ঢাকা, বুধবার, ৪ বৈশাখ ১৪৩১, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৭ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

কর্মজীবী নারী হোস্টেল আধুনিকরণে ডিসিদের সহযোগিতা চান রিমি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৪৫ ঘণ্টা, মার্চ ৩, ২০২৪
কর্মজীবী নারী হোস্টেল আধুনিকরণে ডিসিদের সহযোগিতা চান রিমি

ঢাকা: সারাদেশে শিশু দিবাযত্ন কেন্দ্র, কর্মজীবী মহিলা হোস্টেল এবং বিভিন্ন প্রশিক্ষণকেন্দ্রগুলোকে বর্তমান যুগের সঙ্গে যুগোপযোগী করার জন্য জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী সিমিন হোসেন (রিমি)।  

রোববার (৩ মার্চ) রাতে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক সম্মেলন ২০২৪ এর প্রথম দিনের চতুর্থ অধিবেশনে যুব ও ক্রিয়া মন্ত্রণালয়ের কার্য অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

এ সময় সমাজকল্যাণমন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী সিমিন হোসেন (রিমি) উপস্থিত ছিলেন।

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী সিমিন হোসেন (রিমি) বলেন, আমাদের কাছে সারাদেশে শিশু দিবাযত্ন কেন্দ্র বানানো, কর্মজীবী নারী হোস্টেল করা এবং বিভিন্ন প্রশিক্ষণকেন্দ্রগুলোকে বর্তমান যুগের সঙ্গে যুগোপযোগী করার জন্য ডিসিরা বলেছেন। এসব বিষয়ে আমাদের বর্তমান কাজ চলমান রয়েছে এবং হচ্ছে। পাশাপাশি যেগুলো বাস্তবসম্মত সেগুলো করার জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এক্ষেত্রে তাদের সহযোগিতা চেয়েছি বলে জানান তিনি।

প্রতিমন্ত্রী রিমি বলেন, কর্মজীবী মহিলাদের সন্তানদের জন্য বেসরকারি উদ্যোগে ডে-কেয়ার সেন্টার স্থাপনের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

এছাড়া দেশের প্রতিটি জেলায় শিশু একাডেমি ভবন নির্মাণসহ ডিএনএ অধিদপ্তর ও শিশু অধিদপ্তর গঠনের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

এরআগে সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে চারদিনের জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলন-২০২৪ এর উদ্বোধন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সম্পর্কিত কার্য-অধিবেশনে আন্তর্জাতিক বাজারে রপ্তানিযোগ্য পণ্য বহুমুখীকরণ, চামড়াজাত শিল্পের উন্নয়ন ও চামড়া রপ্তানির বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া, রোজার মাস সামনে রেখে তেল, চিনি ও চালের দাম নিয়ন্ত্রণ, প্রকল্প বাস্তবায়নে ভূমি অধিগ্রহণের বিষয়টি দ্রুত নিষ্পত্তি করা এবং সার্বজনীন পেনশন স্কিম বাস্তবায়ন ত্বরান্বিত করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে বলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জানানো হয়েছে।

এবারের সম্মেলনের আলোচ্যসূচিতে থাকছে ৩৫৬ প্রস্তাব। প্রস্তাবগুলোর জনসেবা বৃদ্ধি, জনদুর্ভোগ হ্রাস করা, রাস্তাঘাট ও ব্রিজ নির্মাণ, পর্যটনেন বিকাশ, আইন- কানুন বা বিধিমালা সংশোধন, জনস্বার্থ সংক্ষণের বিষয়গুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করা হয়েছে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ২২টি প্রস্তাব পড়েছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ থেকে। সম্মেলনে সর্বমোট অধিবেশন ৩০টি। এর মধ্যে কার্য-অধিবেশন ২৫টি (১টি উদ্বোধন অনুষ্ঠান, ১টি স্পীকারের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ এবং মতবিনিময় এবং ১টি প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ এবং সদয় নির্দেশনা গ্রহণ এবং অন্যান্য অনুষ্ঠানিকতা ২টি। এছাড়া অংশগ্রহণকারী কার্যালয়: ১টি (প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়)।

এবারের ডিসি সম্মেলনে প্রথমবারের মতো সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিবরা বিভাগীয় কমিশনার ও ডি‌সি‌দের কাছে তাদের অভিজ্ঞতা তুলে ধরবেন ও প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেবেন। এজন্য সম্মেলনের প্রথম দিন (রোববার) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ‘উন্নয়নে মাঠ প্রশাসন’ শীর্ষক এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করবেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মাহবুব হোসেন। আলোচক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিবরা।


বাংলাদেশ সময়: ২২৪৪ ঘণ্টা, মার্চ ০৩, ২০২৪
জিসিজি/জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।