ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ বৈশাখ ১৪৩১, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৮ শাওয়াল ১৪৪৫

লাইফস্টাইল

যে কারণে বই পড়া উচিত

লাইফস্টাইল ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৫২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২৪
যে কারণে বই পড়া উচিত

বই পড়লে জ্ঞান বাড়ে। এই কথা সবার জানা।

জ্ঞান বাড়ার পাশাপাশি বই বিনোদনেরও উৎস। কিন্তু এর বাইরেও বই পড়ার রয়েছে আরও কিছু উপকারিতা। সেগুলোর বিষয়ে সচরাচর শোনা যায় না। আজ আমরা তেমনই কয়েকটি উপকারিতার কথা জানাবো।  

বই পড়লে স্মৃতিশক্তি বাড়ে। বই পড়ার সময় মস্তিস্কের যে অংশটি স্মৃতি ধরে রাখার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়, সেই অংশটি বিশেষভাবে সক্রিয় হয়। তাই বই পড়লে মনে রাখার ক্ষমতা অনেকটাই বাড়ে।

রাতে ঘুম আসতে দেরি হয়? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বই পড়ার সময় এমন কিছু হরমোনের ক্ষরণ হয়, যা ঘুমিয়ে পড়তে সাহায্য করে। তাই শান্তিতে ঘুমাতে চাইলে রাতে কিছুক্ষণ বই পড়ে শুলে ক্ষতি কী?

এখনকার জীবনযাত্রায় সবাই বড্ড বেশি দুশ্চিন্তা করেন। মন এবং মস্তিস্কের ক্লান্তি দূর করতে বইয়ের সঙ্গে বন্ধুত্ব পাতান। দুশ্চিন্তা কমানোর ক্ষেত্রে বই হতেই পারে অন্যতম হাতিয়ার।
কর্মক্ষেত্রে হোক কিংবা পড়াশোনায়, যেকোনো ক্ষেত্রেই উন্নতি করতে গেলে মনোযোগ সহকারে সেই কাজটি করা একান্ত প্রয়োজন। আর এক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করতে পারে বই। প্রতিদিন বই পড়লে মস্তিস্কের কর্মক্ষমতা বাড়ে। ফলে উন্নতি ঘটে মনঃসংযোগের ক্ষমতারও।

বই পড়লে বাড়তে পারে আয়ুও। আদৌ কি এমনটা সম্ভব হয়, ভাবছেন নিশ্চয়? বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, যারা নিয়মিত বই পড়েন এমন মানুয অন্যদের তুলনায় দীর্ঘজীবী হন। বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, বই মানে কিন্তু কাগজে ছাপা বই-ই পড়তে হবে। মোবাইল বা ট্যাবের আলোকিত পর্দায় বই পড়লে সুফল পাওয়ার সম্ভাবনা কম। আধুনিক জীবনের সঙ্গে তাল রেখে ব্যবহার করা যেতে পারে ই-বুক রিডারও। কারণ তার পর্দা থেকে আলো বিচ্ছুরিত হয় না।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২৪
এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad