ঢাকা, বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

আদালত

দুর্ঘটনায় আহতের তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিতে রুল

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩০১ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৫, ২০১৮
দুর্ঘটনায় আহতের তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিতে রুল

ঢাকা: দুর্ঘটনায় আহত যে কোনো ব্যক্তিকে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা সেবা দিতে দেশের সকল হাসপাতাল ও ক্লিনিককে নির্দেশনা দিতে সরকারের প্রতি রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

জনস্বার্থে দায়ের করা এক রিটের শুনানি নিয়ে সোমবার (০৫ ফেব্রুয়ারি) বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন।

রাজধানীতে পৃথক দু’টি ছিনতাইয়ের ঘটনায় দুই ব্যক্তির প্রাণহানির পর প্রকাশিত প্রতিবেদন হিউম্যান রাইটস পিস ফর বাংলাদেশ (এইচআরপিবি) এর পক্ষে অ্যাডভোকেট ছারওয়ার আহাদ চৌধুরী ও মাহবুবুল ইসলাম এ রিট আবেদন করেন।

রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ।

তিনি জানান, গত ২৬ জানুয়ারি ভোরে সায়েদাবাদ এলাকায় ছিনতাইকারীর উপর্যপুরি ছুরিকাঘাতে আহত খুলনার ব্যবসায়ী মো. ইব্রাহিম নিজেই নিকটস্থ টিকাটুলির সালাহউদ্দিন হাসপাতালে যান। কিন্তু সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে অস্বীকার করে হাসপাতালটি।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যাওয়ার পরামর্শ দেয়। পরে ঢাকা মেডিকেলে গেলেও চিকিৎসা পাওয়ার আগেই মারা যান ইব্রাহিম।  

এছাড়া রাজধানীর ধানমন্ডির ৭ নম্বর রোডে মিরপুর সড়কের ক্রসিংয়ে বরিশাল থেকে এসে ভোরে স্বামীর হাত ধরে রাস্তা পার হচ্ছিলেন গ্রিন লাইফ হাসপাতালের পরিচ্ছন্ন কর্মী হেলেনা বেগম। রাস্তার মাঝামাঝি অংশে আসতেই ছিনতাইকারীরা চলন্ত প্রাইভেটকার থেকে হেলেনা বেগমের ভ্যানিটি ব্যাগ ধরে আচমকা টান দেয়।

ছিনতাইকারীর টানে হেলেনা বেগম ব্যাগসহ প্রাইভেট কারের সঙ্গে ঝুলে পড়েন। ওই অবস্থায় ছিনতাইকারীরা গাড়ির গতি বাড়িয়ে দিলে হেলেনা বেগম গাড়ির নিচে পড়ে যান। তখন তার মাথার উপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে চলে যায় ছিনতাইকারীরা। সঙ্গে সঙ্গেই ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়।

মনজিল মোরসেদ বলেন, এসব ঘটনা উল্লেখ করে রিটের পর আদালত রুল জারি করেছেন। রুলে খুলনার ব্যবসায়ী মো. ইব্রাহিম ও গ্রিন লাইফ হাসপাতালের কর্মীর জীবন রক্ষায় ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের নিস্ক্রিয়তাকে কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না এবং যে কোনো দুর্ঘটনায় আহত যেকোনো রোগীকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে দেশের সকল হাসপাতাল ও ক্লিনিকের প্রতি নির্দেশনা জারি করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

এছাড়াও ইব্রাহিমের পরিবারকে ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে সালাহউদ্দিন স্পেশালাইজড হাসপাতালকে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তাও জানতে চাওয়া হয়েছে।

দুই  সপ্তাহের মধ্যে স্বাস্থ্য সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, স্বাস্থ্য অধিদফতর ও বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের মহাপরিচালক, ডিএমপি কমিশনার, গেণ্ডারিয়া, যাত্রাবাড়ী, ধানমন্ডি, ওয়ারী থানার ওসি ও সালাহউদ্দিন স্পেশালাইজড হাসপাতালকে রুলের জাবাব দিতে বলা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৫, ২০১৮
ইএস/এমএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।