। অধ্যাপক ড. সালিমুল হক ২০১৯ ও ২০২০ সালে জলবায়ু পরিবর্তন নীতি প্রণয়নের ভূমিকার জন্য শীর্ষ বিশ প্রভাবশালীদের একজন হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন। তিনি বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী জলবায়ু বিজ্ঞানীদের মধ্যে একমাত্র বাংলাদেশি বিজ্ঞানী হিসেবে রয়টার্সের হটলিস্টে ২০৮ তম স্থান অর্জন করেছেন। আইইউবির এনভাইরনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের প্রধান ড. খন্দকার আয়াজ রাব্বানি এই প্রকল্পের সমন্বয়কারী হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।  

ছয় বছরের (২০২১-২০২৬) এ প্রকল্পের মধ্যে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো- মেকেরের ইউনিভার্সিটি (উগান্ডা), এডুয়ার্ডো মন্ডলেন ইউনিভার্সিটি (মোজাম্বিক), পোখারা ইউনিভার্সিটি (নেপাল), স্কুল অব এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট ও নরওয়েজিয়ান ইউনিভার্সিটি অব লাইফ সায়েন্সেস (নরওয়েজিয়ান ইনস্টিটিউশন)।  

গবেষণাটি স্বল্পোন্নত দেশে জলবায়ু পরিবর্তনের স্থানীয় অভিযোজন নিয়ে সম্প্রতি ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ প্রোগ্রামের সমন্বয়কারী বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে কাজ করছে। এই প্রকল্পের মোট তহবিল ২০ লাখ ডলার। দু’টি গ্রান্টই আইইউবির জন্য আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সম্মান বৃদ্ধি করবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১
এমআরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa