ঢাকা, শুক্রবার, ৬ কার্তিক ১৪২৮, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

পর্যটন

অ্যাপেই দেওয়া যাবে হোটেল বুকিং

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৫১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১, ২০২১
অ্যাপেই দেওয়া যাবে হোটেল বুকিং

ঢাকা: বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেন, পর্যটন কর্পোরেশনের হোটেল-মোটেল রিজার্ভেশনের সেবা ওয়েবসাইট চালু করতে যাচ্ছে।  
এছাড়া ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে সেবা কার্যক্রম চালু করা হবে বলেও জানান মাহবুব আলী।

 

বুধবার (০১ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের হোটেল-মোটেল অনলাইন বুকিং সম্পর্কিত সেবা চালুর উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ২৭ সেপ্টেম্বর বিশ্ব পর্যটন দিবসে মোবাইল অ্যাপ চালু করা হবে। এরপর এক মাসের মধ্যেই গ্রাহকরা মোবাইল ব্যবহার করে এই সেবা গ্রহণ করতে পারবেন। সরকার পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠার পর থেকে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের পরিচালন ও সেবায় নানা পরিবর্তন এসেছে, চাহিদার প্রেক্ষিতে এর সেবা আধুনিকায়ন করার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে আজ বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের হোটেল-মোটেলের অনলাইন (www.hotels.gov.bd) বুকিং সিস্টেম উদ্বোধন করা হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, এটি ব্যবহার করে বিশ্বের যে কোনো প্রান্ত থেকে পর্যটকরা বাংলাদেশ হোটেলের রুম বুকিং ও ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড ও মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে পেমেন্ট করতে পারবেন।  

মাহবুব আলী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের বিকাশ ও উন্নয়নে আন্তরিকভাবে কাজ করছে। এরই অংশ হিসেবে জাতির পিতার হাতে গড়া বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের অবকাঠামোগত এবং পরিচালন উন্নয়ন ও সংস্কার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও ঐকান্তিক ইচ্ছায় বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন ঢাকার শেরেবাংলা নগরে নিজস্ব মালিকানাধীন অত্যাধুনিক পর্যটন ভবন পেয়েছে।  

এছাড়া ঢাকার তেজগাঁওয়ে অবস্থিত হোটেল অবকাশ এবং ন্যাশনাল হোটেল ও ট্যুরিজম ট্রেনিং ইনস্টিটিউশনের সংস্কার কার্যক্রম প্রায় সমাপ্তির পথে। চট্টগ্রামের পারকি, বাগেরহাট, গাজীপুরের শালনা, সিরাজগঞ্জের কাজীপুর, সিলেটের লালাখাল, কুমিল্লা, নাটোর, নেত্রকোনার বিজয়পুর, শেরপুরের গজনী ও নারায়ণগঞ্জের বারদিতে  পর্যটন সুবিধা বাড়াতে হোটেল-মোটেল ও রেস্তোরাঁ নির্মাণের কাজ চলমান রয়েছে।

করোনার সময়ে হোটেল মোটেল কোনো ব্যবসা করতে পারেনি। অথচ আয়কর পুরোটাই দাবি করা হচ্ছে এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেবেন কিনা জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড আয়কর স্বাভাবিক নিয়মে দাবি করেছে। আর হোটেল মোটেল কর্তৃপক্ষ যে ব্যবসা করতে পারেনি এজন্য প্রধানমন্ত্রী প্রথমে ১০ হাজার কোটি টাকা এরপর ৫ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা দিয়েছেন। সামগ্রিক অর্থে আমরাও চাই খুব দ্রুততম সময়ে তারা যেন তাদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারেন। আর এই ক্ষতিটা সারা পৃথিবীতেই হয়েছে।

তিনি বলেন, হোটেল মোটেল মালিকদের অসুবিধার কথা চিন্তা করে সীমিত পরিসরে পর্যটন শিল্প খুলে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে করোনার সংক্রমণ নিন্মগামী।  

এসময় বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেন বলেন, বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের জন্য আজ একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন। অনলাইনে বুকিং সিস্টেম হওয়াতে সচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে। এতে করে সেবার মানোন্নয়ন এবং পর্যটন শিল্পের উন্নয়ন হবে।  

বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান মো. হান্নান মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেন। এছাড়াও এই প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৪৭ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০১, ২০২১
জিসিজি/এসআইএস 
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa