ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২১ মে ২০২৪, ১২ জিলকদ ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

জুন মাসে আগরতলা-চট্টগ্রাম রুটে ফ্লাইট চালু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮৫৫ ঘণ্টা, মে ৩, ২০২৩
জুন মাসে আগরতলা-চট্টগ্রাম রুটে ফ্লাইট চালু

আগরতলা (ত্রিপুরা): এবছরের জুন মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে আগরতলা ও বাংলাদেশের চট্টগ্রাম রুটে আন্তর্জাতিক বিমান পরিষেবা চালু হবে। পাশাপাশি সে সময়ই আগরতলার মহারাজা বীর বিক্রম বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হবে।

কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রক থেকে মুখ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. মানিক সাহাকে লেখা এক চিঠিতে একথা উল্লেখ করা হয়েছে।

ত্রিপুরা সরকারের পরিবহন মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী মঙ্গলবার (২ মে) সন্ধ্যার পর মহাকরণের সাংবাদিকদের একই কথা জানিয়েছেন।  

পরিবহনমন্ত্রী আরো জানান, সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী ডা. সাহা তার দিল্লী সফরে রাজ্যের পরিবহন সংক্রান্ত বিভিন্ন দাবি দাওয়া নিয়ে কেন্দ্রীয় বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রকের মন্ত্রী জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার সঙ্গে সাক্ষাত করেন। মুখ্যমন্ত্রীর সেই দাবি দাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় বেসামরিক বিমান পরিহণ মন্ত্রক যে সমস্ত উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সে বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠির মাধ্যমে অবহিত করা হয়।  

মুখ্যমন্ত্রীর কাছে প্রেরিত সেই চিঠির বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরে পরিবহনমন্ত্রী জানান, গত ২৪ এপ্রিল, ২০২৩ ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রীয় বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রকের মন্ত্রী জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার সঙ্গে সাক্ষাত করে মহারাজা বীর বিক্রম বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হিসেবে ঘোষণা করার দাবি জানিয়েছিলেন। মুখ্যমন্ত্রীর সেই দাবিটি কেন্দ্রীয় বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রক গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করছে বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে। দিল্লী সফরকালে মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যে কার্গো সার্ভিস পুনরায় চালু করার দাবি জানিয়েছিলেন। সেই দাবির পরিপ্রক্ষিতে কিছু দিন আগে ইন্ডিগো বিমান পরিবহন সংস্থা কার্গো পরিষেবা চালু করেছে। খুব শীঘ্রই অন্যান্য বিমান সংস্থাগুলিও কার্গো পরিষেবা চালু করবে বলে পরিবহন মন্ত্রী আশা ব্যক্ত করেন।

পরিবহনমন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী জানান, মহারাজা বীর বিক্রম বিমানবন্দর থেকে রাত্রিকালীন বিমান পরিষেবা চালুর দাবিটি রাজ্যবাসীর দীর্ঘদিনের। সম্প্রতি দিল্লী সফরকালে মুখ্যমন্ত্রীও কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রকের মন্ত্রী জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার কাছে এই পাবি জানিয়েছিলেন। কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রক মুখ্যমন্ত্রীর এ দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে।  

তিনি আরও জানান, মুখ্যমন্ত্রী তার দিল্লী সফরকালে রাজ্যের ঊনকোটি জেলার কৈলাসহর বিমানবন্দরকে পুনরায় চালু করার দাবি জানিয়েছিলেন। সেই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে ‘উড়ান’ প্রকল্পে দেশের ৫০টি বিমানবন্দরের উন্নয়ন করার যে পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে তারমধ্যে কৈলাসহর বিমানবন্দরও রয়েছে বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে।  

পরিবহণমন্ত্রী জানান, রাজ্যের ৬টি স্থানে হেলিপোর্ট নির্মাণের জন্যও মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রীয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রকের মন্ত্রী নিকট দাবি জানিয়েছিলেন। এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে উড়ান স্কিমে মাতাবাড়ি, অমরপুর, নারিকেলকুঞ্জ, কনপুইতে হেলিপোর্ট স্থাপনের বিষয়টি সংক্ষিপ্ত তালিকায় রাখা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ০৮৫৩ মে ৩, ২০২৩
এসসিএন/ এসএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।