ঢাকা, রবিবার, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

প্রবাসে বাংলাদেশ

রাষ্ট্রদূত মসহুদ মান্নানের কাজে ক্ষুব্ধ জার্মান প্রবাসীরা!

প্যারিস প্রতিনিধি | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৩৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ৪, ২০১২
রাষ্ট্রদূত মসহুদ মান্নানের কাজে ক্ষুব্ধ জার্মান প্রবাসীরা!

প্যারিস: স্বাধীনতা দিবসের একদিন আগেই জার্মান দূতাবাসে স্বাধীনতা দিবস পালন করায় জার্মানীতে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের মধ্যে দেথা দিয়েছে নানা প্রতিক্রিয়া। জার্মানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মসহুদ মান্নান ২৫ মার্চ দূতাবাসে তার নিজের মত করে এবং নিজের কিছু লোকজনকে নিয়ে একদিন আগেই এ দিবসটি পালন করেছেন।

বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম-নীতির কোনও তোয়াক্বা না করে এই কাজ করেছেন তিনি।

জার্মান প্রবাসীরা একে গর্হিত অপরাধ বলেও মনে করছেন। কেউ কেউ মান্নান মসহুদের অতীত কিছু কর্মকাণ্ড নিয়ে বিভিন্ন মিডিয়ার কাছে মুখ খুলেছেন। তারা বলছেন, দীর্ঘদিন ধরে প্রাবাসীদের নিকট ঘুষ দাবি, চাকুরিচ্যুতকরণ, ছাত্রদের অসহযোগিতাসহ নানা দুরব্যবহার করে আসছেন তিনি।

অভিযোগকারীদের মধ্যে জার্মানীতে অবস্থানরত টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি বার্লিনের বিবিএ’র ছাত্র শামীম আশরাফ জানান, প্রায় দেড়মাস আগে আন্ডারগ্রাউন্ড মেট্রোতে তার পাসপোর্ট ছিনতাই হয়ে গেলে তিনি দূতাবাসে যান নতুন পাসপোর্ট করা জন্য। রাষ্ট্রদূত প্রথমে তাকে মানসিকভাবে হেনস্থা করেন এবং পরে নতুন পাসপোর্টের জন্য আড়াই হাজার ইউরো দাবি করেন। এমনকি রাষ্ট্রদূত তাকে লেখাপড়া ছেড়ে কাজকর্ম করার পরামর্শ দেন। পরে শামীম বার্লিন আওয়ামী লীগ সেক্রেটারি শেখ বাদল আহমেদকে দিয়ে ফোন করিয়ে নতুন পাসপোর্ট পান।
 
নাম প্রকাশ না করার শর্তে আরো বেশ কয়েকজন প্রবাসী জানান, তিনি দূতাবাসে গেলে প্রাব‍াসীদের বিভিন্নভাবে হয়রানি করেন, কেউ কোনও প্রতিবাদ করলে তার বাবা এমপি (ডা. আব্দুল মান্নান, কিশোরগঞ্জ-২) বলে হমকি দেন।

২০১১ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জার্মান সফরকালে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া সাংবাদিকদের সাখে অসহযোগিতা করেন এমন অভিযোগও এসেছে। ওই সফরের একাধিক সাংবাদিক রাষ্ট্রদূতের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

প্রাবাসীরা জানান, জার্মান ও পার্শ্ববর্তী দেশের প্রবাসীরাই কেবল নন, তার (রাষ্ট্রদূতের) সহকর্মী কর্মচারীরাও বিভিন্ন সময় তার রোষাণলের শিকার হয়েছেন বলে জানা যায়। সম্প্রতি দূতাবাস কর্মকর্তা নজরুল ইলামের মৃত্যুতে চিকিৎসার অবহেলা ও প্রটোকলজনিত তার সহকর্মীদের ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা যায়। সাধারণ বিষয় নিয়ে তিনি দূতাবাসের এক গাড়ি চালককেও চাকুরিচ্যুত করেন বলেও জ‍ানা গেছে। প্রবাসীরা মনে করেন, দেশের বাইরে রাষ্ট্রদূতের আচরণ অভিবাবকসুলভ হওয়া উচিত।

এসব ‍অভিযোগের বিষয়ে জানার জন্য মসহুদ মান্নানের কাছে ফোনে যোগাযোগ কর‍ার চেষ্টা করেও সম্ভব হয়নি। এ বিষয়ে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এটা পরারাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিষয় নয়, প্রবাসীরা চাইলে বিএমইটির ওয়েবসাইটে ‍অভিযোগ নথিভূক্ত করতে পারেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জনিয়েছে, এ বিষয়ে তাদের কাছে কোনও অভিযোগ আসেনি।

বাংলাদেশ সময় ১২৩৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৪, ২০১২

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa