ঢাকা, শনিবার, ২১ মাঘ ১৪২৯, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১২ রজব ১৪৪৪

রাজনীতি

বিএনপির সমাবেশের জায়গা নিয়ে সমস্যার সমাধান হবে: ওবায়দুল কাদের

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৫৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৬, ২০২২
বিএনপির সমাবেশের জায়গা নিয়ে সমস্যার সমাধান হবে: ওবায়দুল কাদের

ঢাকা: আগামী ১০ ডিসেম্বর বিএনপির সমাবেশের জায়গা নিয়ে যে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে সেটি সমাধান হয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) বিকেলে নিজ দপ্তরে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার প্রণয় কুমার বার্মা’র সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান তিনি।

এ সময় দেশে বিশৃঙ্খলা হোক, কেউ চায় না বলেও উল্লেখ করেন ওবায়দুল কাদের।

১০ ডিসেম্বর সামনে রেখে আলোচনার কোনো পথ খোলা রাখা হয়েছে কিনা, সেতুমন্ত্রীর কাছে জানতে চান সাংবাদিকরা। জবাবে তিনি বলেন, এটা নিয়ে জনগণের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। আমি, আমার দল ও সরকারের পক্ষ থেকে বলতে চাই- আমরা সরকারে আছি, আমরা কোন বিশৃঙ্খলা হোক বা অশান্তি হোক সেটা চাইবো? আমরা কেন আতঙ্ক সৃষ্টি হোক সেটা চাইবো? দরকার তো নেই! এখন যদি আতঙ্ক সৃষ্টি বা উসকানি দেওয়া হয় বা আমাদের ওপর ঝাপিয়ে পড়লে আমরা কি চুপ করে বসে থাকবো?

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি আশা করি বিএনপি শান্তিপূর্ণভাবে সমাবেশ করবে। দলীয়ভাবে আওয়ামী লীগ কোথাও বা ছিটেফোঁটা নাম দিয়ে দুই একটি জায়গায় হতে পারে। কিন্তু আমরা দলীয়ভাবে কখনও তাদের সঙ্গে সংঘাত সৃষ্টি করিনি। এখনও আমরা সংঘাত চাই না।

বিএনপির সমাবেশের স্থান এখনও ঠিক হয়নি। তাহলে শান্তিপূর্ণ সমাবেশ কীভাবে হবে? এমন প্রশ্নের উত্তরে আওয়ামী লীগ সম্পাদক বলেন, হয়ে যাবে। বাংলাদেশের রাজনীতির আকাশে কখনো মেঘ ঘনিভূত হয়, আবার চট করে চলে যায়।

এ সময় তার কথার প্রেক্ষাপট জানতে চান সাংবাদিকরা। প্রশ্ন করেন, তাহলে কি আপনি বলতে চাচ্ছেন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপি সমাবেশ করবে না। সরকার নয়া পল্টনে দেবে? উত্তরে ওবায়দুল কাদের বলেন, যেটাই হোক এটার সমাধান হয়ে যাবে।

ভারতীয় হাইকমিশনারের সাথে কি আলোচনা হয়েছে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, আজকে সৌজন্য সাক্ষাতে এসেছেন। তারপরও অনেক বিষয়ে তার সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। বিশেষ করে রোড কানেক্টিভিটি, অনেকগুলো প্রকল্পের প্রোগ্রেজ নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এছাড়া তিস্তা নিয়ে আমি নিজে থেকে বলেছি, আমাদের জনগণের চাওয়া।

প্রণয় কুমার বার্মা বলেছেন, তিনি সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন। তাদের প্রধানমন্ত্রীর (নরেন্দ্র মোদি) সঙ্গে আলোচনা করবেন। সমস্যা হলো তিস্তা সম্পর্কে রাজ্যের অনুমতি। এটা তাদের নলেজে আছে, তাদের প্রধানমন্ত্রী আমাদের প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলেছেন। এর পাশাপাশি বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়েও আলোচনা হয়েছে, জানান ওবায়দুল কাদের।

বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে কি কথা হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নির্বাচন নিয়ে তারা কোনো ওপিনিয়ন দেয়নি। আমি আমার কথা বলেছি। তারা এখানকার রাজনৈতিক অবস্থা সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। তখন আমি বললাম, বিরোধী দল (বিএনপি) সরকার পতনের জন্য আন্দোলন করছে। তত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া তারা নির্বাচন করবে না। এ প্রশ্নে তারা অনড়। ১০ তারিখে তাদের একটা মহাসমাবেশ আছে। এখন সমাবেশের স্থান অনুমোদন ও তাদের চাওয়া নিয়ে সরকারকে কনভিন্স করার চেষ্টা করছে।

এর আগে আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন ছাত্রলীগের জাতীয় সম্মেলনে অংশ নেন ওবায়দুল কাদের। সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশ সময় : ১৬৫৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৬,২০২২
জিসিজি/এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa