ঢাকা, রবিবার, ৮ কার্তিক ১৪২৮, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আদালত

‘শিশু অপরাধের বিচার করতে হবে আদালতের সময়ের বাইরে’

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৫৬ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০১৮
‘শিশু অপরাধের বিচার করতে হবে আদালতের সময়ের বাইরে’ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, আদালতের কাঠগড়া ও লালসালু ঘেরা কক্ষের পরিবর্তে একটি সাধারণ কক্ষে শিশুদের বিচার করতে হবে। তা হতে হবে আদালতের দিবস এবং সময়ের বাইরে অন্য কোনো দিবস বা সময়ে। কিন্তু আমাদের আলাদা কোনো শিশু আদালত কক্ষ নেই।

রোববার (১২ আগস্ট) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে 'শিশু আদালত কক্ষ' উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের জগন্নাথ সোহেল মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সুপ্রিম কোর্ট স্পেশাল কমিটি অন চাইল্ড রাইটসের (এসসিএসসিসিআর) সভাপতি বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী।

এ সময় জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক তহবিল ইউনিসেফের বাংলাদেশ প্রতিনিধি সীমা সেনগুপ্ত উপস্থিত ছিলেন। ইউনিসেফের অর্থায়নে শিশু আদালত কক্ষটি সংস্কার করা হচ্ছে।

প্রধান বিচারপতি মাহমুদ হোসেন বলেন, কোনো শিশুই অপরাধী হিসেবে জন্মায় না, পরিবেশ পরিস্থিতিই তাকে অপরাধী করে তোলে। কিছু স্বার্থান্বেষী মানুষের আশ্রয়ে তারা অপরাধ জগতের বিভিন্ন পর্যায়ে বিচরণ করে। আর অসংখ্য মামলার ভারে ভারাক্রান্ত অতিরিক্ত দায়রা জজদের দায়িত্বের অতিরিক্ত হিসাবে শিশু আদালতের দায়িত্ব পালন করতে হয়।

তিনি বলেন, সারাদেশের শিশু আদালতসমূহে ২১ হাজার ৫০৩টি মামলা বিচারাধীন। আর ঢাকার শিশু আদালতে বিচারাধীন আছে ১ হাজার ১২৪টি মামলা। এছাড়া ঢাকার জেলা আদালতে ৪ লাখ ৩৯ হাজার ২৫২টি মামলা বিচারাধীন আছে। চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত ঢাকার আদালতসমূহে ১ লাখ ২১ হাজার ১৭২টি মামলা নিষ্পত্তি হয়েছে।

অনুষ্ঠানে আদালতের কর্মঘণ্টা পূর্ণ ব্যবহার করে মামলা নিষ্পত্তির হার দ্বিগুণ করতে বিচারকদের প্রতি আহ্বান জানান প্রধান বিচারপতি।

সভাপতির বক্তব্যে বিচারপতি ইমান আলী বলেন, দুই বছর আগে এসসিএসসিসিআর কার্যক্রম শুরু করে। এর মূল লক্ষ্যই হলো ২০১৩ সালের শিশু আইন বাস্তবায়ন করা। শিশুদের বিচার ব্যবস্থায় আজ একটি স্মরণীয় দিন। এদিন ঢাকার আদালতে শিশুদের জন্য একটি আদালত কক্ষ উদ্বোধন করা হলো।  

ইউনিসেফ প্রতিনিধি সীমা সেনগুপ্ত বলেন, শিশু অধিকার বাস্তবায়নে ইউনিসেফ কাজ করে যাচ্ছে। ঢাকার আদালতে শিশুদের জন্য আলাদা শিশু আদালত কক্ষ উদ্বোধন করতে পেরে আমরা গর্বিত। শিশু অধিকার রক্ষায় এটি একটি বড় পদক্ষেপ।

এ সময় ঢাকা জেলা ও দায়রা জজ মো. হেলাল চৌধুরী, মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েস, ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাহিদুল কবির, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইফুজ্জামান হিরো, বিশেষ জজ আদালত, দ্রুত বিচার আদালত, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল, ঢাকা জেলা ও দায়রা জজ আদালত, ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত, ঢাকা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ও ঢাকা চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারকরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে ঢাকা আইনজীবী সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা খান, ঢাকা বারের আইনজীবী ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৬ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০১৮
এমআই/ওএইচ/এমএ 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa