ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৯ শাবান ১৪৪৫

জাতীয়

মাছ নয়, সেই ২৩ একর জমিতে ফসল ফলাবেন কৃষক  

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৭, ২০২৩
মাছ নয়, সেই ২৩ একর জমিতে ফসল ফলাবেন কৃষক  

শরীয়তপুর: শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে সেই ২৩ একর খাস জমিতে কোনো মাছের খামার হবে না। এ জমিতে কৃষকদের চাষাবাদের নির্দেশ দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)।

 

উপজেলার সখিপুর থানার আরশিনগর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডে অবস্থিত সরকারি খাস খতিয়ানের তিন ফসলি সেই জমি।

শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) সকালে ভেদরগঞ্জ ইউএনও আব্দুল্লাহ আল মামুন ওই এলাকা পরিদর্শন করেন এবং সেখানে স্থানীয় কৃষকদের মাধ্যমে চাষাবাদের নির্দেশ দেন।  

এসময় স্থানীয় চেয়ারম্যান মাহবুব আলম সরদারসহ সব মেম্বাররা উপস্থিত ছিলেন।  

সম্প্রতি প্রায় ২৩ একর জমিতে মাছের খামার করার পায়তারা করে স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল।  এ ঘটনায় স্থানীয়রা কৃষকরা মানববন্ধন করলে নড়েচড়ে বসে উপজেলা প্রশাসন।  

এদিকে ইউএনওর নির্দেশনা শুনে স্থানীয় কৃষকদের মুখে আনন্দের হাসি ফুটেছে।  

এ ব্যাপারে কৃষক আলম ও বাশার বলেন, সরকারি খাস জমিতে কৃষকদের মাধ্যমে চাষাবাদের সুযোগ করে দেওয়ার জন্য ইউএনও আব্দুল্লাহ আল মামুনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

এ ব্যাপারে ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন এক ইঞ্চি জমিও যেন অনাবাদি না থাকে। সেই লক্ষ্য বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসন কর্তৃক সমন্বিত কৃষি পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। যত অনাবাদি খাস জমি রয়েছে তা স্থানীয় কৃষকদের মাধ্যমে চাষের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। উপজেলা প্রশাসন স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে কাজ করছে। তারই ধারাবাহিকতায় জেলা প্রশাসক মো. পারভেজ হাসানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে আরশিনগর ইউনিয়নের ওই ২৩ একর খাস জমি উদ্ধার করা হয়েছে। পাশাপাশি কৃষকদের মাধ্যমে চাষাবাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।  

আগামীতেও এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৬ ঘণ্টা, জানুয়া‌রি ২৭, ২০২৩
এসএএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।