ঢাকা, বুধবার, ১১ বৈশাখ ১৪৩১, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৫

রাজনীতি

কুমিল্লার স্বার্থে প্রিয় নেত্রীকেও ভয় করি না: এমপি বাহার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৫৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৭, ২০২৩
কুমিল্লার স্বার্থে প্রিয় নেত্রীকেও ভয় করি না: এমপি বাহার

কুমিল্লা: কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার বলেছেন, আমি কুমিল্লার মানুষকে ভালোবাসি। কুমিল্লার মানুষের কথা বলতে আমি প্রিয় নেত্রীকেও ভয় করি না।

আমি প্রধানমন্ত্রীকে বলব, কুমিল্লা নামেই বিভাগ দিন।

বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) রাতে কুমিল্লা শিল্পকলা একাডেমিতে আয়োজিত ব্যবসায়ী সমিতির মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন এমপি বাহার।  

সাবেক কুমিল্লা সিটি করপোরেশন মেয়র মনিরুল হক সাক্কুর নামে বিস্তর অভিযোগ আনেন কুমিল্লার এ সংসদ সদস্য।  

তিনি বলেন, আমি যখন পৌরসভার চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করি তখনও আমাকে অনেকে হতাশ করেছে। কিন্তু জনগণ আমাকে শক্তি দিয়েছে। তাদের শক্তিতে আমি পৌরসভাকে সিটি করপোরেশন করেছি। আর আমার পরে আসলো কে? আকবর ভাই, সাক্কু ভাই। তারা কি করেছে? প্ল্যান পাস করিয়েছে, আর টাকা খেয়েছে। সাক্কু সহজ-সরল মানুষের মতো কথা বলে। অথচ তিনি মানুষের টাকা মেরে ৭৮টা ফ্ল্যাট করেছে। আমি সবই জেনেছি পরে। রূপায়ণ টাওয়ার করতে ৭৫ লাখ টাকা ঘুষ দিতে হয়েছে। প্ল্যানেট এসআরের প্ল্যান পাস করতে ৭৫ লাখ টাকা নিয়েছে। এই সাক্কু তার নিজের পকেটে ঢুকিয়েছে টাকা। কুমিল্লা সিটিকে ওভারলোড করে দিয়েছে সাক্কু। আজ যানজটের জন্য শহরে হাঁটা যায় না। ভবনের পর ভবনের প্ল্যান পাস হয়েছে নিয়ম না মেনেই।  

এরপর বর্তমান মেয়র আরফানুল হক রিফাতের বিষয়ে বাহার বলেন, আমি রিফাতকে তিল তিল করে কুমিল্লার মানুষের জন্য গড়ে তুলেছি। রিফাতের ৬ মাস হয়েছে মেয়র হওয়ার। আপনারা ৬ টাকা ঘুষের কোনো প্রমাণ পেয়েছেন? পেলে আমাকে বলুন। আমি তখন আর এখানে (মঞ্চে) থাকব না আমি চলে যাবো ওখানে (জনগণের কাতারে)। তখন আর রিফাতকে চেয়ারে থাকতে দেব না।  

এমপি বাহার আরও বলেন, কুমিল্লা এখন আগের কুমিল্লা নেই। আমাকে সবাই বলে সংস্কৃতিবান্ধব, অনেকে বলে শিক্ষকবান্ধব, আর এই অনুষ্ঠানে আসার পর বলছেন, আমি নাকি ব্যবসায়ীবান্ধব। আমি আসলে কোনো বান্ধবই নই। আমি কুমিল্লাবান্ধব, জণগণের বান্ধব। আমরা খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ, জাতীয় অর্থনীতিতে আমাদের প্রবাসীরা সবচেয়ে বেশি অবদান রাখছেন। আমরা মাছ উৎপাদনে এখন দেশজুড়ে ভালো অবস্থানে৷ যারা ১৯৭১ এর যুদ্ধের পর আমাদের তলাবিহীন ঝুড়ি বলেছিল তারা এখন হিংসা করে। আপনারা মুরগি খান কত করে? দেড়শ টাকা। আর পাকিস্তানে মুরগির কেজি ৬০০ টাকা। আমরা কি ভালো নেই?

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কুমিল্লা দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. সানাউল হক। বিশেষ অতিথি ছিলেন কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র আরফানুল হক রিফাত। সমন্বয়ক ছিলেন দোকান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আতিক উল্লাহ খোকন। অনুষ্ঠানে দোকান মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ ও সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১১৪৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৭, ২০২৩
এসএএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।